পাতা:প্রবাসী (পঞ্চম ভাগ).djvu/১৮৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


- - - - ՀՋ8Խ প্রবাসী । S S M S M S M S M S M S M S M S SS - [ ৫ম ভাগ । - হুইবে ? வி বঙ্গের অঙ্গচ্ছেদ রহিত হয়, তাহা হইলে কি আর আমরা ইংরাজী ও আমেরিকান সিগারেট বিৰে আমরা আর দেশীয় বস্ত্র ব্যবহার করিবার জন্য প্রতিজ্ঞাবদ্ধ থাকিব না ? ম্যাঞ্চেষ্টারের অন্ন হয় ত মারিলেন, কিন্তু তাহাতে আমাদের দেশের কি উপকার হইল? ইংরাঞ্জের গ্রাস জাৰ্ম্মেন কিম্ব আমেরিকানে কাড়িয়া লইল, আমরা যে তিমিরে সেই তিমিরেই রছিলাম। মনে রাখিতে হইবে যে দেশের স্থদশা ঘুচাইতে হইবে । ভারতের দ্রব্যাদি ব্যবহার করা ভারতের উন্নতির এক প্রকৃষ্ট উপায় । ভারত একটা মহাদেশ, ভারত নিজের সকল প্রধান অভাবই পূরণ করিতে পারে। দেশের অভাব পুরণ করিতে পারলেই ডারতের বহিৰ্ব্বাণিজ্যেরও দরকার হয় না। আর স্মরণ রাশিতে হইবে যে ম্যাঞ্চেষ্টার বিদেশীয়ের তুল্যার্থক নহে—যাহা স্বদেশীয় নহে তাহাই বিদেশীয় ; এদেশের ইংরাজচালিত মিলও স্বদেশীয় মিল। যাহা বিদেশীয় তাহাই বর্জন করিতে হইবে। অনেকে বলেন, একেবারে সকল বিদেশ জিনিস ত্যাগ করতে সম্ভব নয়, বোম্বাইয়ের কলের কাপড়ও তবিলাতী যন্ত্রের সাহায্যে প্রস্তুত, তবে আর এরূপ প্রতিজ্ঞা করিয়া কি লাভ ? আমরা বলি, যত বিদেশী জিনিস ত্যাগ করা বায়ু, ও দেশী জিনিস ব্যবহার করা যায়, ততই ত মঙ্গল । একেবারে নীরোগ হওয়া যায় না বলিয়া কি আত্মহত্যা করিতে হইবে ? সকলেই এমৃ এ পাশ করিতে পারে না, বলিয়া কি ক খ গও শিখিতে হইবে সা ? পাছে কখন একটা মিথ্যা কথা মুখ হইতে বাহির হইয়া যায়, সেই ভয়ে কি কখন সত্য কথা বলিখায় চেষ্টাও করিতে হুইবে না ? এখন দেখিতে হইবে দেশীয় কি কি জিনিস পাওয়া যায়। কয়েকটির মাত্র উল্লেখ করিতেছি। ১ম। যদি সেীন দ্রব্যাদি ব্যবহার করিতেই হয়, তবে আমাদের দেশীয় আতরের মত কি আর সুগন্ধ দ্রব্য আছে ? ইংরাজের অনুকরণ ছাড়ন, দেশীয় জিনিস ব্যবহারে গৌরব আছে। আমরা তামাক খাওয়ার বিরোধ, কিন্তু যদি খাইবেনই, তাহা হইলে দেশী তামাকষ্ট ভাল। দেশীয় তামাক পূৰ্ব্বেকার বড় উচ্চপদস্থ এদেশবাসী ইংরাজও ব্যবহার করিতেন। ডাক্তারদের মতে দেশীয় উপায়ে প্রস্তুত ভামাক অস্ত সকল প্রকার তামাক অপেক্ষা কম হানিকর । মজাজের সিগার ও সিগারেট বিলাতের আদরের সামগ্ৰী, ছুই নষ্ট করিতেছি। বেঙ্গল ও নর্থওয়েষ্ট কোম্পানীর সাবাল বিদেশী সাবান অপেক্ষা চীন নহে। ২য় । যাহা একান্ত আমগুক নহে । দেশে আপাতত: ছাত প্রস্তুত হয় না, “ফিট্‌” হয়, উহাই ব্যবহার করুন। তাল ছাতার দরকার হইলে জাপানী ব্যবহার করুন । যদি দেশীয় দেশলাই না পাওয়া ধার জাপানী দেশলাই ব্যবহার করুন । ষন্মাতে প্রায় চেষ্টারের মত কেরোসীন তৈল প্রস্তুত হইতেছে। কাটতী হইলে আরও উৎকৃষ্ট হইবে। জাপানী ল্যাম্প ব্যবহার করুন । উৎসাহ পাইলে আমাদের দেশীয় কারিকরের স্বন্দর টেকসই