পাতা:দেবী চৌধুরানী - বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/৫৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


έυ, ੀ চৌধুরাণী . . . এ জঙ্গলে তফাৎ কি ? সেখানেও আমাকে ডাকাইতে ধরিয়া লইয়া যাইতেছিল, এখানেও ন৷ হয় তাই করিবে ।” - - : এইরূপ মনস্থির করিয়া প্রফুল্ল গৃহ-কৰ্ম্মে প্রবৃত্ত হইল। ঘর দ্বার পরিষ্কার করিল। গোরুর সেবা করিল। শেষ, রন্ধনের উদ্যোগ। রাধিবে কি ? হাড়ি, কাঠ, চাল, দাল, সকলেরই অভাব। প্রফুল্ল একটি মোহর লইয়া হাটের সন্ধানে বাহির হইল। প্রফুল্লের যে সাহস অলৌকিক, তাহার পরিচয় অনেক দেওয়া হইয়াছে। এ জঙ্গলে হাট কোথায় ? প্রফুল্ল ভাবিল, “সন্ধান করিয়া লইব ।” জঙ্গলে পথের রেখা আছে, পূর্বেই বলিয়াছি। প্রফুল্ল সেই রেখা ধরিয়া চলিল । - wo যাইতে যাইতে নিবিড় জঙ্গলের ভিতর একটি ব্রাহ্মণের সঙ্গে সাক্ষাৎ হইল। ব্রাহ্মণের গায়ে নামাবলি, কপালে ফোট, মাথা কামান । ব্রাহ্মণ দেখিতে গৌরবর্ণ, অতিশয় সুপুরুষ, বয়স বড় বেশী নয়। ব্রাহ্মণ প্রফুল্লকে দেখিয়া কিছু বিস্মিত হইল। বলিল, “কোথা যাইবে, মা ?” - প্র । আমি হাটে যাইব । ব্রাহ্মণ। এ দিকে হাটের পথ কোথা ? প্র। তবে কোন দিকে ? ব্রা। তুমি কোথা হইতে আসিতেছ ? 炒 প্র। এই জঙ্গল হইতেই। ব্রা। এই জঙ্গলে তোমার বাস ? * প্র । হা । ব্রা। তবে তুমি হাটের পথ চেন না ? প্র । আমি নূতন আসিয়াছি। ব্রা। এ বনে কেহ ইচ্ছাপূর্বক আসে না। তুমি কেন আসিলে ? প্র । আমাকে হাটের পথ বলিয়া দিন । - ব্রা। হাট এক বেলার পথ । তুমি এক যাইতে পারিবে না। চোর ডাকাইতের বড় ভয় । তোমার আর কে আছে ? প্র। আর কেহ নাই। ব্রাহ্মণ অনেক ক্ষণ ধরিয়া প্রফুল্লের মুখপানে চাহিয়া দেখিল মনে মনে বলিল, “এ বালিকা সকল সুলক্ষণযুক্তা। ভাল, দেখা যাউক, ব্যাপারটা কি ?” প্রকাশ্বে বলিল, “তুমি