পাতা:প্রবাসী (ঊনত্রিংশ ভাগ, দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/৩৫৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


عوالانكا প্রবাসী-অগ্রহায়ণ, ১৩৩৬ [ २»च छां★,२ब्र थe পঞ্জাব ও ব্ৰহ্মদেশ অপেক্ষ গবন্মেণ্ট ও জনসাধারণ অত্যন্ত कभ छै९गांश् ८मथाईब्रां षां८रून । ভারতবর্ষের সর্বত্রই স্ত্রীশিক্ষার অবস্থা শোচনীয়। এ বিষয়ে শিক্ষিত মহিলাদের দৃষ্টি পড়িয়াছে। তাহ হইতে অনেক স্বফলের আশা করা যাইতে পারে। শিক্ষিত পুরুষদেরও অনেকের দৃষ্টি পড়িয়াছে। कौलिकांब्र चांवथुकङां नृकल नेिक निम्नां ८मथाहेबांब्र প্রয়োজন এখনও আছে । এখানে কেবল এক প্রকার প্রয়োজনের কথা বলিতেছি । बांलादिदांशनिtब्रांश आहेन श्रृंॉन इeब्बांग्न ७र्थन বালিকাদিগকে অনুন চোঁদ বৎসর বয়স পর্যাপ্ত অবিবাহিত রাখিতেই হইবে। যে-সব অভিভাবক বালিকাদিগকে শিক্ষিত করিতে চান, তাহার, চৌদ্ধ কেন, ষোল পর্য্যন্তও তাহাদিগকে স্কুলে রাখিয়া প্রবেশিকা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ করিতে চাহিবেন। তাহাদের প্রধান বাধা হইবে, দেশে ষথেষ্ট উচ্চশ্রেণীর বালিকা-বিদ্যালয়ের অভাব। প্রত্যেক জেলার সারে একটি ও মহকুমাগুলিতে একটি করিয়া এরূপ বালিক-বিদ্যালয় স্থাপিত হওয়া উচিত। র্যাহারা এখন নিজেদের বাড়ীর মেয়েদের শিক্ষার কোন ব্যবস্থা করেন না, তাহাদিগকে নূতন আইনের দ্বার পরিবর্তিত অবস্থার কথা ভাবিতে হইবে । চৌদ্দ বৎসর পৰ্য্যন্ত বালিকাদিগকে অশিক্ষিত অবস্থায় অবিবাহিত রাখায় তাহাদের বিপদের আশঙ্কা এবং সামাজিক অনিষ্টের আশঙ্কা আছে। ছোট মেয়েদের প্রতি দুষ্ট লোকদের যত দৃষ্টি পড়ে, অপেক্ষাকৃত অধিকবয়স্ক মেয়েদের প্রতি তাহাজের পাপদৃষ্টি তার চেয়ে অনেক বেশী পড়িবার কথা। এবং বাংলা দেশের হিন্দুসমাজে জবিবাহিত বালিকারা সমান বয়সের বিবাহিতাদের চেয়ে চলাফিরার স্বাধীনতা অধিক পাইয়া থাকে। তাহা তাহাদের স্বাস্থ্যের ऋक्र छांलहे-ठांश कबांन छैफ्रेिड नटट् । किरू बांशैौनতাকে যথাসম্ভব নিরাপদ করিবার জন্ত বালিকাদিগকে নৈতিক, দৈহিক ও সাধারণ শিক্ষা ভাল রকমের দেওয়া দরকার। তাছাদের আত্মরক্ষার সামর্থ্য যতটা জন্মে ততই মঙ্গল। অবশু, ষে-দেশে নারীদের স্বাধীনতা ষে-পরিমাণে বাড়িবে, সে-দেশে তাঁহাদের সন্মান রক্ষার নিমিত্ত সেই পরিমাণে পুরুষদের সাহস চারিত্রিক দৃঢ়তH ७क कथांद्र थक्लड cनोक्रष-बाफ़ cष uकांख चांबशक,डांश বিশ্বত হইতেছি না। কিন্তু বাংলা দেশের স্বেরূপ অবস্থা, তাহাতে, অন্ততঃ পুরুষ রক্ষক কেহ না আসিয়া পৌছা পৰ্য্যন্ত, মেয়েদের আত্মরক্ষা চেষ্টার সাহল ও সামর্থ্য, गांशं८षाब्र थtब्रांछन छांनाहेबांब्र भङ थछू९णब्रभडिद e সাহস, থাকা দরকার। দৈহিক, নৈতিক ও মানসিক স্বশিক্ষা হইলে এইরূপ সামর্থ্য ও সাহল জন্মিৰে ও বাড়িবে। দেশে পুরুষদের মধ্যেও অধিকাংশ অশিক্ষিত, এবং শিক্ষিতদের মধ্যেও অনেকে অবস্থার পরিবর্তন অনুযায়ী ব্যবস্থার আবশ্যকতা সম্বন্ধে চিস্তা করেন না । র্যাহারা চিন্তা করিতে অসমর্থ এবং যাহারা সামর্থ্য থাকিতেও চিন্তা করেন না, এইরূপ সকল লোকদের চিন্তার অভাৰ সমাজহিতৈষী সমাজনেতাদিগকে দূর করিতে হইবে। বাল্যবিবাহনিরোধ আইন পাস হইবার পূৰ্ব্বেও বালিকাদের শিক্ষার প্রয়োজন ছিল। আমরা বঙ্গের অবস্থা বুঝিয় মনে করি তাহার প্রয়োজন এখন বাড়িল । যে জমীতে চাষ হয় না, তাহাতে আগাছ জন্মে। শিক্ষার দ্বারা হৃদয়মনের উৎকর্ষ সা-নের চেষ্টা না হইলে তাঁহাতেও . আগাছ জন্মে। একথা সকলকে মনে রাখিতে হইবে। ছেলেদের জন্য যেরূপ শিক্ষার ব্যবস্থা আছে, মেয়েদের জন্ত তাহা সৰ্ব্বাংশে উপযোগী নহে। কিন্তু ইহাও সভ্য নহে, যে, উভয়ের শিক্ষা একেবারেই আলাদা রকমের হওয়া চাই। বালিকাদের সম্পূর্ণ উপযোগী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসমূহ গড়িয়া না-উঠা পৰ্য্যন্ত বর্তমান যে সব বালিকা-বিদ্যালয় ও কলেজ আছে, তাঁহারই সাহায্য লইতে হইবে। র্যাহার। আধুনিক রকমের বালিক-বিদ্যালয়ের পক্ষপাতী নহেন, তাহার সেই ওজুহাতে নিজেদের বাড়ীর বালিকাদিগকে মুখ করিয়া রাখিলে তাহাদের সাতিশয় অনিষ্ট করিবেন। অন্য রকমের বালিকা-বিদ্যালয়ও কতকগুলি আছে, এবং তাহার পক্ষপাতীর চেষ্টা করিলে তাহাঁদের সংখ্যা বাড়িতে পারে। কলিকাতায় শুামবাজারে ষে সারদেশ্বরী আশ্রম ও বালিক-বিদ্যালয় चांदइ, उांश८ड कठक थांछौन ब्रौङि ७ कठक चांधूनिक প্রণালী অবলম্বিত হইয়াছে। ধাহাদের আর্থিক সামর্থ্য আছে, তাহারা এখানে বালিকাদিগকে পাঠাইতে পারেন। মৈমনসিংহ প্রভৃতি সহরে মহাকালী পাঠশালা আছে।