পাতা:পণ্ডিত শিবনাথ শাস্ত্রীর জীবনচরিত.pdf/৮৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


তৃতীয় অধ্যায়। ؟N9 যৌবনের প্রারম্ভ হইতে শিবনাথ কবি বলিয়া পরিচিত । শৈশবে কবিত্বের লক্ষণস্বরূপ অত্যন্ত কল্পনা প্রিয়তা ছিল--নানা কল্পনা মনে স্থান পাইত । উন্মাদিনীকে মন হইতে বানাইয়া বানাইয়া নানা গল্প বলিতেন । বোধহয় ১০/১২ বৎসর বয়স হইতেই তিনি কবিতা লিখিতেন । ছোটবেলাকার খাতা ঠাকুরমার কাছে ছিল, দেখিয়াছি তাহাতে কাচা হাতের লেখার অনেক ছোট ছোট কবিতা লেখা আছে। তাহার মধ্যে একটি ফুলের টবের উপর কবিতা ছিল, তাহার দুই এক লাইন এখনও NGI WCE 3 “টব রূপ সিংহাসন করি আরোহন” ইত্যাদি । স্কুলে যখন পড়েন তখন ক্লাসের বন্ধু গঙ্গাধরের নামে লিখিয়াছিলেন - ইজার চাপকন গুয়, ইস্কুলেতে আসে যায় নাম তার গঙ্গাধব হাতী, বড় তার অহংকার, ধরা দেখে সরকার চলে যেন নবাবেব নাতী । বেচারা গঙ্গাধর মোটা ছিল বলিয়া একেবারে হাতী নাম রাখিয়াছিল। যে কবিত্বশক্তি লইয়া জন্মগ্রহণ করে, বালোই DB S S S BDS S KL SS DDS SSBBLBBDS DBDD SBBDD গিয়াছিল। সাধু উমেশচন্দ্র দত্তের ভ্রাতা দীননাথ দত্ত মহাশয় শিবনাথের সঙ্গে বাঙ্গাল স্কুলে কথামালার: শ্রেণীতে পড়িতেন, তিনি বলেন যে “শিবনাথ বাল্যকালে বড় আমোদ প্রিয় ছিলেন, একটা আমোদ কয়বার কিছু পেলেই ছুটে যেতেন। একবার বাড়ীর একটা চোর বিড়ালকে থলেতে পুরিয়া সকলের সঙ্গে নাচিতে