পাতা:পণ্ডিত শিবনাথ শাস্ত্রীর জীবনচরিত.pdf/১৯৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


छांश लथ1ां । NAS) এই সময় সমদৰ্শী কাগজ ছিল না। ১৮৭৮ সালের ১৭ই ফেব্রুয়ারি হইতে কুচবিহার-বিবাহের সমালোচনার জন্য মুখ্যভাবে “সমালোচক” বলিয়া এক সংবাদপত্ৰ প্ৰকাশিত হয়। শিবনাথ ইহার প্ৰথম সম্পাদক ছিলেন , পরে দ্বারকানাথ গাঙ্গুলী ইহার সম্পাদক or artí : Riots Brahmo Public Opinion (2biforv হয়, দুৰ্গামোহন দাস মহাশয্যের ভ্রাতা ভুবনমোহন দাস মহাশয় তার সম্পাদক ছিলেন। কুচবিহার বিবাহেব কথা লইয়া ব্ৰাহ্মসমাজে তুমুল ঝড় আরম্ভ হইল। সমুদয় ব্ৰাহ্মসমাজ তোলপাড় হইয়া দুই ভাগ হইয়া গেল। সাধারণ ব্ৰাহ্মসমাজের জন্মের কথা বলিবার পূৰ্ব্বে, তার অব্যবহিত পূৰ্ব্বে যে সকল ঘটনা ঘটিয়াছিল, সে বিষয় কিছু কিছু বলিতেছি। যখন চারিদিকেই কলরব প্ৰতিবাদ, উত্তেজনা, সমালোচনা চলিতেছে ; কে কি করে, কে DB DB DDBD DB DDSuB DBDBDBD DBBg DDB ধীর স্তির ভাবে কাৰ্য্য করিবার জন্য ভার দেওয়া স্থির হইল । সেইজন্য ব্ৰাহ্মসমাজ কমিটি নামে এক সভা হইল। এই সভা করিবােব জন্য প্রতিবাদকারীগণ কেশববাবুর নিকট হইতে আলবার্ট তল চাহিয়া লইলেন। কেশববাবু তার সম্পাদক ছিলেন, এই সম্বন্ধে শিবনাথের ডায়েরি হইতে উদ্ধত করি । ২৩শে ফেব্রুয়ারি । শনিবার “অন্ত প্ৰাতে উঠিয়া অপরাপর কাৰ্য্যের পর আলবাট হলে গেলাম। সেখানে বাবু রামচন্দ্ৰ সিংহকে কেশববাবুর অনুমতি পত্র দেখাইলাম। কেশববাবু। ১৫ই তারিখে উক্ত গাত্রে আমাদিগকে সভা করিবার জন্য অনুমতি দেন । * * * * পরে বাসায় আসিয়া আহারাদির পর আলবার্ট হলে চেয়ার