পাতা:পাষাণের কথা.djvu/১৭৪

উইকিসংকলন থেকে
Jump to navigation Jump to search
এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
পাষাণের কথা
 

হইলাম। তাহার পর বহুকাল যাবৎ আলোক, জগত বা মানব দেখি নাই।

 সময় অতিবাহিত হইতেছিল, কত? তাহা কে নিরূপণ করিবে? এই সুদীর্ঘকালমধ্যে কখনও আলোক দেখিতে পাই নাই, কখনও মানবের মুখ দর্শন করি নাই। মন্দিরের ভগ্নাবশেষ যে পাষাণ স্তূপে পরিণত হইয়াছিল, তাহার উপরিভাগের পাষাণখণ্ডগুলি আমাদিগকে বলিয়া দিত যে যবনগণ কর্ত্তৃক পরাজিত হইয়া বর্ব্বরজাতি সমতলভূমি পরিত্যাগ করিয়া পর্ব্বতে আশ্রয় গ্রহণ করিয়াছে। বাস্তবিক কোশলের সমগ্র সমতলভূমি পুনরায় অরণ্যে পরিণত হইয়াছে, পর্ব্বতবাসী বর্ব্বর জাতি ধীরে ধীরে সভ্যতার সংস্পর্শের অভাবে অসভ্য হইয়া যাইতেছে, পূর্ব্ব সংস্কারের প্রভাব তখনও তাহাদিগের মন হইতে দূরীভূত হয় নাই বলিয়া তখনও তাহারা সময়ে সময়ে সপুত্রকলত্র নিবিড় বন ভেদ করিয়া মন্দিরের ভগ্নাবশেষ অর্চ্চনা করিতে আসিত। কাহার মন্দির, কে উপাস্য দেবতা? তাহা তাহারা বিস্মৃত হইয়া গিয়াছিল। এই মাত্র তাহাদিগের স্মরণ ছিল যে, অতি প্রাচীনকাল হইতে এই ভগ্ন পাষাণের স্তূপ তাহাদিগের পূর্বপুরুষদিগের উপাসনার স্থান, সেই জন্যই তাহারা শ্বাপদসঙ্কুল অরণ্যের অশেষ বিপদজনক পথ অতিক্রম করিয়া জনশূন্য, দেবশূন্য মন্দিরের ভগ্নাবশেষ উপাসনা করিতে আসিত। সময়ে সময়ে তাহাদিগের গ্রামবৃদ্ধগণ সন্ধ্যায় গৃহদ্বারে বসিয়া বালক ও যুবকগণকে মন্দিরের পূর্ব্ব সমৃদ্ধি ও তাহাদিগের অতীত গৌরবের কথা উপাখ্যানের ন্যায় বিবৃত করিতেন; মঠবাসী সন্ন্যাসিগণের আশ্চর্য্য বিদ্যাবত্তা, অপরিসীম করুণা ও অত্যাশ্চর্য্য রাজনীতি-কুশলতার কথা বলিয়া গ্রাম্য যুবকদিগকে আশ্চর্য্যাম্বিত করিয়া দিতেন। আখ্যায়িকা শ্রবণ করিয়া তাহারা যখন

১৬২