পাতা:পণ্ডিত শিবনাথ শাস্ত্রীর জীবনচরিত.pdf/৪৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বলে-“পণ্ডিতমশাই, আপনার কোন চেনা দোকান হতে বইগুলি । আনিয়া দেবেন, আমরা টাকাটা পরে দেব।” হরানন্দ তীর এক | দিলেন। তারা আজ কাল করিয়া ১০৩টা টাকা দিল না, ক্ৰমে । হরানন্দও তাগাদা করিতে ভুলিয়া গেলেন। আর বইএর দশ টাকার কথা তার মনে রহিল না। বৃদ্ধ বয়সে ঋণের চিন্তা করিতে করিতে । હરે দোকানে ১০২ টাকা ঋণের কথা মনে পড়িল। শিবনাথের । তাহাকে দিতে বলিলেন। অনেক অনুসন্ধানের পর শিবনাথ পুস্তক বিক্রেতার পুত্রকে এই ১০৩টা টাকা দিয়া রসিদ খানি হরানন্দকে পাঠাইয়া দেন। . . : আবার ঋণের চিন্তা করিতে করিতে তার মনে পড়িল-ছাত্ৰা- . বস্থাতে ভবানীপুরে এক কাপড়ের দোঝান হতে ৫২ টাকার । কাপড় ধারে লইয়াছিলেন, সে টাকা দেওয়া হয় নাই। আবার | শিবনাথের উপর হুকুম আসিল, অমুক স্থানে অমুকের দোকানে । ৫২ টাকা দিয়ে এস। এবারে আর দােকান বা দােকানদার কিছুরই সন্ধান মিলিল না। শিবনাথ অগত্যা ৫২ টাকার কাপড় । গরীব র দিয়া। তবে প্ৰাণে শান্তি পাইলেন। । একটী ঘটনা বহু পূৰ্ব্বে ঘটয়াছিল, এখানে তাহার উল্লেখ করি - 1; তখন হরানন্দ স্বগ্রামে গবৰ্ণমেণ্ট বিদ্যালয়ে কৰ্ম্ম করেন। একবার | মাহিনীর বিল ইনসপেক্টরের স্বাক্ষর করাইয়া ভাঙ্গাইবার জন্য ।