পাতা:পুষ্পমালা (৫ম সং) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/১২৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

R 83 পুষ্পমালা। এই যে-এই যে,-হা হা পেয়েছি ! পেয়েছি প্ৰাণ সখি ! এইবার ধরেছি। ধরেছি। ” বলি বালা শূন্যে করে গাঢ় আলিঙ্গন ; আবার কঁাদিয়া বলে,-কোথা প্ৰাণধন ! দেখিতে দেখিতে অশ্রু বারিল আমার , বুঝিলাম উন্মাদিনী । নিকটে তাহার গিয়া দেখি পুনরায় স্তম্ভতের প্রায় দাড়াইয়া এক দৃষ্টে । জিজ্ঞানি, সুন্দরি । কে তুমি একাকী হেথা বন আলো করি ? কারে চাওঁ ? কার তরে কান্দলো লালনে । কার তরে ভিকারিণী এ নব যৌবনে p শূন্য শূন্য দৃষ্ট্রে বালা চাহি মুখ পানে, বলে-তুমি কেহে বন্ধু ! প্ৰাণ-সাখা সনে হয়েছে কি পরিচয় ?-”শুনি বরাননে । কে তোমার প্রাণ-সখা ?”-অমনি কঁাদিল ; অমনি বিশাল আখি, শোকেতে মুদিল ? *ওৱে আমি কিসে দিব তার পরিচয়, জানিনা ত নাম ধাম ; কেৰল হৃদয় চায় ভঁারে এই জানি।” শুনলো সরালে ! DDK BB DBtD DBDB DBDS DBBL DDBB SS , “ওই যে-ওই যে-হা হা ! এস প্ৰাণেশ্বর ! হাসিতে ছ কি ভাৰিয়া ? কে বলে দুস্তর সিন্ধু তুই, নিশা তুই কে বলে অসাধার। ঐ দেখ রূপ রাশি কৰিয়া বিস্তার,