পাতা:পলাতকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/৪৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


নিষ্কৃতি দরদ কোথায় বাজে সেটা অন্তর্যামী জানেন ভগবান । বাপ একটু হাসল কেবল, ভাবলে, ‘মেয়েমানুষ হৃদয়তাপের-ভাপে-ভরা ফানুষ । জীবন একটা কঠিন সাধন, নেই সে ওদের জ্ঞান ।” এই বলে ফের চলল পড়া ইংরেজি সেই প্রেমের উপাখ্যান। তুখের তাপে জ্ব’লে জ’লে অবশেষে নিবল মায়ের তাপ ; সংসারেতে এক পড়লেন বাপ । বড়ো ছেলে বাস করে তার স্ত্রীপুত্রদের সাথে বিদেশে পাটনাতে । দুই মেয়ে তার কেউ থাকে না কাছে, শ্বশুরবাড়ি আছে। একটি থাকে ফরিদপুরে, আরেক মেয়ে থাকে আরো দূরে মাদ্রাজে কোন বিন্ধ্যগিরির পার । পড়ল মঞ্জুলিকার পরে বাপের সেবা-ভার। রাধুনে ব্রাহ্মণের হাতে খেতে করেন ঘৃণা ; স্ত্রীর রান্না বিনা অন্নপানে হত না তার রুচি— সকাল বেলায় ভাতের পাল, সন্ধ্যা বেলায় রুটি কিম্বা লুচি, ভাতের সঙ্গে মাছের ঘটা, 8 (?