পাতা:পণ্ডিত শিবনাথ শাস্ত্রীর জীবনচরিত.pdf/৬৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


88 শিবনাথ-জীবনী । সৌম্যশান্ত মূৰ্ত্তিতে, সকলের শ্রদ্ধা অর্জন করিয়া, সরস হাস্য কৌতুক ও পরিহাস রসিকতায় শোকাতুরের মুখে হাসি ফুটাইয়া ৮৫ বৎসর বয়সে সাধনোচিত ধামে চলিয়া গেলেন, সে সংবাদ কেইবা রাখিল আর কেইবা লইল ; আর সে তুলনায় বিদ্যাসাগর মহাশয়েয় নাম, পাঠক নিজেই তার তুলনা করুণ। তাই বলিতেছি নিয়তিই সৰ্বমূলাধার! নলোপ্যখ্যান ব্যতীত বাল্মীকি রামায়ণের আদিকাগুটী পণ্ডিত করানন্দ অনুদিত করিযাছিলেন । সে অনুবাদও সুন্দর হইয়াছিল। কিন্তু তঁাহাব সাহিত্যপ্রতিভা এইখানেই শেষ হইল। ক্ষুদ্র মজিলপুরটুকুতে বসিয়া পেনসেনের কটী গোণা টাকা লইয়া হিন্দুসমাজচ্যুত একমাত্র কৃতীপুত্রের আশায় জলাঞ্জলি দিয়া তিনি তাসিমুখে সজ্ঞানে গঙ্গালাভ করিতে পারিয়াছেন এইটুকুই তঁহার পুণ্যফল।” স্বগ্রামবাসী গুণগ্ৰাহী লেখকের প্রত্যেকটা কথা সত্য ! হৃদয়ের বিশালতায় শিবনাথের সমকক্ষ ব্যক্তি সহজে দেখা যায় না । সত্যনিষ্ঠা, জ্ঞানানুরাগ, পবোপকারস্পৃহা, স্বজন বাৎসল্যা, স্বদেশ প্রেম প্রভৃতি যে সকল গুণ শিবনাথের চরিত্রে প্রচুর পরিমাণে বিদ্যমান DSSYD S DDD BuBD DDBBDB DBBD DBBBS BBuBB DDD হইতে লাভ করিয়াছিলেন। মিষ্টভাষিতা, কৰ্ম্মনিষ্ঠা, কৰ্ম্মশক্তি, ধৰ্ম্মানুরাগ ইত্যাদি। তিনি মনস্বিণী জননী গোলোকমণির নিকট হইতে প্রাপ্ত হন। সন্তানের ভিতরে পিতামাতা আবার সন্তত হন, একথা সত্য। মানুষ মাত্রেই বিবিধ দোষ গুণের আধার। যে চরিত্রে দোষ অপেক্ষা গুণ অধিক হয, সেই মানুষকেই লোকে গুণী বলে। ভগবানের রূপায় শিবনাথের চরিত্রে জনক জননীর সদগুণ রাশি সমুদায় বৰ্ত্তিয়া ছিল, বরং প্ৰত্যেকটি সদগুণ শিবনাথের হৃদয়াধারে