পাতা:প্রবাসী (ঊনত্রিংশ ভাগ, দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/৬২৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


¢ዓ❖ প্রবাসী—মাঘ, ১৩৩৬ [ २>* डश, २ब ५७ চতুক্সিম্বোকভাগা: স্থ্যৰ্ব্বৰ্ণশে ব্রহ্মণাত্মজা । ক্ষত্ৰজাক্সিম্বোকভাগ। বিড়জাস্ত ভোক ভাগিন: | शiझारुक)मःक्लिङ, थिंग्रोग्न अक्षााग्न, ०२w cल्लोक । চারিক্তন ( ব্রাহ্মণী, ক্ষত্রিয়া, ৰেখা ও শস্ত্রা এষ্ট চাতুৰ্ব্বণীয় পত্নীর BSBtLLS BBB BB BBBBBB BBB BBBBBD DDDDDS fङबलांश्र, छड़ेखाज ७ ७कछtण : fठनछन ( क्रङ्गिग्रा. ४षश्च ७ न श1 এই ত্রিবণীয় পত্নীর গর্ল্ড ক্লান্ত ) ক্ষত্রিয় পুত্র বর্ণানুক্ৰমে তিন ভাগ, দুষ্টভাগ ও এজভাগ, এবং ছষ্ট জন ( বৈখ্যা ও শত্রার গর্তগত ) :বঙ্গ পুত্র দুষ্টভাগ এবং এ * ভাগ প্রাপ্ত হইবে । ( ব্রাহ্মণের সম্পত্তি kHDDD DDBS gBB Bu BB DDDDS BBBBB BB ভাগ, বৈষ্ঠ পুত্র দুষ্টভাগ ও শ জাপুল এক ভাগ পাইলে ) । বৈদিক ধৰ্ম্মাম্বুসারী ব্রাহ্মণেতর বর্ণের প্রতিষ্ট স্মৃতিকারেরা সুবিচার করিয়া উঠিতে পারেন নাই । তপন বেদান্তকুলমাত্র শৈবমতাবলম্বী বা তন্ত্ৰধৰ্ম্মচারীদের শিববাক্যে তন্ত্ৰমতে পিবাহিতা স্ত্রীর সন্তানের প্রতি যে স্ববিচার হইবে ইহা আশা করা যায় না । শৈববিবাহেও হিন্দুর অভ্যস্ত বৈষম্যবাদের ছায় পড়িয়াছে । তবু খোরপোষের অধিকার দিবার তন্ত্রে ব্যবস্থা আছে, শুধু তাই নয় বৈদিক বিবাহের স্ত্রীর গর্ভজাত পুত্র বংশের কেহ না থাকিলে শৈববিবাহের স্ত্রীর পুত্র বিষয় পাইবার ইঙ্গিত রহিয়াছে। খোরপোষের অধিকারও একটা অধিকার বটে। কালক্রমে অপরের অভাবে উত্তরাধিকারও বলিতে হইবে । এই সম্পর্কে বলিয়া রাখি আজকালের ইংরেজ সরকার কত্ত্বক ংস্কৃত হিন্দু আইনের কথা ভাবিলে চলিবে না । ইংরাজ আমলের পূৰ্ব্বে কি ব্যবস্থা ছিল ও ইংরাজরাজত্বের সূত্রপাতকালে কি চলিতেছিল তাহার দিকে লক্ষ্য রাখিতে ठुङ्गेtरु । রামমোহন রায় রংপুরে হরিহরানন্দ তীর্থস্বামীর সংস্পর্শে আসেন। তিনি কৈশোরে ও যৌবনে বাইশবার পুরশ্চরণ করিয়াছিলেন, তাহার পক্ষে হরিহরাননের মত সিদ্ধাচার্য্যের নিকট সাধন বিষয়ে শিক্ষা গ্রহণ করা কিছু অসম্ভব নয়। দেখিতেছি রামমোহন র্তাহাকে গুরু বলিয়া স্বীকার করিয়া আপন বাড়ীতে স্থান দিতেছেন । ঘে মহানিৰ্ব্বাণতন্ত্র রামমোহন রায় বহুল পরিমাণে উদ্ধার করিয়াছেন সেই তন্ত্র বলেন – सिवोंtइ! :छब्रवॆौ5८क डस्कृcङ्गांश%ि viांर्तिfठ । म६षशृ1 मांश्च६क८टच5 कॐतj३ ४:छतरुङ्कT बी fধন পরিশয়ং বীর শক্তিসেবাং সমাচরন । পঞ্চস্থাগামিনাং পাপং প্রাপ্ল য়াম্মাত্র সংশয়ঃ ॥ —মহানিৰ্ব্বাণতঙ্গ,—অষ্টমোল্লাস ১৭৮–১৭৯ শ্লোক । YBBBCS BDSDDSBB BB DDDDD DBBS JTBB LSBBB DDBB SDDD BDS DDD DDS DDBBB BBD DBBS BDt BD DBBBB BBBDD DBB BBD DDS DDDDS DBB DYEBBBDDDBBB BBB BB DBB DBBS BBBB BBB নাই। | খুব সম্ভব সাধনসৌকর্ধ্যার্থ গুরুর আদেশে রামমোহনকে শৈববিবাহ করিতে হইয়াছিল। এই প্রসঙ্গে মনে রাপিতে হুইবে যে, তখনকার দিনে স্ত্রী লইয়া छूद्रश् कईकांटन याहेबांब्र aथा निज ना । ब्रांमट्याश्न রায়ের শৈববিবাহিতা ঘবনী পত্নী থাকিলেও থাকিতে পারেন । তিনি সম্ভবতঃ রামমোহনের সঙ্গে কলিকাতায় আসিয়া থাকিতে পারেন । কিন্তু রাজারাম যে তাহারষ্ট গৰ্ভজাত পুত্র তাহার কোন প্রবল প্রমাণ নাট । ব্রজেন্দ্রবাবু যে পাসপোর্টের প্রমাণ দিয়াছেন তাহ অদ্যস্থলে প্রমাণ বলিয়া গণ্য হইতে পারিত কিন্তু এ স্থলে নয়। কেননা, বেনাম ব্যবহার রামমোহনের অস্থিমজ্জাগত ছিল। এড়ামের কথা উদ্ধার করিয়া মিস কলেটের স্থলীভূত ষ্টেড সাহেব বলিতেছেন— Mr. Adam adds : “I regret that he continues to , publish these things in the name of another. but I cannot succeed in dissuading him from it. This nersistent assumption of other people's names is indeed a puzzle. There seems to have been a secretive strain in Rammohun's blood... which made him favour this pseudonymous authorship.” রামমোহন রায় কখন রামদাস কখন শিবপ্রসাদ শৰ্ম্ম, কখন চন্দ্রশেখর দেব, কখন তারাষ্টাদ চক্রবর্তী কথন বা রামচন্দ্র বিষ্ঠাবাগীশ বা হরচন্দ্র রায় ইত্যাদি নাম গ্রহণ করিতে কুষ্ঠিত হন নাই। এমন কি শিষ্য বা বন্ধুদের নামে প্রকাশিত যে সঙ্গীতগুলি তাঙ্কাও রামমোহন রায়ের রচিত বলিয়। মনে হয় । ইহার প্রকৃত কারণ খুজিতে গেলে উপলব্ধি হয় যে, রামমোহনের ব্যক্তিত্ব বহুবুহ-সমন্বিত (multi-personal) for 1 no. Nows on of": বিরাট পুরুষের লক্ষণ । তিনি যে এক সময়ে ভিন্ন ভিন্ন সিরিজের চিস্তা ও কৰ্ম্ম করিতে পারিয়াছেন তাহা তাহার মধ্যে এই বিরাটত্ব ছিল বলিয়াই। এ বিষয় আরও পরিষ্কার করিয়া বলিবার স্থল ও সময় এ নয় । তিনি শুধু নিজে বদলিয়া যাইতেন তাহা নয়, পরকেও বদলাইতেন । রামমোহনের প্রদৌহিত্র নন্দলাল চট্টোপাধ্যায় তাহার “রামমোহন সম্বন্ধীয় ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র গল্প” পুস্তকে লেখেন— "রাজা রামমোহনের সঙ্গে যাহারা ইংলণ্ডে গমন করেন, তাহাদের প্রকৃত নাম পরিবর্তন করিয়া তিনি আপনার নামের যোগে নাম রাখেন। রামরতুনের পূৰ্ব্বনাম শম্ভু এবং রামহরি দাসের পূর্বনাম হরিদাস।” পাসপোটে দেখিতেছি শম্ভু রামরতন হইয়াছেন, রাজারাম লেখ বস্তু, হইয়াছেন, আর হরিদাস হরিদাসই থাকিয়া গিয়াছেন। আবার বিলাত গিয়া সেক বন্ধু রাজারাম এবং হরিদাস রামহরি দাস হইয়াছেন । রাজাতে পরিবর্তনপ্রবণতা ছিল বটে, কিন্তু বৃথা চাঞ্চল্য ছিল না । ধিনি পরিবারের