পাতা:পুনর্জন্ম - দ্বিজেন্দ্রলাল রায়.pdf/২৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

পুনর্জন্ম । २१ সৌদামিনী। আমি বিরহিণী কামিনী একাকিনী থাকতে পাৰ্ব্ব না। অশ্বিনী। দরকার কি ? মোহিনী মায়াবিনী ! তোমার অশ্বিনী ননান বেঁচে থাকৃতে তোমার কোন ভাবনা নেই। যাদব। অশ্বিনী ! তোমার এই কাজ ! সৌদামিনী। আমার সম্প্রতি পতিবিয়োগে— অশ্বিনী। আমারও স্ত্রীবিয়োগে— সৌদামিনী । মনের অবস্থা— অশ্বিনী । অত্যস্ত— যাদব। খারাপ ! তা ত বুঝেছি কিন্তু তাই বলে’— অশ্বিনী। যাও, এখন তুমি ভিতরে যাও! আমি বিবাহের আয়োজন কারগে যাই । সৌদামিনীর প্রস্থান ) যাদব । কি রকম ! বিয়ে আর শ্রাদ্ধ এক সঙ্গেই ! তাই বা কৈ ৷ শ্ৰাদ্ধ কর্তেই বা তর সৈল কৈ। হা জগদীশ । [ বসিয়া পড়িলেন। } অশ্বিনী। লাঠিগাছটা ? এই যে [ যষ্টি গ্রহণ ] যাদব । লাঠি কেন ? অশ্বিনী। স্ত্রী বশ কর্বার আয়োজনটা আগে থেকেই ঠিক করে’ রাখি। ৫০০০ টাকার গহন । দশ হাজার টাকা ত যাদবের স্ত্রীরই আছে। তাতে যদি— ঘাড় নাড়িলেন ] তা—একরকম হবে । যাদব। অশ্বিনী! দেখ তুমি আমার ভগ্নীপতি—উকীল—তুমি— এত নীচ হবে না, যে আমি বেঁচে থাকৃতেই আমার স্ত্রীকে বিবাহ কৰ্ব্বে । অশ্বিনী। নীচ কি রকম! বিধবাবিবাহে আমার কোনই আপত্তি নাই। योलक् । किखु उनि आोभोच्न झैं । অশ্বিনী। উনি নিজেই স্বীকার করেন না। তা কি হবে। স্বাদৰ। দয়াময় কাধিতে লাগিলেন ।