পাতা:প্রবাসী (ঊনত্রিংশ ভাগ, দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/৮৬৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৬ষ্ঠ সংখ্যা ] শান্তিনিকেতনের স্মৃতি ro हिणाय । यायं८यब्र छुट्ठाब्र। विनय शृङ्गनझ्कांदब्र थांभां८मब्र উপাসনার ব্যবস্থা করিয়া দিয়াছিল। ১৮৪৬ শকের ১লা অগ্রহায়ণের “তত্ত্বকৌমুদীতে এই উৎসবের সংক্ষিপ্ত दिवब्र१ <यंकांनिष्ठ झग्न । रुषंi-“०१झे कांéिक श्रृंनियांब्र প্রাভে মহর্ষি দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুর মহাশয়ের শাস্তিনিকেতনে উপাসকদিগের নির্জন উপাসনা, তৎপর সঙ্গীত ও প্রার্থনা । * * * ১৯এ কাৰ্ত্তিক সোমবার প্রাতে শাস্তিনিকেতনে উপাসনা হয়। বাৰু কেদারনাথ মুখোপাধ্যায় উপাসনার কার্ষ্য করেন। • • • বাৰু শশিভূষণ বন্ধ মহাশয় উৎসবের পূৰ্ব্বে এখানকার ধৰ্ম্মসভাতে “মুক্তি কি রূপে লাভ করা যায়” এই বিষয়ে একটি বক্তৃভ করেন, ও তৎপর দিন শান্তিনিকেতনে স্থানীয় ব্রাহ্মবন্ধুগণের সহিত উপাসনা করেন।” उच्चप्कोभूौ ১৮৪৬ শক, ১লা জ্বগ্রন্থায়ণ, ১৭৯ পৃষ্ঠা। ইহার পর দ্বিতীয় বার্ষিক উৎসব ১২৯৩ সালের বৈশাখ মাসে সম্পন্ন হয়। এবারেও আমরা শাস্তিনিকেতনে উৎসব করিয়াছিলাম । “নিম্নলিখিত প্রণালী অনুসারে বোলপুর-প্রার্থনা-সমাজের দ্বিতীয় বাধিক উৎসব সম্পন্ন হুইয়াছে। ১৮ই বৈশাখ শুক্রবার সন্ধ্যার পর উৎসবের উদ্বোধন স্বচক উপাসনা হয়, ঐযুক্ত অধোরনাথ চট্টোপাধ্যায় আচার্ধ্যের কার্য্য করেন । ১৯শে শনিবার মহর্ষি দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুর মহাশয়ের “শাস্তিনিকেতনে” উপাসনা হয়। শ্রদ্ধাস্পদ ত্রযুক্ত পণ্ডিত শিবনাথ শাস্ত্রী মহাশয় উপাসনা করেন।** মহর্ধিদেব ১২৯৯ সালে শাস্তিনিকেতন হইতে কলিকাতা গিয়া জলপথে ভ্রমণে বহির্গত হয়েন। পরে পৌষ মাসে চুচুড়ায় মাধব দত্তের বাটতে বাস করিতে থাকেন। অতঃপর ১২৯২ সালের অগ্রহায়ণ মাসে বোম্বাই যাত্রা করেন। ১২৯৩ সালের আষাঢ় মাসে বোম্বাই হইতে প্রত্যাগত হইয়া আবার চুচুড়ার ঐ বাড়ীতে অবস্থান করিতে থাকেন। এ পধ্যস্ত মহর্ষিদেবের সহিত আমার সাক্ষাতের কোন স্থবিধ ঘটা উঠে নাই। পরে ভগবৎ কৃপায় অভাবনীয়রূপে সেই স্থযোগ উপস্থিত হইল। পূর্বে উল্লিখিত হইয়াছে, আমার বোলপুর আগমনের কিছু দিন পরে বোলপুর ইংরাজি স্কুলের হেড-মাষ্টার নবীন

