পাতা:নটীর পূজা - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৫৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।

নটীর পূজা

৪৯

দেবদত্ত ক্রূর সর্প, নরকের কীট। যখন অহিংসাব্রত নিয়েছিলেম তখনো মনে মনে তাকে প্রতিদিন দগ্ধ করেছি, বিদ্ধ করেছি। আর আজ! যে-আসনে আমার সেই পরমনির্মল জ্যোতির্ভাসিত মহাগুরুকে নিজে এনে বসিয়েছি তাঁর সেই আসনেই দেবদত্তকে ডেকে আনব!

জানু পাতিয়া

ক্ষমা করো প্রভু, ক্ষমা করো। দ্বারত্রয়েণ কৃতং সবং অপরাধং ক্ষমতু মে প্রভো।

উঠিয়া

ভয় নেই, মল্লিকা, ভিতরে উপাসিকা আছে সে ভিতরেই থাক্, বাইরে আছে নিষ্ঠুরা, আছে রাজকুলবধূ, তাকে কেউ পরাস্ত করতে পারবে না। মল্লিকা, আমার নির্জন ঘরে গিয়ে বসি গে, যখন ধুলার সমুদ্রে আমার এতকালের আরাধনার তরণী একেবারে ডুবে যাবে তখন আমাকে ডেকো।

উভয়ের প্রস্থান। ধূপ দীপ গন্ধমাল্য মঙ্গলঘট প্রভৃতি

পুজোপকরণ লইয়া রাজবাটীর একদল নারীর প্রবেশ।

পুষ্পপাত্রকে ঘিরিয়া সকলে

 বণ্ন-গন্ধ-গুণোপেতং এতং কুসুমসন্ততিং

 পূজয়ামি মুনিন্দস সিরি-পাদ-সরোরুহে।৷