পাতা:প্রবাসী (পঞ্চম ভাগ).djvu/৪৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


- - প্রবাসী । ৫ম ভাগ হয় সংখ্যা। পুরুষোত্তম । సెt পুরুষোত্তম । চিন্ধুদের দর্শন শাস্কাদির আলোচনায়, কি তাহদেৰ জোতিষ বিষ্ঠায় উল্লেপে, কি তাঙ্গাদের ব্রাহ্মণ পণ্ডিতের আলোচনায়, - - - - BB BBB BBBB BBBS BBB BBB BBB টানিয়া লইয়া বার। তিনি ইণ্ডিজের ভারতবর্ষের । &করাই বোধ হয় মাঙ্গুষের পক্ষে সৰ্ব্বাপেক্ষ কঠিন । z অঙ্গা নগরেও এরূপ উৎসব দেপিয়াছেন। ایحه - o - 苓

  • o - * পাল্লা ও হ-দরলালের বিবাহ হইয়া গিয়াছে । উষ্টলের প্রবেট লইয়াছি। পাশার হাঙ্গাল টাকা, তাহাক নামে কোম্পানির কাছে কিনিয়া দিব বলিয়া বাথিয়া দিয়াছি। সিংহটি জোয়াল প্রসাণ লইয়া গিয়াড়েন ।

বিবাহেল সপ্তাহ থানেক পলে, আবাব নিশীথের শান্তিভঙ্গ করিয়া আমীয় সদর দরজায় শব্দ উথিত গুইল—“বাবু—এ লোবিন বাব " জাগিয়া উঠিয়া ভাবিলমি—“আবায় কাহার ৪ উইল করিতে হইবে লাকি ?” বাহিলে আসিয়া দেখিলাম, লণ্ঠনহন্তে একটা ভূতা }ড়াইয়া আছে। তাহার পশ্চাতে, পান্না ও সুন্দরলাল । আশ্চর্য হইয়া জিজ্ঞাসা করিলাম—“কি তে? বাপরি कि ?” “ভিতরে চল—বলিতেছি ।" ভুতাকে বিদায় দিয়া সুন্দরলাল পান্নাকে লইয়া আমার DDBB BBB BBB S BBBSBB BBBBB তাড়াইয়া দিয়াছেন - “কেন * “সে সোণার সিংহটা সমস্ত সোণাল নহে । খুব পাৎলা সোণার পাতে উপরটা মোড় ছিল। ভিতরটা সমস্ত তামা। বাবা পুৰ্ব্বেষ্ট বলিয়াছিলেন, উঠা গলাইয়৷ বিক্রয় কলিয়া কোম্পানির কাগঞ্জ কিনিয়া রাপিবেন । মচিলে ঢাকাইতে কোন দিল সিংস্কটা লইয়া বাইবে । আঞ্জ সন্ধা৷ eষ্টতে গলান হষ্টতেছিল। ই প্ৰত টাকার আন্দাজ সোণ বহির হইয়ছে-বাকী সমস্ত ভাষা । বাবা ক্ষিপ্তের মত হইয়াছেন । দুর দূৰ করিয়া আমাদিগকে বাড়ী হইতে তাড়াইয়া দিলেন ।” আমার স্ত্রী অন্ধকারে বারান্দায় দাড়াইয়া সমস্ত শুনিতেছিলেন। তাড়াতাড়ি আসিয়া পায়ার হাত ধরিয়া তুঙ্গিকে নিছ কক্ষে লইয়া গেলেন । আমি মন্দবলালকে রাষ্ট্রয়। গিয়া অল্প একটি কক্ষে বসিলাম । ীিপ্রভাতকুমার মথোপাধ্যায়। 奴卒叱作 (বৈদেশিক চিত্র । ) ফা সোয় বণিয়ে নামধেয় এক ফরাগী পর্যাটল শাহ জাৰ্ছ বাদশায়েল আমলে ভারতবর্ষে আসিয়া পদার্পণ করেন। তিনি প্রথমে মুসলমান ধম্মের লীলাক্ষেত্র আরবদেশের বিভিন্ন লগলাদি পর্যটনমানসে গুগু হইতে বহির্গত হন । তথন সে দেশ বিধৰ্ম্মীর মৃণাদির পক্ষে নিতান্ত বিপদসঙ্কুল স্থান একথা লোকমুখে শত হইয়া, অধিকন্তু, উক্ত দেশ ভ্রমণে আগব জনৈক মুসলমান বন্ধুর প্রতিশ্রুত সাহায্য ন৷ পাষ্টয়া ভারতেশ্বর মোগল সসাটের বিশ্ববিশত না?