পাতা:ত্রিদিববিজয় কাব্য.djvu/৭৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


fএদিববিজয় অমনি প্রলয়ে চুণিত হইছে অশু, বিশ্বের সে দেশ ; আবার গড়িছে শিল্পী কল্পনার বলে । এ ভাবে পাঞ্চভৌতিক প্রপঞ্চের ক্রিয়া, উৎপত্তি বিলয়, শিল্পী সাধিছেন সদা, ধীমান। আকাশ যুড়ি বিরাজেন শব্দ, ধবনিময়, আদি কাল হতে দেবশিল্পী-অমুচর। মহানৃত্যে দেবভূত্য ঘোষিল বীরতা আজি দেব স্বগোচরে । “দেখ চক্ষু মিলি, বলি, ইন্দ্র সহ আগত কুমার কাৰ্ত্তিকেয় । শোভা হেরি জুড়াও লোচন, প্রভু। ব্যোমদেব আপনি উল্লাসে আজি হাসিছেন, হের, দিব্য জ্যোতিৰ্ম্ময় হাসি । শক্তি-অংশে জন্ম দেব ।” নীরবিলে অমুচর, সসন্ত্রমে সস্তাষি কুমারে কহিলেন স্থশিক্ষক । “হে শক্তিপ্রসূন, তব শুভাগমবাৰ্ত্তা, বাসবসকাশে শুনিয়াছে এই দাস । কিন্তু সে কি সাধ্য মোর শিখাইব তোমা ? বিশ্বের জননী, প্রসূ তব, দয়া করি যেই অজ্ঞা করেন অজ্ঞেয়t, পালি মাত্র লীলাক্ষেত্রে । অন্ত নাহি জানি, শক্তিধর। দেবীর আদেশে, লও তব ধন তুমি,