পিতলের কেরোলীন ল্যাম্প প্রস্তুত করিতে পারে। দেশে সুন্দর ছুরি, কাচি ইত্যাদি প্রস্তুত হইতেছে । কাচের বাসন যতটা সম্ভব না ব্যবহার করিলেই হইল । কেহ মনে না করেন যে বিদেশীয় দ্রব্যাদির খরস্রোত একবার বঙ্গদেশে সভা সমিতি করিতে পারিলেই সম্পূর্ণ রূপে রোধ হইয়া যাইবে । না—ইহা সময়সাপেক্ষ। তবে যদি আমরা উপায় স্থির করিয়া দৃঢ়তার সহিত ধীর ভাবে আমাদের কৰ্ত্তব্যের পথে অগ্রসর হই তবে কালে কৃতকার্যা হইব । এখন যে ধনের স্রোত বিদেশের অভিমুখে অবিরাম প্রবাহিত হইতেছে, অল্পে অল্পে বহু বৎসর ধরিয়া সেই স্রোতের মুখে বাধ বাধিতে পারিলে ভারতের শিল্পবাণিজ্যক্ষেত্র উৰ্ব্বর হইয়া উঠিবে। কেবল হৈ চৈ করিলে চলিবে না । ৩য়। (ক) বস্থাদি —আমাদের দেশে ধুতি,শাট, জাম ট, চাপকান, জ্যাকেট, সেমাজের কাপড়, বিছানার চাদর, উড়ানী, মোঙ্কা, গেঞ্জি, তোয়ালে শীতবস্ত্ৰাধি সকলই এদেশের কলে প্রস্তুত হইতেছে । ভবে এগুলি সকল স্থলে বিদেশীর মত তত হুঙ্ক কিম্বা বিচিত্র বর্ণের নয়। কিন্তু যাহার একটুও ফ্যাশান বা আরাম ত্যাগ করিতে পারেন না, স্বদেশের কথা তাদের মুথে না আনাই তাল । ঠাধের বাচিয়া থাকায় কি ফল ? (থ) জুতা :-বোম্বাই ও কানপুরের কলে, কস্তানভি বিস্তর জুতা পাওয়া যায়। অনেক উচ্চপদস্থ ইংরাজ কৰ্ম্মচারী এদেশী মূৰ্চিদের নিৰ্ম্মিত জুতা ছাড়া অষ্ঠ কোন জুতা ব্যবহার করেন না। কিন্তু বাঙ্গালী যাবুদের ডগল ও নর্মান ন হইলে পদদ্বয় স্বশোভিত হয় না। - | ...। - ৬ষ্ঠ সংখ্যা । ] - - - - (গ) তৈজসপত্রদিং--এবিষয়ে বাঙ্গালীর মত হীন জাতি আর ভারতে নাই । ভারতের কোন প্রদেশে এনামেলের বাসন ব্যবহার হয় না। কিন্তু ৰাঙ্গালীর গুহে গৃহে উহ বিরাজ করিতেছে। অধিক চুঃখের বিষয় এই যে বাঙ্গালীর পিস্তুল কাসার মত সুন্দর স্বাসন-কোপন আর ভালতে কুত্রাপি হয় না। এরূপ স্বন্দর ও স্থায়ী তৈজসপত্রাদি ছাড়িয়া আমরা বিদেশীয় ঘৃণিত জঞ্জাল ব্যবহার করিতেছি। অবশু এলামেল প্রথমে সস্তা বোধ হয়, কিন্তু একপ্রস্ত পিত্তল-কঁাসার বাসন যতকাল চলিবে সে সময়ের মধ্যে বোধ হয় এনামেলে উচ্চার চতুগুণ মূলোয় খরচ হুইবে । পিতল-কঁসীর বাসন পুরাতন হইলে অৰ্দ্ধেক দরে বিক্রয় হয় ; এনামেলেয় সকলই নষ্ট । এনামেল একেবারে ত্যাগ করিতে ইষ্টবে। আবাষ পিত্তল-কাস ব্যবহালু করিতে হইবে। (ঘ) লবণ –বঙ্গে দেশীয় লবণ কেন ব্যবহার হয় না ? উস্থা অপেক্ষা কি বিদেশীয় ধরে এত সস্ত ? তা ছাড়া, হিন্দুস্তানী হিন্দুরা ত বিলাতী লবণ ব্যবহার করেন না, সৈন্ধব বা কল্পকচ ব্যবহার করেন। আমরা প্রবাসী বাঙ্গালীরাও তাঁহাই করি । বঙ্গের লোকেয়া কেন তাহা করিতে পারেন না ? (ঙ) চিনি -বিলাতী চিনি ব্যবহার করিতে আরম্ভ কল্প অবধি আমাদের দেশীয় চিনির কারবার লোপ পাইয়াছে। কাশীপুর, মজঃফরপুর, বক্সার ইত্যাদির এখনও বিস্তর চিনি পাওয়া যায় । আমরা বিলাতী ছাড়িয়া উহা কেন ব্যবহার করি না ? যুক্ত প্রদেশে উচ্চ শ্রেণীর হিন্দুরা বিলাতী চিনি ব্যবহার করেন না, যে সকল ময়রার দোকানে উছ ব্যবহার হয় সেখান হষ্টতে কখনও মিঠাই ক্রয় করেন না । আমরা কি এতটাও পারি না ? (চ) সৰ্ব্বপ্রধান বিদেশীয় দ্রব্য যাহা আমরা অনায়াসে পরিহার করিতে পারি ও একবার যাহা বজ্জন করিতে পারিলে স্বদেশের প্রভূত উপকার হয়, তাহা পরিধেয় বস্ত্রাদি । কিন্তু দেশের প্রস্তুত বস্থাদি ও অদ্যান্ত দ্রব্যাদি এক স্থানে, সুবিধামত, দরকারমত, পছন্দমত, পাওয়া অত্যন্ত কঠিন । কেহ যেন মনে না করেন একবার বিদেশীয় পরিহার করিলেই স্বদেশীয় অব্যাদি নিজেই আমাদের স্বারে বিলাতীর মত আসিয়া উপস্থিত হইবে। বিলাতী প্রচার করিতে ও তারতের দেশী জিনিস ব্যবহার । --- ਾ J08న - - দূরবর্তী নিভৃত কোণ পৰ্য্যন্ত পছছাইতে ইংরাঙ্গকে কত ক্লেশ স্বীকার করিতে ইয়াছে, রেলের ও পথের জন্ত কত কোটা টাকা ব্যয় করিতে হইয়াছে। ১৮৬৪।৭৪ সালেয় মাঝা মাঝি আমাদের গবর্ণমেণ্ট ভারতের ৬ লক্ষ টাকা খরচ করিয়৷ কেবল সমগ্র দেশের পরিধেয় বস্থাদির নমুনা সংগ্ৰন্থ করিয়া বিলাতের চেম্বায় আবৃকমাস গুলার ব্যবহারের জষ্ঠ পাঠান । আমাদের স্বদেশী দ্রব্যাদি পাইতে ও সকল স্থানে সরবরাহ করিতে বিস্তর পরিশ্রম করিতে হইবে । অতএব স্তবন্দোবস্তের বিশেষ দরকার। যে পৰ্য্যস্ত সংগ্রন্থের কোন উপায় ন হইবে, সে পৰ্য্যন্ত দেশয় বস্তুর প্রচার উত্তম রূপে হক্টতে পাব্লিবে না ; আমাদের প্রতিজ্ঞা কাৰ্য্যে পরিণত করা সুকঠিন হুইবে । কি উপায়ে দেশীয় দ্রব্যাদি এক কেন্দ্রীয় স্থানে সংগ্ৰহ করিয়া বঙ্গের গ্রামে গ্রামে ও নগরে নগরে যোগান যাইতে পারে তাহাই সৰ্ব্ব প্রথমে স্থির করিতে হইবে । বর্তমান দেশীয় দোকানের মধ্যে প্রধান ইণ্ডিয়ান ষ্টেরস খুচরা বিক্রয়ের প্রতি অধিক মনেযোগী, কলিকাতায় এরূপ বিণ ত্রিশ খান দোকানের দরকার। আর ষে দুই একখানা ব্যক্তিবিশেষের দোকান আছে, তাহাদের মূলধন অধিক নহে ; তাহারা এ বৃহৎ ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করিতে পারে না । মাড়বারী কিম্বা অন্য কেহ যাহারা বিলাতী দ্রব্য আমদানী করে, তাহারা একাজে সহজে অগ্রসর হইতে সাহসী হইবে না। ইহাতে আপাতত: বিস্তর ঝখাট, অনেক জঙ্গল কাটিয়া পথ পরিষ্কার করিতে হইবে। ইহা ব্যক্তিবিশেষের কৰ্ম্ম নহে—তাহারা প্রথমেই এরূপ (risk) ঝুকি লইতে সাহসী হইবে না। যৌথ কারবারই ইহার পথপ্রদর্শক হইতে পারে, পরে দেখাদেখি অনেকেই পথামুসরণ করিবে । অনেকের ধারণ আমাদের দেশের বোম্বাই, নাগপুর প্রভৃতি স্থানের মিলে সকল প্রকার ব্যবহারযোগ্য বস্ত্রাদি সৰ্ব্বদা প্রস্তুত থাকে —বাস্তবিক তাহা নহে । আমাদের দরকার মত দ্রব্য ফরমাইস দিয়া প্রস্তুত করাষ্টতে হইবে । ইহাতে বিস্তুর টাকার প্রয়োজন—অতএব সমগ্ৰ বঙ্গদেশে দ্রব্যাদি সরবরাহ করিবার জন্তু কলিকাতায় একটা বৃহৎ পাইকারী ভাওরি (central stores) খুলিতে হইবে। আমাদের &BR co Limited Liability Co. ofars stro,