ঞ্জশ্বৰ্য ৪ রাজধানীর শোভা দেখিলার অভিলাষে ভারতবর্ণেল উত্তর-পশ্চিম উপকূলস্থ স্বরত বন্দরে আসিয় gBB Bt S BK DDBB BBHH BBSS 0 DS মহানগলীতে আসিয়া উপস্থিত হন । তথন সম্রাট শাকজাগের লাজত্বের শেষ সময় । কিছু দিন পরেই বৃদ্ধ সম্রাটের রোগসংবাদ প্ৰচাল হুইয়া পড়িয়াছিল। সিংহাসনের উত্তরাধিকারের জন্য পরস্পর প্রতিদ্বন্দ্বী ভ্রাতৃচতুষ্টয়ের মধ্যে তখন সিংহাসনা লইয়া মহা হুলস্থল পড়িয়া গিয়াছে। এ সময়ের বর্ণনা হইতে এই বিদেশীয় পর্যটকের ভাস্বর পাবলা চারগু হইয়াছে । তিনি রাজধানীতে আসিয়৷ দানেশমন্দ নামীয় জনৈক উচ্চপদস্থ ওমরাহের অশ্ব-সচিব—Master of the Horse) অধীনে চিকিৎসকের কার্গে নিযুক্ত হন । রাজত্ব সম্বন্ধে স্বদেশে বন্ধু-বান্ধবদিগকে যে সমস্ত মৃন্দর পরাবলী লেখেন নিম্নলিপিত বৰ্ণনা সে পঞ্জাবলীল ইংল্লাল্পী অনুবাদ চইতে সঙ্কলিত হইল। প্রবন্ধেল সুচনা আমাদের বলিয়। রাঙ্গ আবশ্ব)ক খে বশিয়ে একজন গোড়া খ্ৰীষ্টান, ভাঙ্গতে আবার বিদেশী। ধৰ্ম্মান্ধ এঞ্জষ্ঠ বলিলাম যে সমসাময়িক পূৰ্ব্ববর্তী ও পরকী পৰ্য্যটকেরা-ট্যাভারনিয়ে, পারেংরে, মেকুৰ্মী প্রভূতির বর্ণনা এত বিশ্লেষকপুযিত লছে । কিন্তু এ দেশীয় কি হিন্দু কি মুসলমানদিগের আচার ব্যবহার, ধৰ্ম্ম বিশ্বাস, আচায় অনুষ্ঠান, পূজাপদ্ধতি বর্ণিয়ে বিশেষ মুণfর চক্ষে দেখিতেন। এ ভাষ গঙ্গর পরাবলীতে তিনি কিছুষ্ট গোপন করেন নাই। কি 344 : আগা এ অবস্থায় থাকিয়া তিনি মোগল । কি ছিদের সচমবধ প্রথার কথায়, প্রায় সৰ্ব্বত্র এই বিদ্বেষ পরিস্ফুট। তাহার গ্রন্থের অম্বুবাদকের বলিয়াছেন যে, পালন্ত সাহিত্যাদিতে তিনি অভিজ্ঞ ছিলেন। হওয়া সম্ভব । তবে সাগুত শাস্ত্রাদি তিনি যে আদৌ আলোচনা করেন নাটতিনি নিজেও একস্থলে এ কপাল আঞ্জাপ দিয়াছেন , ক্টাচার রচনার শতস্থানে তাহার সে শোচনীয় অনভিজ্ঞতাষ্ট প্রমাণ। তবে বে বিষয়ে প্রতিকুল সত্তাভিব্যক্তি করা যায়, সে বিষয়ে লে কিঞ্চিৎ জ্ঞানেরও আদৌ আপশুক এটা অনেকেষ্ট স্বীকার করিতে চাহেন না। প্রমাণ,আমাদের গুপ্ত কৰ্ত্ত বিধাতা বর্তমান রাজপ্রতিনিধি মহাশয় । সুতরাং এ বিষয়ে বর্ণিয়েই যে একমাত্র দেী তাঙ্গ নষ্ঠে যাহা হউক, এ সম্বন্ধে পাঠককে পবিধান করিয়া আময় অগ্রসর গুইতেছি। ৰণিয়ে বলেন যে পুরুষোত্তম ক্ষেত্রে বঙ্গউপসাগরেরকলে গুগলtণদেবের মন্দির অবস্থিত । তথায় অটি নয় দিবস ধরিয়া প্রতি বৎসর এক “ভোজনোৎসব" মই সমারোহের সহিত অনুষ্ঠিত হয়। পরবর্তী বর্ণনা পাঠ করিয়া বর্ণিয়ে-বর্ণিত এ 'ভোজনোৎসব যে আমাদের রথ-যাত্রা ব্যতীত আর কিছুষ্ট নহে পাঠকের অনায়াসেই বুঝিবেন। তিনি বলেন যে এই উৎসবে প্রায় দেড় লক্ষ লোকের সমাগম হয়। এ উৎসব দৃশ্ব তাকে প্রাচীন গ্রসের পিতার আয়নের বা মুসলমান পন্মের প্রধান লীলাক্ষেত্র মক্কাৰ তীর্থযাত্রীদের সমাগমের কথা শ্ববণ করাষ্টয়া দিয়াছে। বৃহদাকার একট কাষ্ঠনিৰ্ম্মিত যন্ত্রের engine ) মধ্যভাগে জগন্নাথ দেবের ধারুময়ী মূৰ্ত্তি