পাতা:নীতিকণা - নারায়ণচন্দ্র বিদ্যারত্ন.pdf/৩৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
৩১
নীতিকণা।

যখন কাহারো সনে করি আলাপন,
বাহির না হয় কভু গর্ব্বিত বচন।
অন্যের গৰ্ব্বিত বাক্য না পারি সহিতে,
তাই তাহা ত্যজিয়াছি যতন সহিতে।
অবিরল কতগুলা যেবা কথা কয়,
দেখি যে অনেক তার অনর্থক হয়।
অনেক কহিতে গেলে পাছে মিছা হয়,
হইয়াছি মিতভাষী তাই মহাশয়।
হরিলে আমার ধন ব্যথা মনে পাই,
তাই অপরের ধন চুরি করি নাই।
চারি দিকে প্রকৃতিরে করি দরশন,
এইরূপ কত জ্ঞান করে’ছি অর্জ্জন।
সামান্য কীটেও যদি করি দরশন,
তা’তেও কোন না কোন করি জ্ঞানার্জ্জন।”
কৃষকের কথা শুনি, পণ্ডিত বলিল,
কৃষক, তোমার বাক্যে জ্ঞান উপজিল।
তুমিই প্রকৃত গুণী ধন্য তব জ্ঞান,
পণ্ডিত নাহিক দেখি তোমার সমান।