পাতা:দুই বোন - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৯৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।
১১২
দুই বোন

নিতে হোলো। । উমির সঙ্গে বিবাহের সম্বন্ধ বিচ্ছিন্ন না করলে উপায় নেই । একজন যুরোপীয় মহিলা ওকে বিবাহ ক’রে ওর কাজে আত্মদান করতে সন্মত । কিন্তু কাজটা সেই একই, ভারতবর্ষেই করা হোক আর এখানেই । রাজারামবাবু যে-কাজের জন্য অৰ্থ দিতে চেয়েছিলেন, তার কিয়দংশ সেখানে নিযুক্ত করলে অন্যায় হবে না । তাতে মতব্যক্তির পরে সন্মান করাই হবে । শশাঙ্ক বললে, “জীবিত ব্যক্তিটাকে কিছু কিছু দিয়ে যদি সেই দূরদেশেই দীৰ্ঘকাল জিইয়ে রাখতে পারো তো মন্দ হয় না । টাকা বন্ধ করলে পাছে খিদের জ্বালায় মরিয়া হয়ে এখানে দৌড়ে অাসে এই ভয় অাছে।” উমি হেসে বললে, “সে-ভয় যদি তোমার মনে থাকে, টাকা তুমিই দিয়ো, আমি এক পয়সা ও দেব না । ” শশাঙ্ক বললে, “অাবার তো মন বদল হবে না । মানিনীর অভিমান তো অটল থাকবে ।” “বদল হোলে তোমার তাতে কী শশাঙ্কদা ।” “প্রশ্নের সত্য উত্তর দিলে অহংকার বেড়ে যাবে, অতএব তোমার হিতের জন্যে চুপ করে রইলুম। কিন্তু