পাতা:প্রবাসী (পঞ্চম ভাগ).djvu/২৬৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


8:s8


.-...-----------. ہم

তিনি পুরুষোত্তম রাজাবলী নামে এক নুতন কাব্য রচনায় প্রবৃত্ত হন । ইহার ৪ সর্গ মাত্র সমাপ্ত হয়। উহাতে বিক্রমাদিত্য ও শালিবাহনের চরিত কীৰ্ত্তিত হয়। তিনি নানার্থ সংগ্ৰহ নামক অভিধানে অকারাদি ক্রসে মকারাদি শব্দ পর্যান্ত সংগ্ৰহ করিয়া যান এবং পরিশেষে একথানি নূতন অলঙ্কারগ্রন্থ রচনা করেন। ইহাতে রস ও শুধ আদির নিরূপণপ্রণালী অতি প্রাঞ্জল ভাষায় বিশদভাবে ব্যাখ্যাত হয়। কিন্তু বঙ্গের ভাগাদোষে গ্রন্থগুলি সম্পূর্ণ হইবার পূৰ্ব্বেই প্রেমচন্দ্র অস্তমিত হইলেন। প্রধান প্রধান সংস্থত কাব্যের ভাষ্যরচনা করিয়া তিনি দেশের যে প্রভূত উপকার করিয়া গিয়াছেন, তজ্জন্ত সাহিত্যজগৎ তাহার নিকট চিরঞ্চণী থাকিবেন। ভারতীয় টকাকারদিগের মধ্যে মরিনাথের পরই তাহার উল্লেখ করিতে হয়। এমন কি কাশী হইতে প্রচারিত “পণ্ডিত” নামক পত্রিকায় ১৮৬৭ অব্দের ১লা মে মহমহোপাধ্যায় পণ্ডিত আদিত্যরাম ভট্টাচাৰ্য্য এম, এ, মহাশয় তাহার গুরুর যে সংক্ষিপ্ত জীবনী লিথিয়ছিলেন, তাহাতে তিনি তাহাকে টীকারচনা সম্বন্ধে মল্লিনাথের অপেক্ষ অধিক গৌরবের ভাগী করিয়াছেন । তিনি লিথিয়াছেন –


“o o o o The public has not to form anv judg ment from the reports of liis sriends or pupils, for he has transmitted to us his works to prove his merits. • * ~ * He has left us commentaries on difficult poems and dramas. * * * His other principal works are commentaries on * * * * Besides inese he edited numerous warks tur the public in tlie Bibliotlieca Indica. la nome of these works is lic guilty of the charge laid dowu in the sollowing lines: “Commentators each lark passage shun, And hold a sartling rush-light to the sun." —a charge of which even Malliuaib is guilty in some places of his works. * o o : - It is a sacred duty to embalm the memoirs of tic illustribus dead, * * * wlw. as a commcritator, the first of this age, falls not bellind the much cetobrated Alallimatlın.”* • "পত্তিতে" প্রকাশিত এই প্রবন্ধের নিয়ে লেখকের পূর্ণ নামের SSBBBB SSS CSSSS BBB BBB BBS BB BBBB BBBBB স্বাহাদুর উহার প্রধত প্রেমচন্দ্র তর্কবাগীশের জীবনীর ১৬৮ পৃষ্ঠার পাদ প্রবাসী । [ ৫ম ভাগ


-l.