  • छचtरूौबूणै, ১৮৯৮ শক (১২৯৩ সাল) ১৬ই জ্যৈষ্ঠ, selse পৃষ্ঠা । ,

বাবু ও দ্বিতীয় শিক্ষক শশীবাবুর সহিত আমার বিশিষ্টরূপ আত্মীয়তা সংঘটিত হয়। দুই বৎসর পরে শশীবাৰু কৰ্ম্মস্থত্রে অস্তন্ত্র গমন করেন। এক্ষণে উভয়েই পরলোকে । বোলপুরের তদানীন্তন ইংরাজি অভিজ্ঞ প্রধান উকীল শ্ৰীযুক্ত হরিদাস বস্থর সঙ্গে আমার পরিচয় ও ক্রমে এই পরিচয় প্রগাঢ় প্রণয়ে পরিণত হয় । আমার শান্তিনিকেতনে অবস্থিতি-প্রসঙ্গে ইহার বিষয় আরও বিবৃত হইবে। এই সময় বোলপুরের নিকটবৰ্ত্তী গ্রামের বয়েকজন বিদ্যাধী যুবকের সঙ্গে আমি প্রতি ভালবাসাতে আবদ্ধ হইয়াছিলাম। ইহাদের মধ্যে অধিকাংশই কলেজের ছাত্র ছিলেন এবং ইহারা সকলে সমান বয়সের ছিলেন না । শ্ৰীযুক্ত রামনাথ সামস্ত, বাবু ব্ৰজেন্দ্রচন্দ্র রায় ও ভদীয় অম্বুজ অমুকুলচন্দ্র রায়, বাবু তিনকড়ি ঘোষ, ত্রযুক্ত রাখালদাস চট্টোপাধ্যায়, দেবরাজ মুখোপাধ্যায় ও রাইপুরের বাৰু হেমেন্দ্রনাথ সিংহ প্রভৃতির সম্ভাব আত্মীয়তা ও স্নেহমমতার স্থখময় স্থতি আমার হৃদয়ে অতি উজ্জল ভাবে জাগন্ধক রহিয়াছে। রাখালবাবুর নিবাস সিউড়ীর সন্নিহিত মল্লিকপুর গ্রামে। ভিনি কলেজের সহপাঠী বন্ধুদের সঙ্গে বোলপুরে আসতেন। এই স্বত্রে আমার ল': পরিচয় হয়। পরে এতদূর ঘনিষ্ঠত হইয়াছিল যে, প্রতে: ছুটিতে বাড়ী যাইবার সময় বোলপুরে জামার নিব দুয়েক দিন থাকিয় বাড়ী ধাইতেন। আমি কলিকাঞ্চ, গিয়া ইহাদের ছাত্রাবাসেই অবস্থান করিতাম। এই সক, যুবকদের মধুময় সঙ্গ ও সাহচৰ্য্য দ্বারা আমি জীবনে প্রভূ, উপকার লাভ করিয়াছিলাম। ইহাদের সহিত মিলিত হইলেই নানা সংপ্রসঙ্গ ও সাহুিভা-চর্চায় সময় অতিবাহিড় হইড। জীবনের উদ্বেগু কি, চরিত্রগঠনের উপায়, কি প্রকারে পাপ-প্রলোভন জয় করা যায়, প্রকৃত শান্তিলাভের উপায় কি—এইরূপ গভীর তত্ত্বপূর্ণ বিবিধ বিষয়ের আলোচনায় আমরা উপঞ্চত হইতাম। পরবর্তীকালে ইহার। সকলেই শিক্ষিত কৃতী ও পদস্থ হইয়া সমাজে बरषहे गन्नानिष्ठ इहेबाटइन । ईशप्यब्र भटमा ५फ्रन রামনাথুৰাৰু, দেবরাজবাৰু ও রাখালবাবু মাত্র জীবিত আছেন। ব্রজেক্সবাবু ও তিনকড়িবাৰু প্রসিদ্ধ উকীল . ছিলেন। জয়কুলৰাৰু ময়ুরভঞ্জ রাজ্যের ডেপুটি ম্যাজিষ্ট্রেট