পাতা:পলাতকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/৭৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কালো মেয়ে হঠাৎ আমার চোখ পড়ে যায় উপরেতে— মরচে-পড়া গরাদে ঐ, ভাঙা জানলাখানি, বসে আছে পাশের বাড়ির কালো মেয়ে নন্দরানী । মনে হয় যে, রোদের পরে বৃষ্টিভরা থমকে-যাওয়া মেঘে ক্লাস্ত পরান জুড়িয়ে গেল কালো পরশ লেগে । আমি যে ওর হৃদয়খানি চোখের পরে স্পষ্ট দেখি আঁক।– ও যেন জুইফুলের বাগান সন্ধ্যাছায়ায় ঢাকা ; একটুখানি চাদের রেখা কৃষ্ণপক্ষে স্তব্ধ নিশীথরাতে কালো জলের গহন কিনারাতে ; লাজুক ভীরু ঝর্নাখানি ঝিরি ঝিরি কালে পাথর বেয়ে বেয়ে লুকিয়ে ঝরে ধীরে ধীরি ; রাত-জাগা এক পাখি মৃত্ন করুণ কাকুতি তার তারার মাঝে মিলায় থাকি থাকি ; ও যেন কোন ভোরের স্বপন কান্না ভরা ঘন ঘুমের নীলাঞ্চলের বাধন দিয়ে ধরা । রাখাল ছেলের সঙ্গে বসে বটের ছায়ে ছেলেবেলায় বাশের বাশি বাজিয়েছিলেম গায়ে । সেই বাশিটির টান ছুটির দিনে হঠাং কেমন আকুল করল প্রাণ ; আমি ছাড়া সকল ছেলেই গেছে যে যার দেশে ; একলা থাকি মেস’এ । ༥༽ ཤི