পাতা:প্রবাসী (পঞ্চম ভাগ).djvu/১৮৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


૭8ર and Bhutnu. Native-inaele rivisiirr liao lowever connpletely given was to the importel material. and all attempts by Eurolocal coini'anies to open up lic •lt in sits love Iroved to be unsuccessful se far. Mınıııg | | leases are still held, aul Isrospecting licenses srequently granted for coupe orcs. The Indian purchase of couper and brass form a senisible item in the imports of Irict.lls. During Ilir six vrats undler review the nverage annual value a capar inmorted was 8 3. 7oi, whilst during the last three years the copper iniported was valued at over a million sierling Iser aiinum.“ পিতল কাসা তামার বাসলের উপর আমাদের সম্পূর্ণ নির্ভর ; কিন্তু দেশজাত তামায় আমাদের প্রয়োজনের পক্ষে যথেষ্ট নয়। হয় ত ভবিষ্যতে যথেষ্ট হইবে । কিন্তু তাহাও বিদেশী ধ্যাদির সাহায্যে, এবং সম্ভবতঃ বিদেশী লোকদের চেষ্টায়। - বিদেশীর কোন ধার যারিব না, এ প্রতিজ্ঞ এক দিনও টিকিতে পারে না, সুতরাং ইহা করা উচিত নয় তদ্ভিন্ন বিদেশীর প্রতি বিদ্বেষভাব পোষণ করিয়া কোন জিনিস সম্বন্ধেই “স্বদেশী-প্রতিজ্ঞা” করা উচিত নয়। আমরা যে সকল জিনিস ভারতবর্ষে পাইতে পারি, এবং করিতে পারি, স্বদেশের মঙ্গলের জন্য তৎসমৃদয় ব্যবহার করিব, ইহাই আমাদের প্রতিজ্ঞ। তাহাতে যদি বিদেশ লোকদের অনিষ্ট হয়, তাহা আমাদের অভিপ্রেত মহে। তবে একটা অনিষ্ট রাজনৈতিক ও ঐতিহাসিক কারণে অভিপ্রেত কিয়ৎপরিমাণে হইয়াছে বটে। ইংলও ইচ্ছাপূৰ্ব্বক আমাদের দেশের কাপড়ের ব্যবসায় সাটি করিয়াছেন : তাহার পর দেশ কুশাসিত হইলে তাহার খবর পর্য্যস্ত রাখেন না। স্বতরাং ঠ্যহার যন্ত্রব্যবসায়েল ক্ষতি না করিলে তাহার চেতন হইবে না, আমাদের বিলুপ্ত প্রাচীন ব্যবসায়ের পুনরুস্কার হইবে না। এ স্থলেও কিন্তু ইংলণ্ডের প্রতি কোন বিদ্বেষভাব পোষণ করিধার প্রয়োজন নাই । আমাদের অভিপ্রেত প্রতিযোগিতাকে ধৰ্ম্মযুদ্ধ বলা যাইতে পারে। আমরা পূৰ্ব্বে বলিয়াছি যে কোন দেশষ্ট সম্পূর্ণ স্বাবলম্বন করিতে পারে না। ইহা কিন্তু সত্য যে ভারতবর্ষ যে পরিমাণে মাত্মনির্ভরশীল হইতে পালে, তেমন আর কোন দেশ পারে কি না সন্দেহ । ইংলণ্ড এবিষয়ে ভাবতবৰ্ষ অপেক্ষা প্রবাসী । ৫ম ভাগ । - S M M M M MM M অনেক অধিক পলাধীন। আমরা বিদেশীর সহিত সম্বন্ধচু্যত হুইলেও অনাহারে মরিব না। কিন্তু