পাতা:তারাচরিত.pdf/৩৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
২৬
তারাচরিত।

কাফর হিন্দু বংশোদ্ভব এই ক্ষত্রিয় যুবক যুবতীকে এখনি ইহার প্রতিফল দিতে হইবে। এই বলিয়া তিনি যুদ্ধার্থ সসৈন্যে রাজধানী হইতে বহির্গত হইয়া টোডাভিমুখে যাত্রা করিলেন।

 এদিকে সূর্য্য সম তেজস্পুঞ্জ সূৰ্য্যবংশাবতংস পৃথ্বীরাজ এই সংবাদ শুনিয়া স্থির করিলেন যে, মুসলমানদিগকে আর চড়াও হইতে দেওয়া হইবে না, আজমীর রাজেই নবাবের সহিত সাক্ষাৎ করিতে হইবে। মনে মনে ইহাই স্থির করিয়া পৃথ্বীরাজ যুদ্ধসজ্জা করিতে লাগিলেন। তারার শিবিরে ঐ সংবাদ পৌঁছিল। তিনিও সজ্জিত হইয়া বীরমণ্ডলীর সমভিব্যাহারিণী হইলেন। রণ তুরঙ্গ সকল তীরবেগে গমন করিতে লাগিল। পৃথ্বীরাজ ও তারা সসৈন্যে যবন রাজ্যের সন্নিহিত হইলেন। সন্ধ্যার প্রাক্কালে যবন শিবির আক্রমণ করিলেন। তাহাদের সহিত ঘোরতর সংগ্রাম হইল। যুদ্ধে বিস্তর যবন সেনা মরিল। অবশিষ্ট দিগকে বন্দী হইতে হইল। পৃথ্বীরাজ ঐ বন্দীদিগকে সঙ্গে লইয়া, সেনা পরিবৃত হইয়া তারা সমভিব্যাহারে আজমীরের সম্মুখস্থিত গড় বিঠ্ ঠলী নামক কেল্লায় প্রবেশ করিলেন। আজমীর সম্পূর্ণ রূপে তাঁহার করতলগত হইল।