পাতা:দুই বোন - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৭৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।
১১২
দুই বোন

শশাঙ্ককে খুশি করাটা তো শমিলার মনঃপূত । কিন্তু এই জাতের খুশিটা ওর নিজের খুশির জাতের সঙ্গে মেলে শশাঙ্ককে বারবার ডেকে বলে, “ওকে নিয়ে সময় নষ্ট করে। কেন । ওতে যে তোমার কাজের ক্ষতি হয় । ও ছেলেমানুষ, এসব কী বুঝবে ।” শশাঙ্ক বলে, “অামার চেয়ে কম বোঝে না ।” মনে করে এই প্ৰশংসায় দিদিকে বুঝি আনন্দ দেওয়াই হোলো । নিৰ্বোধ । নিজের কাজের গোরবে শশাঙ্ক যখন অাপন স্তীর প্ৰতি মনোযোগকে খাটো করেছিল, তখন শমি লা সেটা যে শুধু অগত্যা মেনে নিয়েছিল তা নয়, তাতে সে গর্ব বোধ করত । তাই ইদানীং আপন সেবাপরায়ণ হৃদয়ের দাবি অনেক পরিমাণেই কমিয়ে এনেছে । ও বলত, পুরুষমানুষ রাজার জাত, দুঃসাধ্য কৰ্মের অধিকার ওদের নিয়তই প্ৰশস্ত করতে হবে । নইলে তারা মেয়েদের চেয়েও নীচু হয়ে যায়। কেননা মেয়েরা আপন স্বাভাবিক মাধুৰ্য ভালোবাসার জন্মগত ঐশ্বৰ্যেই সংসারে প্রতিদিন অাপন অাসনকে সহজেই সাৰ্থক করে । কিন্তু পুরুষের নিজেকে সাৰ্থক করতে হয় প্ৰত্যহ