পাতা:দেবী চৌধুরানী - বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/১১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ινο প্রফুল্ল—“ভাল লাগিৰে বলিয়াই আসিয়াছি । এই ধৰ্ম্মষ্ট স্ত্রীলোকের ধৰ্ম্ম ।...কঠিন ধৰ্ম্মও এই সংসারধৰ্ম্ম ; ইহার অপেক্ষ কোন যোগ কঠিন নয়।...আমি এই সন্ন্যাস করিব।”...সে যে অদ্বিতীয় মহামহোপাধ্যায়ের শিক্ষা-নিজে পরম পণ্ডিত—সে কথা দূরে থাকুক, কেহ জানিল না যে, তাহার অক্ষর-পরিচয়ও আছে। (৩-১৩-১৪ ) । একজন মহাকবি,—ইংরেজ, কিন্তু ঋষির মত দিব্যদ্রষ্টা-ভরত পক্ষীকে দেখিয়া বলিয়াছেন, “তুমিই প্রকৃত জ্ঞানী, তুমি স্বর্গ ও মর্ত্যের মধ্যে সম্বন্ধ রক্ষা করিয়াছ”— Type of the wise, who soar but never roam, True to the kindred points of heaven and home. প্রফুল্লের জীবনও এই চরম সামঞ্জস্যের দুষ্টান্ত ; নিষ্কাম ধৰ্ম্মে, দশ বৎসর ব্যাপী ব্রহ্মচর্য্যে গঠিত, “দেবী”ই আদর্শ গৃহিণী হইতে পারেন। তাই বঙ্কিম বলিতেছেন— “এসো, প্রফুল্ল ! একবার লোকালয়ে দাড়াও—আমরা তোমাকে দেখি । একবার এই সমাজের সম্মুখে দাড়াইয়া বল দেখি, “আমি নূতন নহি, আমি পুরাতন ।...কতবার আসিয়াছি, তোমরা আমায় ভুলিয়া গিয়াছ, তাই আবার আসিলাম’ ” এই চিরন্তন প্রফুল্ল ১৭৭৬-১৭৮৬ সনের বঙ্গদেশ হইতে অনেক দূরে, অনেক উপরে।