ইংলণ্ডে ধিদেশ শস্যের আমদানী বন্ধ হইলে লক্ষ লক্ষ লোক অনাহারে মরিবে। বাস্তবিক, প্রধানতঃ রূষিসম্বল সভ্যত বাণিজাসম্বল বা শিল্পসম্বল সভাত অপেক্ষা বহুগুণে শ্রেষ্ঠ ও স্থায়ী। কৃষিসম্বল জাতি জীধনের জন্ত অপরের উপর নির্ভর করে না। শিল্পবাণিজ্যসম্বল জাতি সম্পূর্ণ পরাধান । আবার শিল্পবাণিজ্য সামুদ্রিক ক্ষমতার উপর নির্ভর করে। যে দিনে সামুদ্রিক জাতির নৌকা লোপ পায়, সেই দিনেই তাঁহায় শিল্পবাণিজ্যের সহিত তাহার ঐশ্বর্যা ও সভ্যতা ধূলিসাৎ হয়। প্রাচীন কার্থেজ এবং মধ্যযুগের উনিস, এবং স্পেন বহুপরিমাণে আমাদের কথ্যর দৃষ্টান্তস্থল। আজকাল পাশ্চাত্যজগতে নৌকা বাড়ান লইয়া খুব প্রতিদ্বস্থিত চলিয়াছে। তাতার কারণ, ইউরোপের সভ্যতা ও ঐশ্বর্য প্রধানত শিল্পবাণিজ্যের উপর নিভর করে । কৃষিসম্বল ও শিল্পবাণিজ্যসম্বল জাতিদের মধ্যে আর একটি প্রভেদ লক্ষণীয়। শিল্প বাণিজ্যোস্তুব সভ্যতার ধৰ্ম্মের প্রভাব কম, স্বার্থপরতার প্রভাবই বেশী। শিল্প বাণিজ্যসম্বল জাতিদিগকে সৰ্ব্বদা এই কামনা করিতে হয় যে, অপর জাতির অসভ্য থাকুক, নিজ নিজ দেশের স্বভাবজাত দ্রব্য সকলের সাহায্যে শিল্প সামগ্ৰী উৎপাদনে অসমর্থ থাকুক ; আময়া আমাদের শিল্পোৎপন্ন জিনিস তাহাদিগকে বিক্রযু করিয়া ত্যহাদের দেশের প্রাকৃতিক ঐশ্বৰ্য্য লুটিয়া খাই। এই সকল সভ্যজাতি আপলের উন্নতিকে ঈর্ষার চক্ষে দেখিতে বাধ্য হয়, শিল্প বাণিজ্যে নিজের নিজের প্রাধান্ত রাপিবার জন্ত সময়ে সময়ে সাতিশয় অন্তার ও নৃশংস আচরণ করে। আমেরিকা, আফ্রিকা, অষ্ট্রেলিয়া ও এশিয়ার খৃষ্টান জাতিদের নৃশংস ব্যবহার আমাদের কথার সত্যতা প্রমাণ করিতেছে। অপর দিকে কৃষিসম্বল জাতিকে অপরের অমঙ্গল, অপরের অমুন্নত অসভা অবস্থার চিরস্থিতি ইচ্ছা করিতে হয় না। কৃষিসম্বল সভ্যতার বাহ্য চাকুচিকা কম, ইহাতে প্রভূত ধনসঞ্চয়ের সম্ভাবনা নাই। কিন্তু ইহা জাতি বিশেষের ধৰ্ম্মপথে থাকি যায় অন্তরায় নহে, বরং সহায়তা করে। সুতরাং আমাদের বক্স বয়ুলাদি প্রাচীন শিল্পের পুনরুদ্ধার সাধন একান্ত কক্সবা হইলেও, কৃষির প্রতিই আমাদের -T ৬ষ্ঠ সংখ্য)। ] - ----- প্রধানভাবে মন দেওয়া উচিত। বাস্তবিক, কাপড় বে আমাদের দেশে বিদেশ হইতে সৰ্ব্বাপেক্ষ বেশ টাকার আসে, তাহা কৃষিতে মন না দিয়া যথেষ্ট পরিমাণে উৎপন্ন করিতে পারি না। কাপড়, লোহা ইস্পাতের জিনিস এবং চিনি, এই তিনটি জিনিসই যিদেশ হইতে বেশ টাকার আসে । তন্মধ্যে প্রথম ও তৃতীয়টি ক্লষিজাত। আমাদের পরম সৌভাগ্য এই যে আমাদের দেশ রুবিপ্রধান, এবং এরূপ স্নবিষ্কৃত