পাতা:নবজাতক-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/২৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


নবজাতক শুধায়েছি এ বিশ্বের কোন কেন্দ্রস্থলে মিলিতেছে প্রতি দণ্ডে পলে অরণ্যের পর্বতের সমুদ্রের উল্লোল গজন ঝটিকার মন্দ্রস্বন, দিবস-নিশার বেদনাবীণার তারে চেতনার মিশ্রিত ঝংকার, পূর্ণ করি ঋতুর উৎসব জীবনের মরণের নিত্য কলরব, আলোকের নিঃশবদ চরণপাত নিয়ত স্পন্দিত করি ছ্যলোকের অন্তহীন রাত । কল্পনায় দেখেছিন্ন প্রতিধ্বনি মণ্ডল বিরাজে ব্ৰহ্মাণ্ডের অন্তর-কন্দর মাঝে । সেথ। বাধে বাসা চতুর্দিক হতে আসি জগতের পাখা-মেলা ভাষা । সেথা হতে পুরানো স্মৃতিরে দীর্ণ করি’ স্বষ্টির আরম্ভ বীজ লয় ভরি’ ভরি’ আপনার পক্ষপুটে ফিরে-চলা যত প্রতিধ্বনি । অনুভব করেছি তখনি বহু যুগযুগান্তের কোন এক বাণীধারী নক্ষত্রে নক্ষত্রে ঠেকি পথহারা সংহত হয়েছে অবশেষে মোর মাঝে এসে । 〉○