পাতা:ডিটেক্‌টিভ পুলিস (প্রথম কাণ্ড) - প্রিয়নাথ মুখোপাধ্যায়.pdf/৫৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।

৪৮

ডিটেক্‌টিভ পুলিস, ১ম কাণ্ড।


 পরদিন বেলা ১০টার পর রাধাবাজার হইতে দুইখানা পার্চমেন্ট কাগজ ক্রয় করিয়া লইয়া একটী নূতন এদেশীয় ছাপাখানায় যাইয়া উপস্থিত হইলাম। ছাপাখানার অধ্যক্ষকে বলিলাম, “গবর্ণমেন্ট অফিসের নিমিত্ত কতকগুলি ফরম ছাপাইবার আবশ্যক হইয়াছে। যদি আপনি ভালরূপ কার্য্য করিতে পারেন, তাহা হইলে আপনাকে আমি অনেক কার্য্য আনিয়া দিতে পারি। আপাততঃ একট ফরম আনিয়াছি যদি বলেন, আপনাকে দিতে পারি।” ছাপাখানার অধ্যক্ষ অতিশয় আগ্রহের সহিত বলিলেন, “মহাশয়! আমি অতি অল্প মূল্যে ও অল্প সময়ের মধ্যে ভালরূপ কার্য্য করিয়া দিতে পারিব; কারণ আপনি বোধ হয় জানেন যে, এটী আমার নূতন ছাপাখানা, অদ্যাবধি কর্ম্মের অতিশয় ভার পড়ে নাই।” আমি বলিলাম, “তবে এইটী এখনই করিয়া দিন, আমি বসিতেছি।” এই বলিয়া আমি যে মুশাবিদাটী সঙ্গে করিয়া লইয়া গিয়াছিলাম, তাহা তাঁহাকে দিলাম। যেখানে যেখানে যে যে প্রকার ছোট বড় বা অন্যান্য প্রকার অক্ষর দিতে বলিলাম, তিনি নিজেই বাছিয়া বাছিয়া সেই প্রকার অক্ষর লইয়া আমার সম্মুখে বসাইতে লাগিলেন। প্রায় এক ঘণ্টার মধ্যে কার্য্য সম্পন্ন করিয়া একখানি কাগজে তাহার ছাপা উঠাইলেন এবং বলিলেন,“দেখুন মহাশয়! কি প্রকার হইয়াছে।” আমি দেখিলাম, ও ২।১ স্থানে কিছু কিছু পরিবর্ত্তন করিয়া, তাঁহাকে ফিরাইয়া বলিলাম, “ইহা পার্চমেন্ট কাগজে ছাপাইতে হইবে, সুতরাং আমার নিকট হইতে এই পার্চমেন্ট কাগজ লইয়া উহার উপরে ছাপাইয়া দিউন।” তিনি তাহাই করিলেন,