পাতা:ঠাকুরমার ঝুলি.djvu/১৯০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

ঠাকুরমা’র বুলি 浚 š Wy Roğ w W ് “ন। তিনি লো নাতনি ! মানুষ মানুষ গন্ধ কঁয়— মানুষ আঁবার কেঁথায় রায় ?” রাজকন্যা বলিলেন,-“মানুষ আবার—থাকিবে কোথায় ; আমিই আছি, আমাকে খাইয়া ফেলি।” বুড়ী বলিল,—“উ হু: হু’ নাতনি লো, তঁ’ কি পারি। — এই নে নাতনি তেঁর জন্যে কঁত খাবার এনেচি।” নাতনিকে খাওয়াইয়াদাওয়াইয়া,বুড়ী আর সকল রাক্ষস,নাকে কাণে হাঁড়িহাঁড়ি সরুষের তৈল ঢালিয়ানাক ডাকাইয়া ঘুমাইয়া পড়িল। রাজকন্যা, আয়ীর মাথার পাকা চুল তোলেন আর ডেলা ডেলা এক এক উকুন দুই পাথরের চাপ দিয়া কটাস্ কটাসূ করিয়া মারেন। রাজকন্যার রাত এই ভাবেই যায় । পরদিন আবার রাজকন্যাকে মারিয়ারাখিয়া রাক্ষসেরা চলিয়া গেল। রাজপুত্র বাহির হইয়া আসিয়া রাজকন্যাকে জীয়াইলেন, দুইজনে স্নান থাওয়া দাওয়া করিলেন । রাজপুত্র বলিলেন,- “রাজকন্যা, এ ভাবে কুতদিন থাকিব ? আজি যখন বুড়ী আসিবে, তখন দুই কথা ছিল ভাণ করিয়া, ওদের মরণ কিসে আছে, তাই জিজ্ঞাসা করিও ।” আবার রাক্ষসেরা আসিলে, রাজপুত্র শিবমন্দিরে গিয়া লুকাইলেন। রাজকন্যাকে খাওয়াইয়া দাওয়াইয়া বুড়ী খাটের উপর বসিল —রাজকন্যা বলিলেন,-“আয়ি লো আয়ি, কত রাজ্য ঘুরিয়া হাঁপাইয়া হুপাইয়া তুলি, স্নায় একটু বাতাস করি, পাকা চুল দু’গাছ তুলিয়া দি ” § ※ Seలి