পাতা:প্রবাসী (পঞ্চম ভাগ).djvu/৬০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


x 38 - -- * - মানবেতর প্রাণিজগতে বিবাহ। ~কিছুদিন হইল কটেম্পেরানী রিভিউ পত্রিকা ইতর প্রাণীর পরিণয় সম্বন্ধে একটী প্রবন্ধ প্রকাশিত হইয়াছে। পাছে কেহু পস্তাবটাল নাম শুনিয়াই লেখকের মস্থিসূলিকণরনির্ণয়ে প্রবৃত্ত হন, এইজন্স জীবচরিত্রভিজ্ঞ হচিনসন সাহেব প্রারম্ভেই পাঠকবর্গকে মোটামুটি একটু কৈফিয়ৎ দিয়া তিনি বহুকালের পরীক্ষা দ্বারা যে সত্যে উপনীত হইয়াছেন, তাঙ্গ • সাধারণের গোচর কলিয়াষ্টেম । তিনি বলিদাছেন যে, শাহাবা ইতরপ্রাণীদিগের ভিতর বৈবাহিক সম্বন্ধের অস্তিত্বে সন্দেহ করেন, বা তাহাদের বৈবাহিক বন্ধনের পবিত্রতা অস্বীকার করেন, ঠাঙ্গর অধিকাংশ জন্তুর চরিত্রবিষয়ে অনভিজ্ঞ, লিতে পারা যায় । দাম্পত প্রণয়ম্বন্ধন যে মানুষেরই একচেটিয় অধিকার, তাeা নহে ; কারণ জীবজন্তুর চরিত্র আমরা যতই অধ্যয়ন কবি,সৰ্ব্বত্রই আমরা এ বিষয়ে মামুষের প্রাধান্ত ততই অল্প লেপিতে পাই। যত প্রকার বিবাহ আছে তন্মধ্যে চিরঞ্জীবনস্থায়ী একপত্নীক বিবাহই সৰ্ব্বশ্রেষ্ঠ এবং আদর্শ। সভাজগতে আর যাবতীয় বিবাহপ্রথা লোপ পাইয় একমাত্র একপক্টাক পরিণয়ই টিকিয় যায়। তাঙ্গর কালণ এষ্ট যে, এই প্রকার বিবাহেষ্ট অধিকসংখ্যক সবল সস্তানের উৎপত্তি হইয় শ্রেষ্ঠ যানববংশের বৃদ্ধিসাধন কৰে। ীেমসন্মিলন অবং প্রাণজগতের সর্বত্রই বর্তমান আছে ; কিন্তু জীবষ্টির যাবতীয় উচ্চতর এবং বহুতর নিম্নশ্রেণীতে তাহার একটা বাধাবাণি নিয়ম ৪ খৃঙ্খল দেখিতে পাওয়া যায় ; তথায় পরম্পরের অধিকারসকল নির্দিষ্ট থাকে, এবং স্তাহীদের লঙ্ঘনে দগু হয়। শুদ্ধ তাহাই নহে। সৰ্ব্বপ্রকার উল্লাহ প্রথা, বাহা মানবের উদ্ভাবনী শক্তি এ পর্যন্ত আবিষ্কার করিতে সমর্থ শুষ্টয়াছে, সে সমুদায়ই তথাকথিত নিকৃষ্ট প্রাণীদিগের মধ্যে পুর্ণ যাত্রায় বিদ্যমান রহিয়াছে। সহবাসঞ্চভুকালীন মিশু বা নিৰ্ব্বিশেষাত্মক যৌনসন্মিলন হইতে আরম্ভ করিয়া সৰ্ব্বপ্রকার বহুপত্নীক, বহুপতিক, একপত্নীক ও একপতিক উদ্ধাহপ্রণ মানব-সমাজের বাহিরেও পাওযা যায়। পরীক্ষা স্বারা জ্ঞান গিয়াছে যে, ঠিক মানব-সমাজেরই অনুরূপ, মানবেতর প্রাণিজগতে আক্রমণশীলত { aggressiveness ) হু বৃদ্ধিতে জীবগণ যতই উদ্ধস্তরে উঠতে