বিচিত্র মহাৰ্থ অলঙ্কার ও পরিচ্ছদে স্বশোভিত চষ্টা প্রতিষ্ঠাপিত হইত। এই বৃহৎ যুঞ্জ অর্থাৎ রথখানির বিভিন্ন অঙ্গে বীভৎস দানব মুঞ্জি, বর্ণিয়ের নিজের দেশে যেরূপ দ্বিমস্তক বা একমস্তক অপচ হুই শরীর বিশিষ্ট বা বৃহৎ ও ভীষণ মস্তকবিশিষ্ট রাক্ষস গঠিত হয়, তদ্রুপ অর্থ পশু শঙ্ক নরাকার, says অর্থাৎ প্রতীচ পুরাণের অন্ধ নর ও অদ্ধ ছাগ শরীরবিশিষ্ট জীব, বানর ও শয়তানের মূৰ্ত্তি থোদিত । রোপে কামানবাহী শকটে যেরূপ চক্রের সপ্তান সেইরূপ চতুৰ্দশ কি ষোড়শ সংথাক চক্রবিশিষ্ট এই কাষ্ঠখন্থে দেবমূৰ্ত্তি স্থাপিত হয় এবং a •৬৯ জুন লোকে এ যন্ত্র বাঙ্কমার্গ দিয়া উৎসবের প্রথম দিবসে যখন খুব টাকজনকের সচিন্ত দেবমূৰ্ত্তিকে মন্দিরের ভিতর দেখান হয় সে সময় এত বৃহৎ জনতা হয় যে, প্রতি বৎসর বহু দূরত্বেশাগত ক্লাস্ক পথশ্ৰান্ত পপযারা কেবল লোকের ভিড়েষ্ট শ্বাসরোধ ছষ্টয় বারা যায়। কিন্তু এ দেশের লোক এরূপ নিৰ্ব্বোধ যে, এরূপ কষ্টকর মৃত্যুও মঙ্গ্যপণ্যময় বিবেচনা করে । তাঙ্গার সহযাত্ৰী সকলে এই পরম সৌভাগ্যের জন্ত তাহাকে আন্তরিক আশীৰ্ব্বাদ করিতে পাকে। অনেক সময় এরূপও হয় দে, যপন এই নারকীয় রথ বিজয়োপ্লাসে অগ্রসর হইতে পাকে অনেকে চিৎ হইয়া এষ্ট বৃহৎ গুরুভার রণচক্রতলে পিষ্ট হইয়া নিৰ্ব্বাঙ্ক প্রশান্তচিত্তে অবলীলাক্রমে প্রাণত্যাগ করে । এদেশবাসীদের নির্মুদ্ধিতার ও দ্রান্ত ধৰ্ম্মবিশ্বাসের সীমা নাই । এরূপ কথচক্রতলে পেষিত হইয়া নৃশংস মৃত্যুও তাছাদের সমধিক আদরণীয়, কেন না তাহীরা মনে করে জগন্নাথ দেব তাgাদের এ পরম পুণ্যময় কার্যো প্রসন্ন হষ্টয় শ্বধামে তাহাদিগকে সন্তানপদে বরণ করিবেন ও তাছার নরলোকে পুনর্জন্মে অক্ষয় স্বধগম্প ও গৌরবের অধিকালী টবে। বর্ণিয়ে বলেন যে এ দেশের ব্রাহ্মণ সম্প্রদায় নিঞ্জের স্বাক্ষ্মসাধন অর্থাৎ মৃঢ় সাধারণের নিকট ভিক্ষ ও সম্মানলাভ করিবার দুরাশয়ে এ সব অন্ধ নিৰ্ব্বোধ ও ভ্রান্ত ধৰ্ম্মবিশ্বাসের মূলে নিয়ত জলসেক করে । তাহারা সময়ে সময়ে ইঙ্গ অপেক্ষাও এতদূর নীচাপরতা, শাঠ্য ও পাষণ্ডবৃত্তি অবলম্বন করে যে স্ব চক্ষে দেখিরা ও অনুসন্ধান না করিয়া তথানির্ণয় না করিলে তাহাকেও প্রতারিত হইতে ইষ্টত। উক্ত ভও প্রতারকেরা স্ত্রীলোকদের মধ্যে যাহাকে সৰ্ব্বশ্রেষ্ঠ স্থলী যুবতী বলিয়া মনে করে তাছাকে বলে নে, জগন্নাথ দেব তোমার উপর প্রসন্ন হইয় তোমাকে পত্নীত্বে স্বীকার করিয়াছেন । ক্যঙ্গ প্রতায়ণ । হতভাগিনীকে সমস্ত রাত্রি মন্দিরে অতিবাঙ্কিত করিতে হয় । ভাঙ্গার নিজেয় ও নিবোধ জনসাধারণের মনে ব্রাহ্মণদের এই পাষণ্ডোচিত প্রতারণা সত্য বলিয়া দৃঢ় বিশ্বাস হয় । গভীর নিশীথে এই ভs পুরোহিত সম্প্রদায়ের একজন কামুক পাসও পুরোহিত মন্দিরপার্শ্বস্থ গুপ্ত কোন গবাক্ষ দিয়া, মন্দিরে প্রবেশ করিক্স