পাতা:পলাতকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/৪৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পলাতকা চোখের পাতা কেন কিসের ভারে জড়িয়ে আসে যেন ! ভয়ে মরে বিরহিণী শুনতে যেন পাবে কেহ রক্তে যে তার বাজে রিনিরিনি পদ্মপাতায় শিশির যেন, মনখানি তার বুকে দিবারাত্রি টলছে কেন এমনতরো ধরা-পড়ার মুখে ! ব্যামে। সেরে আসছে ক্রমে, গাটের ব্যথা অনেক এল কমে । রোগী শয্যা ছেড়ে একটু এখন চলে হাত পা নেড়ে । এমন সময় সন্ধ্যাবেলা হাওয়ায় যখন যুর্থীবনের পরানখানি মেলা, তাধার যখন চাদের সঙ্গে কথা বলতে যেয়ে চুপ করে শেষ তাকিয়ে থাকে চেয়ে, তখন পুলিন রোগীসেবার পরামর্শ-ছলে মঞ্জুলীরে পাশের ঘরে ডেকে বলে— ‘জানে। তুমি তোমার মায়ের সাধ ছিল এই চিতে মোদের দোহার বিয়ে দিতে । সে ইচ্ছাটি তারি পুরাতে চাই যেমন করেই পারি। এমন করে আর কেন দিন কাটাই মিছিমিছি ?” 8bア