পাতা:পণ্ডিত শিবনাথ শাস্ত্রীর জীবনচরিত.pdf/১২২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


SR শিবনাথ-জীবনী । করিবে শুনিলে ৪৷৫ মাইল পথ স্থাটিয়া গিয়া উপাসনায় যোগ দেওয়া আমার পক্ষে কিছু কষ্টকর ছিল না। যে সময়ে শিবনাথ এই অগ্নি পরীক্ষায় পার হইলেন, তখন তিনি ব্ৰাহ্ম সমাজে অপরিচিত। গ্রামের ব্ৰাহ্ম যুবকয়ট ভিন্ন আর কাহাকেও জানিতেন না । বাহিরের ব্ৰাহ্মদিগের মধ্যে জানিতেন। বিজয়কৃষ্ণ গোস্বামী ও অঘোরনাথ গুপ্তকে । এই সকল সংগ্রামের মধ্যে ১৮৬৬ সালে প্ৰবেশিকা পরীক্ষা দিয়া শিবনাথ অতি উচ্চস্থান অধিকার করিলেন ও বৃত্তি পাইলেন । ১৮৬৭ সালের শেষভাগে শিবনাথ মহেশ চৌধুরীর বাড়ী হইতে কলিকাতা শাকরিটোলায় জগৎচন্দ্ৰ বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ীতে উঠিয়া আসেন। ভবানীপুরে চৌধুরী মহাশয়দিগের বাড়ীতে বাস কালে জগৎচন্দ্ৰবাবুর সহিত তাহার পুত্ৰ মহিমের সুত্রে শিবনাথের আলাপ হয়। মহিমের সহিত কখন কখন এক গাড়ীতে সংস্কৃত কলেজে যাইতেন । মহিমও সংস্কৃত কলেজে পড়িতেন। মহিম শিবনাথকে দাদা বলিয়া ডাকিতেন, এবং দাদার মত ভালবাসিতেন । জগৎচন্দ্ৰবাবুও শিবনাথকে ছেলের মতই ভালবাসিতেন, মহিমের "মাও শিবনাথকে ছেলেন মত আদর যত্ন করিতেন । জগৎচন্দ্ৰ বাবুৱা কলিকাতায় উঠিয়া আসিলেন, এবং শিবনাথকে তঁহাদের সঙ্গে থাকিবার জন্য অত্যন্ত পীড়াপীড়ি করিতে লাগিলেন। শিবনাথ তঁহাদের অনুরোধ এড়াইতে পারিলেন না । কলিকাতায় তাহদের বাড়ীতে আসিলেন। শিবনাথ মহিমকে পড়াশুনা বলিয়া দিতেন। সেখানে শিবনাথের অত্যন্ত আদর ছিল, তিনি যে পর সে বাড়ীর কাহারো সে জ্ঞান ছিল না। শিবনাথ চিরদিন নারী জাতির পরম বন্ধু। সে বাড়ীতে মহিমের এক মামাতো বোন কিছুদিনের জন্য