যে শিল্প-দ্রবের কাটতির জন্য বিদেশে যাইবারও প্রয়োজন মাই। ধন সম্পদ ঐশ্বৰ্য্য ভোগ । স্বদেশের এ বিষয়ে উন্নতি প্রার্থনীয়। কিন্তু ধৰ্ম্মই শ্রেষ্ট, সীর বস্তু। যাহা ধৰ্ম্মসঙ্গত নয়, তাহ আমরা চাই না। স্বদেশী-প্রচেষ্টা ধৰ্ম্মসঙ্গত ন৷ ইষ্টলে, তাহা হাজার লোভের কারণ হইলেও, আময় তাহার সমর্থনা করিতাম না । সুপের বিষয় ধৰ্ম্ম ও স্বদেশী-প্রচেষ্টায় কোন বিরোধ নাই । সুতরাং ইহাতে কায়মনোবাক্যে যোগ দিতে পারি। - চারিজন গুজরাতী গ্রন্থকার। ১৩১ সালের আশ্বিন নাসের প্রবাসীতে প্রাচীন ও আধুনিক - চারিজন গুজরাতী গ্রন্থকার । - S MS MS MS MSMSMSAAAAAAS গুজরাতী সাহিত্যের পরিচয় প্রদান প্রসঙ্গে কয়েকজন প্রাচীন ও আধুনিক গুজরাতী গ্রন্থকারের পরিচয় দেওয়া ইটাছিল। বর্তমান প্রবন্ধে আরও চাৰ্বিজন আধুনিক গ্রন্থকারের সংক্ষিপ্ত পরিচয় দেওয়া হইবে। মনঃস্থখরাম সূৰ্য্যরাম ত্ৰিপাঠী । গুজরাতের অন্তঃপাতী নউীআদ নামক স্থানে ১৮৪০ খৃষ্টাম্বে ঐযুক্ত মনঃস্থখরাম স্বৰ্য্যরাম ত্ৰিপাঠী জন্মগ্রহণ করেন। তিনি জাতিতে নাগর ব্রাহ্মণ। তাহার মাত বুদ্ধিমতী ও উন্নতচরিত্রা ছিলেন। যেtলবৎসর বয়সে মনঃস্থরাম, ইংরাজী শিথিরা পাশ্চাত্য জ্ঞানলাভ করিতে ইচ্ছুক হওয়ায়, উাহার মাত ঠাহাকে আহমদাবাদ ও খেড়ায় প্রেরণ করেন । তিনি পরে বোম্বাইয়ের এলফিনষ্টোন কলেজে অধ্যয়ন করেন। কলেজ ছাড়িয়া তিনি বাণিজ্যে প্রবৃত্ত হন, এবং সততা ও কৰ্ম্মে একাগ্র অভিনিবেশের কলশ্বরূপ সফলতা লাভ করেন । কাঠাআবাভের অস্তঃপাতী জুনাগঢ় রাজ্যের প্রধান মন্ত্রী স্বৰ্গীয় সুঞ্জ গোকুলজী জালার সুপারিসে তিনি _l মনঃস্থখরাম স্বর্গারাম ত্ৰিপাঠী । ১৮৬৬ সালে বোম্বাইয়ে ঐ রাজ্যের এজেন্ট নিযুক্ত হন। দেশীয় রাজ্যের এজেণ্টগণকে প্রাঙ্গুষ্ট শাসনকৰ্ত্তাদের সংস্পর্শে আসিতে হয় , স্বতলাং ত্যহাদিগকে পেশকালপাত্র ভেদে বিবেচনার সহিত কাজ করিতে হয় । ত্ৰিপাঠী নহাশয়ের এই বিবেচনাশক্তি প্রচুর পরিমাণে থাকায় তিনি উপযুJপরি জুনাগঢ়ের তিন জন নবাব, কচ্ছের মহারাও, ইডরের মহারাজা এবং অন্যান্য অনেক রাজার বিশ্বাসভাজন হয়েন। তিনি ১৮৭৭ সালে কচ্ছের এবং ১৮৮৯ সালে ইউরের এজেন্ট নিযুক্ত হন। এজেণ্টের কার্যা করিবার সময়ও তিনি জ্ঞানলিন্স চৱিতাৰ্থ কল্লিতে থাকেন । ত্ৰিপাঠী মহাশয় ফক্স গুজরাত্য সভার অবৈতনিক সম্পাদক, বুদ্ধিবদ্ধক সভার সত্যপত্তি, জষ্টিস্ অবৃদ্ধি-পীস এবং অনেকগুলি গতবানিধির (charitable unds টুষ্টি । তাহার পূজনীয়া জননীর ও প্রিয়তমা ভাৰ্য্যার স্থতিরক্ষার্থ