থাকে, ততই প্রবাসী । [ ৫ম ভাগ । - - তাঙ্গাদের অনিৰ্ব্বিশেষ বা শুদ্ধ সহবাসখতুকালীন সঙ্গম প্রথা mating-season union ) Mtotor: **, gęs gg পরিবঙ্গে আজীবনস্থায়ী বঢ়পত্নীক অথবা হচাকালবাগ এল বহু স্থলে আজীবনস্থায়ী একপত্নীক উপ্তাহপদ্ধতির বিকাশ হয়। উচ্চস্তরের কীট ও চিংড়ামাছ, কাকড়, কচ্ছপ প্রভৃতি দৃঢ়বন্ধী ( custaceus ) বাৰ্তাত থাবতীয় মেরুদণ্ডহীন জীব ও উচ্চঙ্গাতীয় মৎস্যের অধস্তন যাবতীর মেরুদণ্ডবিশিষ্ট জীব অমুম্বাহবন্ধনের অবস্থায় বাস করে। তাহদের শাবক গণও পিতামাতার কোন প্রকার সাহায্য বা যত্ন পায় না। ডিম্বপ্রসবের সহিতই মাতার দায়িত্ব শেখ হয়। ভাঙ্গার কাণে । সম্ভবতঃ এই যে, তাহদের জীবনসাধন শীবষ্ণু (Organism) এতই অঞ্জটিল যে বিশেষ ভাবে রক্ষিত না হইলেও তাহার জীবনযাত্ৰ নিৰ্ব্বাহ করিতে সমর্থ হয়। সাদা কথায় বলিতে গেলে বলা যাইতে পারে যে, তাহার এত অপরিমেয় সংখ্যায় জন্মগ্রহণ করে যে,পিতামাতার যত্ন না পাষ্টয়াও লক্ষ লক্ষ জীব ধ্বংসমুখ হইতে বাচিয়া স্বীয় বংশরক্ষা করিতে সমর্থ হয়। অতঃপর যখন আমরা উচ্চস্তরের মৎস্তঞ্জাতি অতিক্রম করিয়া - উভচর জন্তু ও সরীস্টপ শ্রেণীতে উপস্থিত হই, তপন আগব । যৌনসম্মিলনের সাধারণতত্বে প্রতিষ্ঠা ও অপত্যস্নেহেরু স্বত্রপাত দেখিতে পাই । এখানে অপত্যস্নেহ প্রায় গুলগীতেই বিকশিত ইষ্টগ উঠে । ইহাধের দাম্পত্যমিলন ও সঙ্গম woots ( Pairing season ) offijo ori og I was এ নিয়মের যে এককালে বাতিক্রম হয় না, তাত নষ্ঠে । কারণ, নিনস্তরের কোন কোন ভেকজাতির মধ্যে দেখা যায় মধুকী প্রসব করিবাল পল মধুক ডিমে তা দেয় ও ডিমগুলি ফুটাইয়া তুলে । এই প্রকায় দাম্পতাসিলন বহুবিস্তৃত এব: ইহাই পরিণয়ের অবস্থায় গেছিবার পূর্বাবস্থা। প্রকৃত পক্ষে ইহ উভচর, সরীস্টপ ওনিম্নস্তর প্রাণিজগতে বিদ্যমান। মামৰীয় পরিণয়েব সহিত প্রকৃতই সাদগু আছে, জীবজগতে এরূপ উদ্বাহবন্ধনের নিম্নতম অবস্থা পক্ষ জাতি এবং উচ্চস্তরের সদ্যপায়ী জীবগণের মধ্যে দৃষ্ট হয়। তাগণের মধ্যে সন্তান পালনের জন্ত পিতাধ্যতা উভয়েই পরস্পরের সংযোগে - - -- - ছু অপত্যস্নেহ পাম্পত্যবন্ধন দৃঢ় ও সঙ্কধাসের কাল চিরস্থায়ী করে। সুতরাং সত্বানপালন ও রক্ষার এগছ এ প্রবন্ধের মধ্যে প্রায়ষ্ট मृहे झ३:ग । - - o { ২য় সংখ্যা । ] মানবেতর f - -- কিৎপরিমাণ দায়িত্বগ্ৰহণ করে। পিতার দায়িত্ব অবশ্ব | নিতান্ত সংকীর্ণ। কিন্তু ইহার মধ্যে একটা কৌতুহলজনক ব্যাপার আছে, যাঙ্গার কারণ এ পর্য্যন্ত কেতুষ্ট সমকক্ষপে নির্দেশ করিতে সমর্থ হন নাই। তাই এষ্টযে, স্তষ্ঠপায়ী জীবগণ অন্যান্ত বিষরে উচ্চস্তরেয় অন্তভুক্ত হষ্টলেও অপত্যস্নেহ এবং সন্তান পালন ও রক্ষার প্রবৃত্তি পক্ষীপ্রাক্তিতেই অধিক উন্নত ভালে বিকাপপ্রাপ্ত হইয়াছে। অধিকাংশ পক্ষী তাঙ্গার সহচরী ? শাবকদিগের রক্ষাকালো বিলক্ষণ তৎপরতা প্রদর্শন করে। তাতাদের সহবাস ও অপেক্ষাকৃত অধিক দিন স্থায়ী এবং স্থলবিশেষে মানবীয় অদশত্যায়ী আজীবনব্যাপী গুর। পক্ষাস্থলে, স্তন্যপায়ীদিগের মধ্যে উচ্চতম স্তরের অতি অল্প জাতীয় জীবই আদর্শ পিতৃত্বে পৌঁছে। তাতার অত্যন্ত্র কাল মা শাবকদিগের বক্ষণাবেক্ষণ করিয়া থাকে। কেবল - মানুষ, সলাকৃত্তি বানর ựanthropoid upe) z orgar gifz মৰ্কট milkey ) ব্যতীত আর কোন স্তন্যপায়ী জাতিকে চিরজীবনের জন্ত একপত্নীক থাকিতে দেখা যায় না । যাবতীয় প্রাণীর গুণতিতাত্ত্বিক বল্পদর্শন দ্বার স্টক্লাই প্রমাণিত হয় যে, যত অল্পসংখ্যক সন্তানলাভ করিয়া পিতামাত তাহাদিগের যন্ত অধিক তত্ত্বাবধান করিতে পারে, সন্তানগণ ততই কৰ্ম্মক্ষম ও দীর্ঘজীবী হয়। যৌনসম্মিলনের ক্রমবিকাশ-নীতির ব্যাপা ইহারই মধ্যে নিহিত । কাটাদি ও মৎস্তের লক্ষ লক্ষ ডিম্ব এককালে প্রস্তান্ত হয়, কিন্তু, তাঙ্গ পিতামাতার দ্বারা আদৌ রক্ষিত না হওয়ায় শতকরা ৯৫টি শত্ৰহস্তে বিনষ্ট হয়। এই অতিসংখ্যক জন্মগ্রাহী হইতে ধরিয়া ৬ হইতে ১২টা সস্তান প্রসবকারী জীব, যাহাঁদের শিশুমৃত্যুসংখ্যা শতকরা ৫০টা মাত্র, এরূপ শুদ্যপায়ী জীবের মধা দিয়া, যাহাঁদের মধ্যে এককালীন একমাত্র সস্তানের জন্ম ও শতকর কুড়িট শিশুর মৃত্যু হয়. সেইরূপ উচ্চতম Ymm TTBB BBBBB BBB BBBB BBB দেখিলে উত্ত্ব প্রশ্নের যন্ত প্রকারের মীমাংসা কষ্টতে পারে তাহার ট্রাবস্তু তাদর্শ (Type) পাওয়া যায়। ক্রমবিকাশনীতি অনুসারে প্রাণিন্তরসমূহ যতই উদ্ধে উঠিতে থাকে, S BBBB BBBBBO BBBBBB BBB BB BBB বংশবিস্তার ও স্বগণের (species ফ্রমোন্নতি সাধন করে ; এবং মৃতষ্ট প্রতাপগতিশীল (retrogressive হয়, উক্ত - - প্রাণিজগতে বিবাহ । - - - -

( .

