পাতা:প্রবাসী (পঞ্চম ভাগ).djvu/৩৭১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


- - - - - - - - ৭৩০ - প্রবাসী । [ ৫ম ভাগ । - - - ------------- --- - ------- - -- BBB BK BBS BBB BBB BBBB DDBB BBB BBB BB নাই।" সমালোচণ্ডমহাশয়ের কেন এ লাথি উপস্থিত হইল তাঙ্গ বুধিতে পারলাম না। দেউক্ষর মহাশয় খলিয়াছেন ইংরাজশাসনের বহু প্রশংসনীয় গু৭ সত্ত্বেও উছ এদেশে জনপ্রিয় হয় নাই । যে কারণে বুটশশাসন এদেশবাসীর প্রিয় হয় নাই, দেউক্ষর মহাশয় তাহার আলোচনায় গ্রন্থের বহুলাংশ পূর্ণ করিয়াছেন। কারণ রোগ নির্ণীত ন হইলে তাহীর চিকিৎস যেমন অসম্ভব, সেইরূপ ইংরাজশাসন সম্বন্ধে ভারতবাসীর অপ্রীতির কারণাবলী নিশাত ন হইলে উহার প্রতীকারও সম্ভবপর নহে। তাঁরতে বুটশশাসন প্রণালীর সংস্কার ঘটলে প্লাজ প্রজ্ঞা উভয়েরই মঙ্গল ঘটবে। রাজশক্তির আমুকূল্যে প্রজার স্বথ সমৃদ্ধি বুদ্ধি পাইবে, প্রশ্লর ভক্তি গ্ৰীতি ও সঙ্গমুভূতি লাভ করিয়া রাজশক্তি দৃঢ়তর হইবে। এ কামনা র্যাহার করেন ষ্ট্যহাদিগকে শাসন প্রণালীর দুখিত অংশ সকল নিউকিভাযে প্রদর্শন করিতে হয়, সেই সঙ্গে সংস্কারের পন্থাও নির্দেশ করিয়া দিতে হয়। সমাজ-সংস্কারকের যে প্রণালী অবলম্বন করিয়া সমাজেয় মঙ্গল সাধনে যত্ন প্রকাশ করিয়া থাকেন প্লীজনীতিক সংস্কারপ্রয়াসিদেগকেও সেই পন্থার অবলম্বন করিতে হয়। হিতৈষীর উক্তি সকল সময়ে মনোহর না হইতে পারে কিন্তু সেজস্ব গেহার ছিভৈলপাকে “কথার কথা" বলিয়া বিক্রপ করা কখনই সঙ্গত নহে। সমাজ-সংস্কারকের সমাজের দৌলাবলীর উল্লেখ কালে অপ্রীতিকর ভাষার প্রয়োগ করিলেও—এমন কি সময়ে সময়ে তাহদের কার্যপ্রণালী ভ্রাস্তিপূর্ণ হইলেও,গুহার যে প্রকৃতপক্ষে সমাজের মঙ্গলকামী, এ কথা কি SBBBB BBBBB BBBB BBBB BBBB BBBS BBBSBBBS রকের সমাজহিতৈষণ যদি গুহার নিকট কপটতামুলক বলিয়া বিবেচিত না হয়, তাহা হইলে যাহার শাসনপ্রণালীর সংস্কারেচ্ছায় রাজনীতির থা রাজপুরুষদিগের দোষপ্রদর্শন করেন, তাহাদিগের রাজভক্তি বিষয়ে তিনি সন্দেহ প্রকাশ করেন কেন । ফলকপ, প্রবাদীর সমালোচক মহাশয় দেশের কথার সমালোচনার অনেক স্বলেই গ্রন্থকারের প্রতি এইরূপ অবিচার করিয়াছেন খলিয়া মনে l ” (a གང་ལྟ་ན་ཤར་ཆ༢ “আমাদের গায়ের রংটাও ইংরাজশাসনের ফলে কালো হইয়া গিয়াছে, বলিলেই (গ্রন্থকারের ) বক্তব্য শেষ হইত।" তাহার একটু পরেই বলিতেছেন,—“আমাদের সকল লোই যদি ইংরাজশাসনের ঘাড়ে চাপাইয়া দিতে পারি, তাহা হইলে একটু জাতভিমান বাড়ীন যায় বটে . কিন্তু নিতান্ত মিথা কথা রচনা করিয়া কতক্ষণ মনকে BBB BBB BBS BB DDD BL BBBS BBBS BBB LSBBB হইয়াছি। গ্রন্থকারের সিদ্ধান্তগুলির অলীকতা সপ্রমাণ করিলার চেষ্ট৷ না করিয়া স্ত্যহাকে প্রকারাস্তরে নিতান্ত মিথ্যাকধ রচনাকারী খলিয়৷ নির্দেশ কর গ্রন্থসমালোচনার নিতান্ত সহজ উপায় হইতে পারে, কিন্তু বোধ হয় পকিন্তু সাহিত্যক্ষেত্রে. এরূপ ব্যবহার