এসিয়াটিক সোসাইটির প্রেসিডেন্ট জেমস প্রিনসেপ মহোদয় যে মগধ, পূৰ্ব্ব-বঙ্গ, কলিঙ্গ প্রভৃতির ঐতিহাসিক বৃত্তাস্ত প্রকাশে কৃতকাৰ্য্য হন, তৰ্জ্জস্য তিনি তর্কবাগীশ মহাশয়ের নিকট বহুলাংশে ঋণী ছিলেন । তিনি সংস্কৃতমিশ্র পালি প্রভৃতি ভাষায় খোদিত তায়শাসন, প্রস্তরকলকাদির পাঠোদ্ধার করিবার জন্ত পণ্ডিত প্রেমচঞ্জের সাহায্য গ্রহণ করিতেন। তর্কবাগীশ মহাশয় প্রত্নতাত্ত্বিক বৃত্তান্ত উদঘাটনে যেমন সাহায্যদান করিতেন, প্রিন্সেপ সাহেব ও অধ্যাপক উইলসন স্বদেশে প্রত্যাগমন করিলেও উহাদের পত্রোন্তরে শাস্ত্রতত্ত্বনির্ণয় বিষয়ে স্বীয় মতামত লিখিয়া পাঠাইতেন। তাহার সময়ে সাহিত্যজগতে তিনি একজন মহারথী ছিলেন। কি গদ্য, কি পদ্যরচনায় তর্কবাগীশ মহাশয়ের এরূপ প্রতিষ্ঠা ছিল যে লেখকগণ এ সম্বন্ধে তাহাকে আদর্শ মনে করিতেন। সংস্কৃত কলেজের দর্শনশাস্ত্রের অধ্যাপক পরে কাশীপ্রবাসী স্বনামধন্ত ৮জয়নারায়ণ তর্কপঞ্চানন মহাশয় মুক্তকণ্ঠে বলিতেন, "আঞ্জকাল যিনি যাহা য়চনা করুন, মুদ্রায়ন্ত্রে বাইবার পূৰ্ব্বে তর্কবাগীশের সঙ্গে সাক্ষাৎ না করিয়া কাহারও পদক্ষেপ করিবার সাধ্য নাই ।” এইরূপে তিনি বিবিধ প্রকারে স্বদেশের কার্য্য কারয় জীবনের শেষাবস্থায় কাশীপ্রধাসী হন। ১৮৪৪ অঙ্গে পেন্সনগ্রহণ করিয়া তিনি গার্হস্থাশ্রম পবিত্যাগ করেন। ইতিপূৰ্ব্বে ছয় মাসের অবকাশ লইয়া গয়া বারাণসী ও প্রয়াগাধি তীর্থদর্শন করিয়া জীবনের শেষ চার বৎসর কাশীপ্রবাসে অতিবাহিত করেন। এখানেও তিনি জ্ঞানানুশীলন, যোগসাধন, সাধু ভাধেয় উদ্দীপন এবং বিদ্যবিতরণাদি কাৰ্য্যেই ব্যাপৃত থাকিতেন। তাহার প্রশান্ত সৌম্যমূৰ্ত্তি, লামণ্যপূর্ণ আকৃতি, ধৰ্ম্মনিষ্ঠ, স্থিরচিস্তুত এবং মিষ্টভাযিতাদি গুণে আকৃষ্ট হইয়া অনেক বিদ্যার্থী আসিয়া তাহার শিষ্যত্ব স্বীকার করিলেন । তাহার পাতাল্লিশ ছচল্লিশ জন ছাত্রের মধ্যে পাচ হয় জন বাঙ্গালী, চায়িঞ্জন পঞ্জাধী, একজন নেপালী টাকায় তর্কবাগীশ মহাশয়ের অন্যতম প্রিয় ছাত্র এবং মিজ পুর জর কোর্টের হেডক্লার্ক অভ্যনাথ ভট্টাচায্য মহাশয়ের নামের কাপ্তবর্ণ স্বনে *ffael fofooftwa-"This "A B" is Baboo Abhoymath Bhattacharja now residing at Mirzapur.” fog of BB SES LS BBBBBBB BBBB BBBBB BBBB BBBS0 মৃহশিয়ের নামেরই স্বাস্তুবর্ণ। 亨 * #

o of έλ } v

l - }

| deep interest to my intercourse with him. - ৮ম সংখ্যা । } - -- --- এবং অবশিষ্ট দ্রাবিড়ী ও হিন্দুস্থানী ছিলেন। তন্মধ্যে আবার আট নয় জন কলেজের ছাত্র এবং দুই জন অধ্যাপক ( সাংগোয় অধ্যাপক বেচন তেওয়ারী এবং অলঙ্কারের অধ্যাপক শীতলপ্রসাদ তেওয়ারী ) তাহার নিকটে পাঠ, স্বীকার করিয়াছিলেন। ঠাহ বা কাব্য, নাটক, অলঙ্কার, বেদান্ত, সাংখ্য ও পাভঞ্জলাধি শাস্ত্র অধ্যয়ন করিতেন ; কিন্তু তর্কবাগীশ মহাশয়কে কখন পুস্তক মা ধরিয়া মুগে মুখে সমুদয় শান্ত্রের অধ্যাপনা করিতে দেখিয়া সকলে বিস্ময়াপন্ন হইতেন। তর্কবাগীশ মহাশয় পীড়া সঞ্চারের পূর্ব দিবস পৰ্য্যন্ত এই কাৰ্য্য সমাদরে সম্পাদন করিয়া প্রীতিলাভ করিয়াছিলেন । ১৮৬৭ অব্দের ২৩ এপ্রেল তিনি বিস্তুচিকারোগে আক্রান্ত হন এবং ২৫শে এপ্রেল মণিকর্ণিকার ঘাটে প্রাণবিসর্জন করেন । তখন তাহার বয়স ৬১ বৎসর মাত্র হইয়াছিল । শেষ সময়ে পত্নী ব্যতীত আত্মীরগণের কেহ নিকটে ছিলেন ম। কিন্তু বিদ্যাসাগর মহাশয়ের পিতা, এবং সার রাধাকাস্ত দেব বাহাদুরের জামাতা অমৃতলাল মিত্র মহাশয় তথন কাশীপ্রবাসে ছিলেন। তঁহায় তাহাব যথেষ্ট শুশ্ৰুধা করিয়াছিলেন। তর্কবাগীশ মহাশয়ের ছাত্ৰগণের মধ্যে, কি স্বদেশীয় কি বিদেশীয়, অনেকেই সংস্কৃত সাহিত্যে কৃতিত্বলাভ করিয়াছেন। ভারতবিখ্যাত বিদ্যাসাগর মহাশয় সংস্কৃত রচনাশিক্ষা সম্বন্ধে তাহার প্রিয় ও প্রধান ছাত্র ছিলেন । সুকবি মদনমোহন তর্কালঙ্কার, মহামহোপাধ্যায় পণ্ডিত মহেশচন্দ্র স্থায়রত্ন সি, আই, ই, মহামহোপাধ্যায় পণ্ডিত আদিতারাম ভটাচাৰ্য্য এম, এ, পণ্ডিত দ্বারকানাথ বিদ্যাভূষণ, রামনারায়ণ তর্করত্ন, মুক্তারাম ষিদ্যাবাগীশ এক শ্ৰীযুক্ত তারাকুমার কবিরত্ন প্রমুখ প্রখ্যাত পণ্ডিতবর্গ তাহাল ছাত্র ছিলেন। স্বনামপ্রসিদ্ধ সংস্কৃতজ্ঞ ই, বি, কাউএল সাহেব মহোদয় তাহার শিষ্যত্বগ্রহণ করিয়া গৌরবায়ুভব করিয়াছিলেন। তিনি তর্কবাগীশ মহাশয়ের মৃত্যুসংবাদ পাইয় বিলাত হইতে লেখেনঃ-—* "I was much grieved to hear that my old sricno, and teacher Prem Chandra Tarkabagish was lead. I shall always remember him with great respect and affection. He was surely a great scholar, and I look back with He was a প্রবাসী বাঙ্গালীর কথা । 8:్సt


