পাতা:পলাতকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/১৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চিরদিনের দাগ তাহে বাড়ায় অপরাধের ভার। অবশেষে বর্ম থেকে পাত্র গেল জুটি । অল্পদিনের ছুটি s শুভকর্ম সেরে তাড়াতাড়ি মেয়েটিরে সঙ্গে নিয়ে রেঙ্গুনে তার দিতে হবে পাড়ি। শৈলকে যেই বলতে গেলেম হেসে ‘বুড়ে বরকে হেলা করে নবীনকে ভাই, বরণ করলি শেষে ? অমনি যে তার তু চোখ গেল ভেসে ঝরঝরিয়ে চোখের জলে। আমি বলি, ‘ছি ছি, কেন শৈল, কঁাদিস মিছিমিছি— করিস অমঙ্গল |’ বলতে গিয়ে চক্ষে আমার রাখতে নারি জল । বাজল বিয়ের বাশি, অনাদরের ঘর ছেড়ে হায় বিদায় হল তুষ্ট সর্বনাশী। যাবার বেলা বলে গেল, ‘দাদা, তোমার রইল নিমন্ত্রণ— তিন-সত্যি— যেয়ে যেয়ো ! ‘যাব, যাব, যাব বৈকি বোন ! আর কিছু না ব’লে আশীর্বাদের মোতির মালা পরিয়ে দিলেম গলে । চতুর্থ দিন প্রাতে খবর এল, ইরাবতীর সাগর-মোহানাতে చి