অতীব গহিত বলিয়। বিবেচিত হইবে । সমালোচক সহাশয় জিজ্ঞাসা করিয়াছেন, “ইংরাজ আসিয়াছিল বলিয়া আমাদের দুৰ্গতি, ন আমরা অধঃপতিত হইয়াছিলাম খলিয়া এদেশে ইংরাজ আসিল " • তিনি যদি আমার প্রতি স্বায় শাস্ত্রে মন:সংযোগ করিবার অনুজ্ঞান শুনি তাহ হইলে জিজ্ঞান করি, "আমরা অধঃপত্তিত হইয়াছিলীন বলিয়। ইংরাজ এদেশে শুভাগমন করিয়াছেন, , স্বীকার করিলে কি ইংরাজের শুভাগমন আমাদের অধিকতর অধঃপতনের S DttBBBB BBBS BB BBBB BBS BB B BBSBBB Bt o -~ ફરજ এদেশে আসেন নাই, সমালোচক মহাশয়ের একথা স্বীকার্য , কিন্তু ইংরাঙ্গের অবলম্বিত নীতির দোষে যদি স্বামীদিগেরই অকালে নিৰ্ব্বাণ প্রাপ্তির সস্তাবনা ঘটে, তাই হইলেও কি সে কথা মুখে জানা পাপ - _ হইবে ? ইংরাজ "মাথা" ক্রোধ করিবেন খলিয়া কি গষ্ঠাগোপন করিতে হইবে গান যথার্ক্সবাদী তিনি অপর অযথা ক্রোধকে ভয় ক্ষরিক কেন ? এত্বকারের আত্মরক্ষার্থ আৰ্ত্তনাদকে "চোপ রঙ্গিাইবার ধাবসায়আথ্য দান করা যে সুসঙ্গত হইয়াছে তাহ বোধ হইল না। দেউল্লুর মহাশয় আপনার খরের দিকে তাকাইয় যে কোন দোয় দেখিতে পান না ইহ “দেশের কৃপা" পড়িয়াই আমরা নিশ্চিত বলিতে পারি না। তবে ঐ সকল কুপ্ৰথাই যে বৰ্ত্তমান দুৰ্গতির মূল কারণ লহে ইহা বগাই তাহার অভিপ্রেত। - গ্রন্থকার অসবর্ণ বিবাহের পক্ষপাতী নহেন বলিয়া স্বমতের সমর্থন করে চার্ক্সট স্পেন্সারের একটি পত্র হইতে কিয়দংশ উজ্জত করিয়াছেন। সমালোচক মহাশয় বলেন, পত্রাংশের মর্শ্ব দেউক্ষর মহাশয় যেরূপ বুঝিরাছেন সেরূপ নহে। পেঙ্গারের প্রকৃত মত কি তাঁহা তিনি নিজে বুঝাইয়া দিলে সকলের সংশয় দূর হইত। কিন্তু সমালোচক মহাশয় সেপথে পা গিয়া যাঙ্গোক্তির আশ্রয়ে কর্তৃবা শেষ কলিয়াছেন। ফলত, দেউস্তর মহাশয়ের গ্রন্থপনি বঙ্গসাহিত্যে সম্পূর্ণ অভিনব। উহাতে দেশের সদস্থ সম্বন্ধে যে সকল কথা লিখিত হইয়াছে, তাই ইংরাজী ভালানভিয় জনসমাজের নিকট সম্পূর্ণ নুতন বলিয়া প্রতীয়মান হইবে। এরূপ এস্থের বিস্তারিত সমালোচনা পূর্বক উহার ঘোষগুণ দেখাইয়া দিলে সাধারণের আলোচনার ও মতামত গঠন করিবার সহায়তা হইত। দুঃখের বিষয় প্রধানীর সমালোচক মহাশয় এরূপ গুরুতর কৰ্ত্তব্য অতি লঘুভাবে সম্পাদন করিয়া জননীবীরণকে নিরাশ করিয়াছেন। শ্ৰীল-মিত্র। - জাপানে বসন্তোৎসব l তুষারময় শীতঋতুর অবসানের সঙ্গে সঙ্গে চিরপ্রফুল্প ফলফুলপত্রে পরিশেভিত বসন্তের আগমন। জীবনে অনেক বসন্ত দেখিয়াছি; কিন্তু জাপালের বসন্তের চিরসঙ্গীবন ভাবত কখনই উপলব্ধি করি নাই। উন্ধে অনস্তু মেঘমুক্ত নীলাকাশ, নিয়ে লীলাময়ী প্রকৃতির হান্তবদন। আত্মভাবে মগ্ন উন্মদিনী প্রকৃতি মানবের বিষাদক্লিষ্ট কৰ্ম্মশ্রাত্ত প্রাণকে উন্মাদ করিয়া তোলে, এমন জীবন্ত প্রভাব জীবনে ত তুরি কখনও উপলব্ধি করি নাই । পশ্চাতে, চতুর্দিকে বৃক্ষবল্পর সমাচ্ছন্ন ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র পাহাড়, বিহগের মধুর কুজন আর