পাতা:দেবী চৌধুরানী - বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/১৫২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গিীর এই বাক্যে অগ্রসর হইয় নিনা করিতে করিতে প্রতিবাসিনীর ঘরে গেল দোষ গিীর, কিন্তু নিদাটা বন্ধুরই অধিক হইল ; কেন না, বড় কেহ মুখ দেখিতে পায় । নাই। ধেড়ে মেয়ে বলিয়া সকলেই ঘৃণা প্রকাশ করিল। আবার সকলেই বলিল, “কুলীনের ঘরে অমন ঢের হয়।” তখন যে যেখানে কুলীনের ঘরে বুড় বে। দেখিয়াছে, তার গল্প করিতে লাগিল। গোবিন্দ মুখ্যা পঞ্চায় বৎসরের একটা মেয়ে বিয়ে করিয়াছিল, হরি চাটু্যা সত্তর বৎসরের এক কুমারী ঘরে আনিয়াছিলেন, মনু বাড়,যা একটি প্রাচীনার অন্তর্জলে তাহার পাণিগ্রহণ করিয়াছিলেন, এই সকল আখ্যায়িকা সালঙ্কারে পথিমধ্যে ব্যাখ্যাত হইতে লাগিল। এইরূপ আন্দোলন করিয়া ক্রমে গ্রাম ঠাগু হইল। গোলমাল মিটিয়া গেল ; গিল্পী বিরলে ব্রজেশ্বরকে ডাকিলেন। ব্ৰজ আসিয়া বলিল, “কি মা ?” গিল্পী। বাবা, এ বেী কোথা পেলে, বাবা ? ব্রজ। এ নূতন বিয়ে নয়, মা ! গিল্পী। বাবা, এ হারাধন আবার কোথায় পেলে, বাবা ? গিন্নীর চোখে জল পড়িতেছিল। o ব্রজ। মা, বিধাতা দয়া করিয়া আবার দিয়াছেন। এখন মা, তুমি বাবাকে কিছু বলিও না। নির্জনে পাইলে আমি সকলই তার সাক্ষাতে প্রকাশ করিব। গিল্পী। তোমাকে কিছু বলিতে হইবে না, বাপ, আমিই সব বলিব। বৌভাতটা হইয়া যাক্‌। তুমি কিছু ভাবিও না। এখন কাহারও কাছে কিছু বলিও না । ব্ৰজেশ্বর স্বীকৃত হইল। এ কঠিন কাজের ভার মা লইলেন। ব্রজ বাচিল। কাহাকে কিছু বলিল না। - + পাকস্পর্শ নির্বিন্ধে হইয়া গেল। বড় ঘটা পটা কিছু হইল না, কেবল জনকতক আত্মীয় স্বজন ও কুটুম্ব নিমন্ত্ৰণ করিয়া হরবল্লভ কাৰ্য্য সমাধা করিলেন। পাকম্পর্শের পর গিন্নী আসল কথাটা হরবল্লভকে ভাঙ্গিয়া বলিলেন। বলিলেন যে, “এ নূতন বিয়ে নয়—সেই বড় বউ ” - হরবল্লভ চমকিয়া উঠিল—সুপ্ত ব্যাক্সকে কে যেন বাণে বিধিল । “আঁ্যা, সেই বড় বউ— কে বল্লে ?” - -