পাতা:পণ্ডিত শিবনাথ শাস্ত্রীর জীবনচরিত.pdf/১৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


(2) ऊठक्ष । প্রসারিত হইয়াছিল। একদা নবদ্বীপের পণ্ডিতগণ এই গ্রামে । আসিয়া স্থানীয় পণ্ডিতদিগের সহিত উপযুপরি তিন চারি দিন শাস্ত্রীয় বিচার করিয়া। এতদূর সন্তুষ্ট হন যে মজিলপুরের নাম দ্বিতীয় নবদ্বীপ রাখেন। বাস্তবিক মজিলপুর গ্রাম একসময় সংস্কৃত চর্চার পীঠস্থান ছিল। ইংরাজি শিক্ষাই ধনবানের একমাত্র পথ হইলেও ইহারা সব চিরদিনই যিজন, যাজন, অধ্যয়ন, অধ্যাপনা লইয়া গৌরবান্বিত চিরদারিদ্র্যের মধ্যে বাস করিয়াছেন। কদাচ কেহ রাজসেবা করিতেন না। এই যে মজিলপুরের টোল চতুস্পাঠির কথা বলিলাম, ইহার মধ্যে শিবনাথের প্রতিপালক রামজয় ন্যায়ালঙ্কারের একটি টোল ছিল। তিনি শ্ৰীকৃষ্ণ উদগাতার যোগ্য বংশধর। শ্ৰীকৃষ্ণ উদগাতার বংশের ইতিহাস দিবার পূৰ্ব্বে মজিলপুরের দত্ত জমিদারদিগের সম্বন্ধে কিঞ্চিৎ বলা নিতান্ত আবশ্যক। একসময় মজিলপুর গ্রামের সমুদয় উন্নতির মূলে এই জমিদারগণ ছিলেন, ইহারাই একসময় মজিলপুরের রাজা ছিলেন, গ্রামবাসী সকলের শুভাশুভ-ভাগ্যবিধাতা ছিলেন। হঁহার কাছারি করিয়া গ্রামের সকল বিষয় নিস্পত্তি করিতেন। বাস্তবিকই জমিদারবাবুদিগের সহিত মজিলপুরের ইতিহাস গ্রথিত। মজিলপুর ত আর প্রাচীন । BDDD DDYiDDBB DBDDDD DDBD BuS STBB DBBS দিগের এদেশে আগমনের বহু পূৰ্ব্বে মজিলপুর গ্রাম প্রতিষ্ঠিত হইয়াছিল। কলিকাতার চৌরঙ্গীতে যখন একসময় বাঘ বেড়াইত, তখন মজিলপুরে যে এত বাঘের উপদ্রব ছিল—তাহা আর বিচিত্র কি ? কিন্তু কলিকাতা অপেক্ষা মজিলপুর গ্রাম যে একসময় সমৃদ্ধিসম্পন্ন, শাস্ত্রচর্চায়। মুখরিত এবং পণ্ডিতগণের