শুক্লাম্বরপরিশোভিত চেরি বৃক্ষ সকল গিস্ত পরিশোভিত করিয়া দণ্ডায়মান । এই সময় জাপানির যে প্রকার হৃদয়োল্লাসে আত্মহীর হক্টর धृग्निं, আবালবৃদ্ধবনিতা আত্মপর ভুলিয়া প্রকৃতির মহাসেবার নিযুক্ত হয়, এমনট জগতে আর কুত্ৰাপি দৃষ্টিগোচর হয় না। যে দেশ, যে জাতির লোকের প্রকৃতিকে এমনভাবে সশ্বৰ্দ্ধনা করিতে পারে, তাহাদিগকে ধন্ত জ্ঞান করি। যদি কেহ জাপানিদের জাতীয় জীবন, জাতীয় এদিকে, ওদিকে, সম্মুখে, ' ১২শ সংখ্যা । ] -- - q, জাতীয় সঙ্কল্প অধ্যয়ন করিতে চান, তবে এই বস:ে প্রকৃতির সেবা নিযুক্ত ভক্তাগুলীকে একবার দর্শন করুন। এই বসন্তোৎসবে জাপানীরা যেমন জীবনের খবসন্ত ফুটাইয়া তুলিতে পারে, জীনস্থ জাতীয় জীবনের ভাব মায়বের হৃদয়পটে অঙ্কিত করিয়া দিতে পারে, উহার দৃষ্টান্তস্থল জগতে অগ্নি-নাই বলিলেই হয় । জগতে যাহা কিছু কুন্দর, তাহাষ্ট জাপানীলা প্রাণ ভরিয়া ভাল বাসিতে জ্ঞানে । তাই যখন তাঙ্গর বসন্থের ফুলহাসি দর্শন করে তপন তারা এক মহোল্লাসে আত্মচারী চষ্টয়া যায়। জাপানে বসন্তের সর্বশ্রেষ্ঠ দান চেরি ফুল। পথে, ঘাটে, পৰ্ব্বতে, গিরিকন্দরে, সাগরবেলার যে দিকে চাও সেই দিকেষ্ট হাস্যভরা চেরি ফুলের প্রফুল্ল জীবন্ত ছবি । যদি কখনও পৰ্ব্বতপুষ্ঠে ভ্রমণ করিতে বাও, তবে দেখিবে মস্তকের উপর শুভ্ৰ চেরি ফুলরাশি, আর নিয়ে চেরিফুলের বিস্তীর্ণ ফুলশয্যা। এই ফুলময় রাজ্যে নরনারীর হাস্ত্যমাথা মুপফল আরও সুন্দর। উপমা পরাজিত। এই ফুলের সৌন্দৰ্যা বর্ণনা করা আমার এই গ্ৰীণ লেখনীর পক্ষে অসাধা। তবে এইমাত্র বলিতে পারি, রূপ এবং গুণের সামঞ্জন্তে এই ফল জগতে শ্রেষ্ঠ স্থান অধিকাৰ কবিবার উপযুক্ত। অধ্যাপক নিটোবে তাহার বিখ্যাত soul of Japan নামক পুস্তকে চেরি ফুলের যে সুন্দর বর্ণনা দিয়াছেন, তাঙ্গ সকলেরষ্ট পাঠের উপযুক্ত। তিনি লিপিয়াছেন – Yes, the Sakura - has for *ge: been the favourite of our penple and the emblem of our character. . . The refinement and grace of its beauty appeal to our aesthetic sense as no other flower can. We cannot share the admiration of the Europeans for their roses, which lack the simplicity of our flower. Then too, the thorns that are hidden bencath the sweetness of the rosc, the tenacity with which she clings to life, as though 1oath or afraid to die rather tlian drop untinucly. preferring to rot on her stem: lacr showy colors and heavy odor's—all these are traits so uulike oitr mower, which *arnies no dagger or poison under its beauty, which is ever ready io depart life at the call of nature. whose colors are never gorgeous, and wilose light fragraricc never palls. Beauty of color and of formu is limited iu its showing: it is a fixed quality of existence.

