পাতা:তারাচরিত.pdf/৫২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
৪১
তারাচরিত।

একবার উড়িতেছে। ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র বৃক্ষ সকল আলবালে কি শোভাই পাইতেছে। কোকিল সকল স্থানে স্থানে বসিয়া কুহু কুহু করিয়া কমলমেরুর অধিকতর শোভা সম্পাদন করিতেছে। ময়ুর ময়ূরী সকল কেকা রব করিয়া ঘুরিয়া ঘুরিয়া বেড়াইতেছে। শুক সারি সুখেতে বসিয়া প্রেমালাপ করিতেছে। থাকিয়া থাকিয়া পাপিয়া সকল যেন বসন্তের যশ ঘোষণা করিতেছে। মারুত হিল্লোলে পাদপ শাখা সকলকে দুলাইতেছে। পৃথ্বীরাজ ও তারা সেই কমলমেরুতে অবস্থান করিয়া দাম্পত্যের অপূৰ্ব্ব অনিৰ্ব্বচনীয় সুখ অনুভব করিতে লাগিলেন।

 একদা, পৃথ্বীরাজ জয়লাভান্তে, কোন যুদ্ধস্থল হইতে প্রত্যাগত হইয়া তারাকে যুদ্ধের সমুদয় বৃত্তান্ত বলিতে বলিতে কমলমেরুর নৈসৰ্গিক শোভা সন্দর্শন করিতেছেন। তাহাতে তারা যার পর নাই হর্ষান্বিত হইয়া অঙ্গুলি নির্দেশ দ্বারা বলিলেন নাথ দেখ দেখ ঐ অশোক তরুটীর সঙ্গে মাধবী লতার কি অপূৰ্ব্ব সংযোগ হইয়াছে! আহা ইহাদের উভয়ের মিলন কি নয়ন প্রীতিকর। পৃথ্বীরাজ শুনিয়া বলিলেন প্রিয়তমে মাধবী আপনিই অশোককে প্রণয় গুণে আবদ্ধ করিয়াছে। আরও দেখ প্রিয়ে তার নিকটে উচ্চ শাল্মলী বৃক্ষ রহিয়াছে কিন্তু মাধবীর একটী শাখাও সে দিকে যায় নাই। পৃথ্বীরাজ অপর দিকে অঙ্গুলি নির্দেশ করিয়া বলিলেন প্রিয়ে দেখ দেখ অপরাজিতা করবীর আশ্রয় করিয়া কি অনিৰ্ব্বচনীয় শোভা সম্পাদন করিতেছে। করবীর কোলে অপরাজিতার