পাতা:পণ্ডিত শিবনাথ শাস্ত্রীর জীবনচরিত.pdf/১৩৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ਠa ব্ৰাহ্মসমাজে প্ৰবেশ । এফ-এ পরীক্ষায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অতি উচ্চস্থান অধিকার করিয়া যশের মুকুট শিরে পরিয়া, শিবনাথ ১৮৬৯ সালে প্ৰবেশ করিলেন । এই বৎসরের প্রথম ভাগে তাহার ক্লাশের ছাত্ৰগণ সংস্কৃত “বেণীসংহার’ নাটক অভিনয় করিবার আয়োজন করিল। শিবনাথ চিরদিন অভিনয় দর্শন করিতে ভাল বাসিতেন । রঙ্গালয়ে সর্বদাই যাইতেন । যখন হইতে বারাঙ্গণাগণ রঙ্গালয়ের অভিনেত্রী হইল তখন হইতে শিবনাথ আর রঙ্গালয়ে পদার্পণ করেন নাই। শোভাবাজারের রাজবাড়ীতে বেণী সংহারের অভিনয় হয়। কলেজের অধ্যক্ষগণ অভিনয়ের বিরোধী ছিলেন, পরে শিবনাথের উপর সুনীতি রক্ষার ভার দিয়া অভিনয় করিতে অনুমতি দেন। শিবনাথকে এই অভিনয়ের ব্যাপারে অত্যন্ত পরিশ্রম করিতে হইয়াছিল। এই অভিনয়ের ব্যাপার লইয়া ১৮৬৯ সালের আরম্ভ আর শিবনাথের দীক্ষা ব্যাপারে। ইহার সমাধা হইল। ১৮৬৫ সালে শিবনাথের দ্বিতীয় বার বিবাহ হয় । এই বিবাহের ফলে তঁাহার জীবনের গতি একে বারে ফিরিয়া গেল। আমি নিঃসন্দেহে বলিতে পারি দ্বিতীয় বায় বিবাহ না করিলে তিনি কখনই ব্ৰাহ্মসমাজে আসিয়া পড়িতেন না । যেমন দাবানলে দগ্ধ কলেবর হইয়া মৃগ প্ৰাণভয়ে শীতল জলের পার্শ্বে গিয়া পড়ে তেমনি হৃদয়ের তীব্ৰ যাতনায় একপ্রকার ক্ষিপ্তপ্ৰায় হইয়া তিনি ভগৰানের শরণাপন্ন