  • ---
  • চেরি পুষ্পের জাপানী নাম sakuta.

مسلسطسـ জাপানে বসন্তোৎসব । -


לסף


- whereas fragrance is volatile. ethereal as the breathing of life. » Wlier thc delicious persume of the sakura quickens the morning air, as the sum in its course rises to illume first the isles of the Far East. few sensations are more sereuely exhilarating than to inhale, as it were. the very brealh of beauteous đay.

When the Creator himself is pictured as making now resolutions in his heart mpon smelling a sweet savor {Gen viii. 2i), is it amy wonder that the sweet-smelling sea-on of the cherry blossom should cait fririii ihc whole maiom from thcir iiitle habitatituis ? Blane them not if for a time their forget their toil and nooit and their hearts their panus and sorrows. Their bricf pleasure ended, thy return to their daily tasks with new strength end new resolutions. Thus in ways more than oue is the sakura the flower of the nation. অধ্যাপক নিটোবের স্বমধুর বর্ণনা পাঠ করিলে অতি স্পষ্টষ্ট বুঝা যায় যে জাপানীরা শুধু সৌন্দর্ঘ্যের চক্ষে চেরি ফুল দর্শন করে না। বিদেশীয়গণ জাপান ভ্রমণে মাসিয়া চেপ্পি ফুলের সোন্দৰ্য্য দর্শন করিয়া মোহিত হন বটে; কিন্তু এই ফুলের সহিত জাপানী জাতীয় জীবন যে কি গভীর পবিত্র সম্বন্ধে বন্ধ তাঙ্গ বোধগম্য হওয়া বড়ই কঠিন। প্রকৃতির উপাগন হইতে জাপানী জাতীয় আদর্শের পুণ্যস্রোতঃ প্রবাহিত হয় এবং সেই জাতীয় অাদর্শে চে'র ফুল সর্বশ্রেষ্ঠ স্থান অধিকার করে। তাই জাপানী কবি গাহিয়াছেন – - Shikishima noyamato Kokoro wo shito toaeba Asalii ni niowo yama sakura hana. Isles of blest Japan Should your yarunto" spirit. Surangers seclo to scan. - Say—scenting unorn's soonlit air, Blows the cherry wild and fair অতি প্রাচীন কাল হইতে এই জাতি প্রকৃতিকে পূজা করিতে শিথিয়াছে এবং সেই প্রকৃতির পুজাই জাপানী জাতির - বর্তমান উন্নতির একটা প্রধান কারণ। এই জাতির মধ্যে বাস করিয়া যতই জাপানী জাতীয় জীবন বিশ্লেষণ করা যায় ততই দেখা যায় জাতীয় জীবন গঠনে প্রকৃতির (ཨེ་ཀ་། དེ་ কতদূর ফলপ্রদ হইয়াছে। স্বদেশপ্রেম, বীরত্ব, কৰ্ত্তব্যের ।

  • জাপানীরা yamato গতি নামে ধ্যাত হয় ।

- -