পাতা:নিবেদিতা - সরলাবালা দাসী.pdf/৬২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।

নিবেদিতা।

ও লজ্জায় অভিভূত হইতে হইতেছে। ভারতবর্ষের সৌভাগ্য যে নিবেদিতাকে পরমাত্মীয়ারূপে ধরিতে পাইয়াছিল। ভারতবর্ষের দুর্ভাগ্য যে নিবেদিতা যখন ইহ জগতে ছিলেন তখন তাঁহাকে আপনার বলিয়া বুঝিয়া হৃদয়ে গ্রহণ করিতে পারে নাই।

 আজ আমরা নিবেদিতাকে হারাইয়াছি, আজ তাঁহার সেই আনন্দময়ী মূর্ত্তি লোক-লোচনের সম্মুখ হইতে অন্তর্হিত হইয়াছে, আজ বোসপাড়ার বিদ্যালয় ও গৃহ শূন্য, তিনি আর সেখানে নাই। কিন্তু তপস্বিনী নিবেদিতার আজীবন সাধনার জীবন্ত জ্বলন্ত মূর্ত্তি ও তাঁহার বিদ্যালয়রূপ সাধনক্ষেত্র এখনও সমভাবেই রহিয়াছে। নিবেদিতার প্রাণপাতী তপস্যাই যাহাতে প্রাণপ্রতিষ্ঠা করিয়াছিল সেই বোসপাড়ার বিদ্যালয়টী এখনও তদ্রূপই রহিয়াছে। হে ভারতবাসী, নিবেদিতা-অভাবে তাহা কি শূন্যগর্ভে মিলাইয়া যাইবে? স্বামী বিবেকানন্দের সেই জলদগম্ভীর নির্ঘোষে আহ্বান-ধ্বনি, “জাগো জাগো মহাপ্রাণগণ, পৃথিবী দুঃখ ক্লেশে দগ্ধ হইতেছে, তোমার কি এখন নিদ্রা যাওয়া কর্ত্তব্য”—যে আহ্বানে নিবেদিতা

৫২