পাতা:প্রবাসী (ঊনত্রিংশ ভাগ, দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/৩১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


“) о ASA SSASAS SSAS SSAS SSAS SSAS SSAS SSAS SSAS SSASAS SSAS SSAS SSAS SSAS SSASAS AAA AAAAS AAAAA AAAA S গিয়া জমশেদকে জানাইল, “আমাদের প্রভু মারা যাওয়ায় আমাদের অন্ন জুটিতেছে না ; তোমার চাকরিতে আমাদের লঙ ” সেও তাহাদের ভৰ্ত্তি করিয়া দুর্গের মধ্যে हांन निल । त्रांब्र, डांशंब्रां फूझे भिन *८ब्र छभ८चनाक बनौ করিয়৷ বিজাপুরের ফটক খুলিয়া দিয়া সিদ্ধি মামুদকে ভিতরে আনিল। মাস্বদ উজীর হইলেন (২১ ফেব্রুয়ারি)। শিবাজী এই চরম লাভের আশায় বিফল হইয়া পশ্চিমদিকে বঁাকিয় নিজদেশে পনহালায় প্রবেশ করিলেন ( বোধ হয় ৪ঠা এপ্রিল, ১৬৭৮) । শিবাজী কর্ণাটক-অভিযানে যে পনের মাস নিজদেশ হইতে অনুপস্থিত ছিলেন সেই সময় তাহার সৈন্তগণ গোয়৷ ও দামনের অধীন পোতুগীজদের মহাল আক্রমণ করে, কিন্তু ইহাতে কোনই ফল হয় নাই ! স্বরত এবং নাসিক জেলায় পেশোয়। এবং পশ্চিম-কানাড়ায় দত্তাজী কিছুদিন ধরিয়া লুঠ করেন, কিন্তু ইহাতে দেশজয় হয় নাই। ' ১৬৭৮ সালের এপ্রিলের প্রথমভাগে দেশে ফিরিয়া শিবাজী কোপল অঞ্চল—অর্থাৎ বিজয়নগর শহরের উত্তরে তুঙ্গভঙ্গা নদীর অপর তীর—এবং তাহার পশ্চিমে গদগ মহাল জয় করিতে সৈন্ত পাঠাইলেন। হুসেন খ এবং কাসিম খ। মিয়ানা দুই ভাই বহলোল খার স্বজাতি। কোপল প্রদেশ এই দুই আফঘান ওমরার অধীনে ছিল। শিবাজী ১৬৭৮ সালে গদগ, এবং পর বৎসর মার্চ মাসে কোপল অধিকার করিলেন। “কোপল দক্ষিণ দেশের প্রবেশ-দ্বার,* এখান হইতে তুঙ্গভদ্র নদী পার হইয়া উত্তর-পশ্চিম কোণ দিয়া সহজেই মহীশূরে যাওয়া যায়। এই পথে প্রবেশ করিয়া মারাঠারা ঐ নদীর দক্ষিণে বেলারী ও চিতলছুর্গ জেলার অনেক স্থান অধিকার করিল, পলিগরদের বশে আনিল। এই অঞ্চলের বিজিত দেশগুলি একত্র করিয়া শিবাস্ত্রীর রাজ্যের একটি নুতন প্রদেশ গঠিত হইল ; উহার শাসনকৰ্ত্ত হইলেন–জনার্দন নারায়ণ হনুমন্তে । শিবাজী দেশে ফিরিবার একমাস পরেই তাহার সৈন্তর আবার শিবনের দুর্গ রাত্রে আক্রমণ করিল। কিন্তু यांमथांशै किणांनांब्र चांदकूल वांछिछ थे गखांशं झिलসে আক্রমণকারীদের আবার মারিয়া তাড়াইয়া দিল, এবং বন্দী শক্ৰদের মুক্তি দিয়া তাহাদের দ্বারা শিবাজীকে প্রবাসী—কাৰ্ত্তিক, ১৩৩৬ [ २>* छां★, २ग्न ५७ SAA AMMTTTT TAAAS SAAAA SAS A SAS AAA AAAAS AAAAA SAAAAAMMSAMMTTAMAAA AAAA ASAS A SAS SSAS SSAS SSAS SSAS বলিয়া পাঠাইল, “যতদিন আমি কিলাদার আছি, ততদিন এ দুর্গ অধিকার করা তোমার কাজ নয়।” এদিকে বিজাপুরের অবস্থা অতি শোচনীয় হইয়। পড়িল। উজীর সিদ্ধি মামুদই সৰ্ব্বেসৰ্ব্বা - বালক স্থলতান র্তাহার হাতে পুতুলমাত্র। চারিদিকে নানা শক্রর উৎপাতে উজীর অতিষ্ঠ হইয়া উঠিলেন। মৃত বহলোল খার আফঘানদল তাহাকে নিত্য অপমান করে ও ভয় দেখায় ; শিবাজী রাজ্যের সর্বত্র অবাধে লুঠ করেন ও মহাল দখল করেন , রাজকোষে টাকা নাই ; দলাদলির ফলে রাজশক্তি নিজীব। আর,অল্পদিন আগে যে-সব শৰ্ত্তে মুঘল সেনাপতির সহিত কুলবর্গায় তাহার সন্ধি হয়, তাহা বিজাপুর-রাজবংশের পক্ষে অত্যন্ত অপমান ও ক্ষতিজনক ছিল বলিয়া সকলে মাস্বদকে ধিক্কার দিতে থাকে। চারিদিকে অন্ধকার দেখিয়া হতভম্ব মান্বদ শিবাজীর নিকট সাহায্য চাহিলেন, বলিলেন যে শিবাজীও এই আদিলশাহী বংশের নূন খাইয়াছেন এবং একদেশবাসী ; মুঘলেরা তাহাদের দুজনেরই শক্র, দুজনে মিলিত হইয়৷ মুঘলদের দমন করা উচিত। এই সন্ধির কথাবাৰ্ত্তার ংবাদ পাইয়া দিলির খাঁ রাগিয়া বিজাপুর আক্রমণ করিলেন ( ১৬৭৮ সালের শেষে )। শিবাজীর জ্যেষ্ঠপুত্ৰ শস্থজী যেন পিতার পাপের ফল হইয়া জন্মিয়াছিলেন। এই একুশ বৎসর বয়সেই তিনি উদ্ধত খামখেয়ালি, নেশাথোর এবং লম্পট হইয়া পড়িয়ছিলেন। একজন সধবা ব্রাহ্মণীর ধৰ্ম্ম নষ্ট করিবার ফলে স্থায়পরায়ণ পিতার আদেশে তাহাকে পনহালা ছর্গে আবদ্ধ করিয়া ब्रांथ इञ्च । cनथान इ३८ड नष्ट्रछौ निथ जैौ cषश दात्रेरक সঙ্গে লইয়া গোপনে পলাইয়া গিয়া দিলির খার সহিত যোগ দিলেন ! ( ১৩ই ডিসেম্বর, ১৬৭৮) শম্ভুদীকে পাইয়া দিলির খার আহলাদ ধরে না । “তিনি যেন ইতিমধ্যে সমস্ত দাক্ষিণাত্য জয় করিয়াছেন এরূপ উল্লাস করিতে লাগিলেন এবং বাদশাহকে এই পরম স্থখবর দিলেন।” আওরংজীবের পক্ষ হইতে শভূজীকে সাত হাজারী মল্লব, রাজা উপাধি এবং একটি হাতী দেওয়া হইল। তাহার পর দুজনে একসঙ্গে বিজাপুর দখল করিতে চলিলেন ।