পাতা:পলাতকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/৩৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মান্ধের সম্মান মনের মতো বাড়ি দেখে দুই ভাইয়েতে মাকে নিয়ে তীর্থে এল রেখে । বছর-খামেক না পেরতেই শ্রাবণ মাসের শেষে হঠাৎ কখন মা ফিরলেন দেশে । বাড়িসুদ্ধ অবাক সবাই ; মা বললেন, “তোরা আমার ছেলে তোদের এমন বুদ্ধি হল, অপূর্বকে পুরতে দিবি জেলে ? কানাই বললে, “তোমার ছেলে ব’লেই তোমার অপমানের জ্বালা মনের মধ্যে নিত্য আছে জ্বলেই । মিথ্যে চুরির দাগ দিয়ে সবার চোখের পরে আমার মাকে ঘরের বাহির করে সেই কথাটা এ জীবনে ভুলি যদি তবে মহাপাতক হবে।’ মা বললেন, "ভুলবি কেন ? মনে যদি থাকে তাহার তাপ তা হলে কি তেমন ভীষণ অপমানের চাপ চাপানো যায় আর-কাহারও পরে বাইরে কিম্ব ঘরে ? মনে কি নেই সেদিন যখন দেউড়ি দিয়ে বেরিয়ে এলেম তোদের দুটি সঙ্গে নিয়ে তখন আমার মনে হল, আমি যদি স্বল্পমাত্র হই, জেগে দেখি আমি যদি কোথাও কিছুই নই—

  • ○。