পাতা:পলাতকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/৩৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পলাতক একটুমাত্র জবাব করা ছাড়ল একেবারে। প্রথম যখন ইস্কুলেতে প্রাইজ পেল এর ক্লাসে সবার সেরা, অপূর্ব আর পূর্ণ এল শূন্ত হাতে বাড়ি। প্রমাদ গণি দীর্ঘনিশাস ছাড়ি মা ডেকে কয় কানাই-বলাইয়েরে,— ‘ওরে বাছা, ওদের হাতেই দে রে তোদের প্রাইজ দুটি । তার পরে যা ছুটি খেলা করতে চৌধুরীদের ঘরে । সন্ধ্যা হলে পরে অাসিস ফিরে, প্রাইজ পেলি কেউ যেন না শোনে।’ এই ব’লে মা নিয়ে ঘরের কোণে তুটি আসন পেতে আপন হাতের খইয়ের মোওয়া দিল তাদের খেতে । এমনি করে অপমানের তলে তুঃখদহন বহন ক’রে দুটি ভাইয়ে মানুষ হয়ে চলে । এই জীবনের ভার যত হাল্কা হতে পারে করলে এর চূড়ান্ত তাহার । সবার চেয়ে ব্যথা এদের মায়ের অসম্মান— আগুন তারই শিখার সমান ७२