পাতা:পণ্ডিত শিবনাথ শাস্ত্রীর জীবনচরিত.pdf/৮৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বাল্যকালে অতি সহজেই তাহাকে মিষ্ট কথায় ভুলান যাইত। ' আদর করিয়া কেহ ডাকিলে গলিয়া যাইতেন, আল্পায়াসে লোকে তাহার দ্বারা কাৰ্য্য করাইয়া লাইত। তার এক খোড়া জাটতুতো বোন কি করিয়া আদর করিয়া তাকে ডাকিয়া তার খাবারগুলি খাইয়া তার পর মারিয়া তাড়াইয়া দিত। সেকথা আত্মচরিতে BBBDDDBDS BBDD BD SKB u BDDD DBDBD SB BD সুন্দর ছেলে বলে ডাকিত । খাবার শেষ হইলে সে যে মারিবে: তাহা জানিয়াও আদর করিয়া ডাকিলেই না গিয়া থাকিতে পারিতেন না । তিনি আত্মচরিতে বলিয়াছেন যে “চিরদিনই আমি প্ৰশংসাপ্রিয় মানুষ’ । মানুষমাত্ৰেই প্ৰশংসা প্ৰিয়-বিশেষতঃ শিশু-আর শিবনাথ মিষ্টকথার বশ চিরদিনই ছিলেন । শিবনাথের চরিত্রের আর এক বিশেষত্ব-নারীজাতির প্রতি হৃদয়ের টান-আশৈশব তীহার এই প্ৰকৃতি । বাল্যকালে খেলার সঙ্গিনীকে এত ভালবাসিতেন, যে খেলার সময় তাকে দলে না। পাইলে অস্থির চাইতেন । স্কুল হইতে বাড়ী আসিবার সময় তাহাকে দেখিয়া তাহার সহিত খেলিয়া আসিতেন । উন্মাদিনী নামী ছোট বোনটাকে এত ভালবাসিতেন, যে সচরাচর কোন ভাই বোনকে এত ভালবাসে না । ঠাকুরমার মুখে উন্মাদিনী শিবনাথকে কিরূপ ভালবাসিতেন তাহা শুনিয়া মনে হয়, যেন এসব উপন্যাসের গল্প। উন্মাদিনী শিবনাথের বোন, তার চেয়ে ছয় বৎসরের ছোট । উন্মাদিনী দেখিতে বড় সুন্দরী ছিল বলিয়া, পিতা আদর করিয়া মেয়েকে উন্মাদিনী বলিয়া ডাকিতেন । শিবনাথ এই ছোট