পাতা:পণ্ডিত শিবনাথ শাস্ত্রীর জীবনচরিত.pdf/৩৮০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


"මාළු8 শিবনাথ-জীবনী । যেন অসীম। বৈরাগ্য ও নিঃস্বাৰ্থ পরসেবা দেখিতে ভাল লাগে তার কথা শুনিতে ভাল লাগে, তাহা চিন্তা করিতে ভাল লাগে, তাহা পাইতে ভাল লাগে।” নিজের জীবনের লক্ষ্য কি স্মরণ করিয়া লিখিতেছেন, “আমার জীবনের লক্ষ্য বঙ্গীয় যুবক যুবতীর মনে নৈতিক বল, ধৰ্ম্মানুরাগ উদ্দীপ্ত করিয়া যাওয়া । বিধাতা সেই দিকেই আমাকে লইয়া আসিয়াছেন। আমার বক্তৃতা, আমার গ্রন্থাবলী, আমার কবিতা সকলেরই এই দিকে গতি । আমি অনেকবার আপনার মনে মনে এইরূপ প্রশ্ন করিয়াছি, “আচ্ছা যদি আমার প্রণতি সমুদায় গ্ৰন্থ পুড়িয়া যায় এবং আমার নাম গন্ধ না থাকে তাতে আমি দুঃখিত হই কি না । আমি মনকে বেশ পরীক্ষা করিয়া দেখিয়াছি, তাতে আমার দুঃখ হয় না, কারণ আমি যে পরিমাণে জাতীয় জীবনে নৈতিক বলের সঞ্চার করিতে পারিয়াছি সেই টুকু আমি আমার নাম থাকুক না থাকুক, সেই পরিমাণে আমার জীবন সার্থক হইয়াছে।” শিবনাথের হৃদয়ের নিগুঢ় প্রেম হইতেই তার ধৰ্ম্মাকাঙ্ক্ষা ও ধৰ্ম্মজীবনের উৎপত্তি। তিনি ব্ৰাহ্মসমাজের বেদী হইতে যে সকল অমূল্য উপদেশ দিয়াছেন তাহ “ধৰ্ম্ম জীবন” নামক গ্রন্থে সঙ্কলিত হইয়াছে। এমন ধৰ্ম্মোপদেশ কেহ কখন শোনে নাই। এই উপদেশগুলি পাঠ করিলেই শিবনাথের ধৰ্ম্ম জীবনের আদর্শ কি ছিল তাহ পাঠক বুঝিবেন। সেই আদর্শ যে কত উচ্চ ছিল তাহা অনুভব করিয়া দেখিতে হয়। তবে এই উপদেশগুলির বিশেষত্ব এই যে, ইহা কল্পনার রথে চড়িয়া স্বৰ্গরাজ্য দেখা নয়, BD DDD BB BDDBB DBD BDEDL DDYiB BD