পাতা:পলাতকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/৩৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পলাতকা অপ্রসন্নমুখে। বললে, হেথায় নিজে এসে মাসি তোমার পড়ন পায়ে ধরে, দেখব তখন বিবেচনা ক’রে।’ মা বললেন, “তোরা বলিস কী এ ! একটা দুঃখ দূর করতে গিয়ে আরেক দুঃখে বিদ্ধ করবি মর্ম ! এই কি তোদের ধর্ম ? এত বলি বাহির হয়ে চলেন তাড়াতাড়ি । তারা বলে, যাচ্ছ কোথায় ? মা বললেন, "অপূৰ্বদের বাড়ি। দুঃখে তাদের বক্ষ আমার ফাটে, রইব আমি তাদের ঘরে যতদিন না বিপদ তাদের কাটে । ‘রোসো রোসো, থামো থামো, করছ এ কী ! আচ্ছা, ভেবে দেখি । তোমার ইচ্ছ। যবে আচ্ছা নাহয় যা বলছ তাই হবে।’ আর কি থামেন তিনি ? গেলেন একাকিনী অপূৰ্বদের ঘরে তাদের মাসি। ছিল না আর দোবে চোবে, ছিল না চাপরাসি ; প্রণাম করল লুটিয়ে পায়ে বিপিনের মা, পুরোনো সেই দাসী । \ՀԵ