পাতা:ঠাকুরমার ঝুলি.djvu/২৫২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

ঠাকুরমা’র বুলি রাজা কঁাদেন, রাণী কঁাদেন, কাণা কন্যা কঁাদেন, দেড় আঙ্গুলে’ বলিল,-“চোর তো আমি এনে দিয়েইছিলাম, তা” রাজকন্যার বর হবে, না, আপন দোষে শূলে গেল,—তা’র আমি জানি কি? রাজামশাই, কাঠুরে’ দাও!” “কি রে ৪-বারে বারে ভ্যান ভ্যালবারে বারে ঘ্যাল ঘ্যাল! দে তো নিয়ে ক্ষুদেটাকে চোরেদের সঙ্গে ! ফুট -দেড় আঙ্গুলে’কে কেউ খুঁজিয়াই পাইল না । চােরের রাজ্যে, চােরের রাজা, সাড়ে সাত চােরের শূলের কথা শুনিল । নায়ে নায়ে ভরা দিয়া যত রাজ্যের চোর আসিয়া রাজার রাজপুৱীময় চুরি আরম্ভ করিল। সিপাহী শাস্ত্রী ধোঁকা, রাজা হ’লেন বোকী !-নিতে নিতে চাটি নিল বাটি নিল, সব নিল চোরে, মাটি পেতে পান্তা খান, রাজা মনে মনে পুড়ে” । তখন,-“চোরের বাদী সেই ক্ষুদে’ তারে এখন এনে দে৷ ” কোথায় বা ক্ষুদে’, কোথা খুঁজিয়া পায়। দেড় আঙ্গুলে’ ঘাস-বন থেকে হাসিতে হাসিতেআসিয়াবলিল,-“রাজামশাইরাজামশাই, এত এত সিপাই চোরের কাছে চিপাই ; আমার কাছে ঘুরসুড়নি এমন সিপাই জন্মোন নি। তা” যদি বল’ তো সব চোর তাড়িয়ে দি !” আচ্ছা, কি চাও?” । ീ ਗੁ5ਝੇ e 浚 २७