পাতা:পণ্ডিত শিবনাথ শাস্ত্রীর জীবনচরিত.pdf/২৭২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


SS eiBqSDD BLBLBBB BD BBD DDD DDBDDDS থাকিও ” শিবনাথ এই কৰ্ত্তব্য সম্পাদনা করিতে আজীবন প্ৰাণপণ চেষ্টা করিয়াছেন। শিবনাথ যতদিন জীবিত ছিলেন প্ৰতিদিন প্ৰাতে উঠিয়া --বন্ধু নবীনচন্দ্রের নাম করিতে কখন ভোলেন নাই। তঁর শুরু কীৰ্ত্তনের ভিতর নবীনচন্দ্রের নাম আছে। নবীনচন্দ্রের পুত্ৰ কন্যাকে নিজের সস্তানের মত ভাল বাসিতেন। নবীনবাবুও শিবনাথের পরিবার পরিজনকে বিশেষতঃ-হেমলতাকে অত্যন্ত ভালবাসিতেন। নবীনচন্দ্রের জোষ্ঠী কন্যার নাম হেমন্তকুমারী, তিনি ব্রাহ্মসমাজে বিশেষ পরিচিত এবং শ্ৰীযুক্ত রাজচন্দ্ৰ চৌধুরীর সহধৰ্ম্মিনী। শিবনাথ হেমন্তকুমাবীকে অত্যন্ত ভাল বাসিতেন, তেমনি নবীনচন্দ্ৰও হেমলতাকে ভালবাসিতেন। হেমলতা ও হেমন্তকুমারী বেথুন স্কুলে একত্ৰ পড়িতেন। তঁদের ভিতব শৈশবের অচ্ছেদ্য বন্ধুত্ব স্থাপিত হইল। দুইজনেই পিতৃভক্ত, দুইজনেই সৰ্ব্বদা আপন আপনি পিতার গল্প লইয়া থাকিতেন। নবীনচন্দ্র ছিলেন। অতি গম্ভীর প্রকৃতির মানুষ, তার ভালবাসা আদর মুখের কথায় কখন প্ৰকাশ পাইত না । তঁকে দেখিবা মাত্ৰ লোকের মনে সম্রামের উদয় হইত। শিবনাথ ছিলেন সরল প্ৰেমিক অমায়িক, তার আদর করা স্বভাব ছিল। মেয়েদের বড় আদর করিতেন। হেমন্তকে শিবনাথ যত আদর করিতেন নবীনচন্দ্ৰ তত আদর মুখে করিতেন না। অথচ হেমন্তকুমারী “বাবা” বলিতে আত্মহারা हरेंडन। निद्रांठछे ऊँीन भूथ “क्षांशांद्र बांया'। dकनि जानि णिांन, “ट्रवेि धाऊ शांश यांब श्ब्र cकंन? चांशांद्र बांबांब्र মত তােমার বাৰা ত ফাই তােমাকে তেমন জার করুন না ?”