truly learned man, and he loved tearning for its own sake, a c e.” - - তর্কবাগীশ মহাশয়ের ছাত্রমণ্ডলীর মধ্যে লব্ধপ্রতিষ্ঠছাত্রগণ তাহাকে প্রতিভাসম্পন্ন কবি বলিয়া মাষ্ঠ করিতেন । आशत्र সমসাময়িক পণ্ডিতগণও তাহাকে স্বকবি বলিয়া স্বীকার করিতেন। তাহার প্রিয়তম ছাত্র পণ্ডিত ঐযুক্ত তারাকুমার করিরত্ন মহাশয় তাহার পরলোকপ্রাপ্তির সংবাদ পাইয়া “কবিত্ব দেবীর অবসাদ সময় উপস্থিত হইল” বলিয়া নিম্নোদ্ভূভ আক্ষেপোক্তি প্রকাশ করিয়াছিলেন – “বা প্রেমচন্দ্রে জগদেক চন্দ্রেহপ্যন্তংগতে ভারতভাগ্য দোস্বাৎ ৷ সমাগতা হা! প্রিয়পুত্ৰশোকাৎ কবিদেবীংমু ভাবমূ " . কবিরত্ন মহাশয় “কবিবচন স্বধা” নামে যে গ্ৰন্থ প্রকাশ করিয়াছেন, ভাহাতে তর্কবাগীশ মহাশয়ের রচিত অনেক কবিতা বাঙ্গল পঞ্চামুবাদ সহ সন্নিবেশিত করিয়াছেন। - ষ্ঠাতার মৃত্যুতে শিক্ষিত সমাজ যে বিশেষ ক্ষতি অনুভব করিয়াছিলেন, পত্রিকাদিতে প্রকাশিত শোকচক সুদীর্ঘ প্রবন্ধগুলিই তাহার সাক্ষ্যধান করে। প্রেমচন্দ্র তর্কবাগীশের স্থায় প্রকৃত পণ্ডিভ সকল দেশে সকল সময়ে জন্মগ্রহণ করেন না । ইহঁদের জন্মলাভে স্বদেশ পবিত্র এবং স্বজাতির মুখ উজ্জল হয় । , প্রেমচন্দ্র যেমন অসাধারণ পণ্ডিত ছিলেন তদ্রুপ হৃদয়বান এবং মানব ও ঈশ্বর প্রেমিক ছিলেন। কলিকাতা রিবিউ পত্রিক • তাহার বিবিধ সদগুণের উল্লেখ কালে সত্যই বলিয়াছেনঃ— As a man, Premchānd was gisted with some of the noblest qualities of the heart without which public virtues and the highest intellectual endowment also often a mere delusion. Taken all in all, Pandit Prem Chandra Tarkabagish was one of the greatest souls that Bengal ever has produced, one who certainly deserves the lionour of being immortalised in a biography."

  • Calcutta Review, July, 1892. -

ঐজ্ঞানেন্দ্রমোহন দাস । তৎকালপ্রচারিত সংবাদ ও সাময়িক ।