পাতা:নাট্য-বিকার.pdf/৪৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
৪০
নাট্য-বিকার।

বিরহ তো আর সহ্য হয় না। (সুরে)


“আগে নাহি বুঝনু,রূপ দেখি ভুলনু,
 হৃদে বৈনু চরণ-যুগল।

(কাহে সই)

যমুনা-সলিলে সই, আব তনু ডারব,
 আন সখি ভখিব গরল॥”

(কনষ্টেবলের প্রবেশ।)

 কন। এই,কেরে মাগী তুই?

 ভূতি। ওগো,আমি বৃষভানু-রাজনন্দিনী!

 কন। (স্বগতঃ) এ বেটী বলে কি? পাগল নাকি? (প্রকাশ্যে)তা এখানে কেন বাছা? যাবে কোথায়?

 ভূতি। ওগো,আমি প্রভাসযজ্ঞে শ্যাম দরশনে যাব,নন্দ মহারাজের জন্য বসে আছি।

 কন। (স্বগতঃ) বেটী বদ্ধ পাগল!(প্রকাশ্যে)তা বাছা,তোমার পুটুলীতে কি? ও হাঁড়ীতে কি?

 ভূতি। ওরে,বিনা ভেটে কি কৃষ্ণচন্দ্রের কাছে যেতে আছে? আমরা ব্রজের দুখিনী আহীরিণী,কোথায় কি পাব বল,এই ক্ষীর-সর-নবমী নিয়ে যাচ্ছি।

 কন। কৈ দেখি? (দেখিয়া স্বগতঃ) আ মলো! এতে যে কচুরী জিলিপী মোন্ডা মেঠাই! একি! সোণার গহনাও নীচে আছে! না, এর গতিক ভাল বোধ হচ্ছে না থানায় নিয়ে গিয়ে জমাদারের সঙ্গে একটা পরামর্শ করা যাক,