প্রবণতা ততই হ্রাসপ্রাপ্ত হক্টর বংশবৃদ্ধি ও উন্নতির প্রতিকূলাচরণ করে। এক্ষণে দাম্পত্য-সহবাসের কাওঁ. - - - - --& এক সপ্তান পালন ও রক্ষার প্রবণতা যত অল্প eউক না কেন, তাহার একটা নিৰ্দ্ধারিত অবস্থার পৌঁছান গেল : অতঃপর বৈবাহিক সম্বন্ধের ক্রমবিকাশের চেতুনির্ণয় কর যাক্টলে। প্রথমতঃ আমরা দেখিতে পাষ্ট ষে, উদ্বাহবন্ধনের সকল অবস্থাগুলিষ্ট জীবজন্তুর মধ্যে স্পষ্টভাবে বিরাজ কপ্লিতেছে এবং একপত্নীক বিবাহক্ট অসংথ্যস্থলে দেপা যাইতেছে । অনেকে ইহা বিশ্বাস না কলিতে পারেন : - বিশেষতঃ বঁrহার প্রাণিতত্ত্বে অনভিজ্ঞ তাহদের ধারণা এই যে, মানবেতর প্রাণিদিগের মধ্যে হয় উচ্চ স্থল সংসর্গ না চর বহুপত্নীক বিবাহই অতি প্রচলিত। এ বিশ্বাসের কারণ এই নির্দেশ করা যাইতে পারে যে, অনেক গৃহপালিত জন্তু সাধারণতঃ বহুপত্নীক, অথবা কুঙ্কুরাদির খায় স্বৈরসঙ্গমপ্রবণ । তাছাদের এই নীতিশৈথিল অবঙ্গ কতকটা মানুষের সংশুব, ও অবস্থাল পরিবর্তন জনিত বলিতে ইষ্টবে। কোন কোন জন্তু যে অপয় সকলাপেক্ষ অধিক গৃহপালা, উক্ত প্রবণতা তাহার অন্যতম কারণ এবং তাছাদের অসতর্ক ও স্বৈরসঙ্গমঞ্জনিত বংশবৃদ্ধিষ্ট তাহার প্রমাণ। বন্দ্রীকৃত জস্তুর সকল অবস্থার মধ্যে স্বচ্ছন্দে সস্তানোৎপাদন করিবার ক্ষমতা গৃহপালিত হুইবার উপযোগী একমাত্র এবং অতি প্রয়োজনীয় গুণ । সমগ্র পুথিবীতে এত রকমের স্ট্রীবজন্তু আছে যে, তাহাদের সংখ্যা হল না ; কিন্তু তন্মযো কত অল্পসংখ্যক প্রাণী মানবের পোষমালিয়া থাকে। বাহারা গৃহপালিত হয় তাহাদিগকে অঙ্গুন্সিপৰ্কে গণনা কলা ঘাইতে পারে। সে সকল জ্বস্তু যে অধিক ভয়ানক বা অধিক বুদ্ধিমান, অধিক ভাববহনপটু কিম্বা সকল জলবায়ুর উপযোগী অথবা তাহার শান্ন শায় হঠপুষ্ট হইয় উঠে, তাছা নহে। জেবরা, জিরাফ, এর, ইল্যাণ্ড, বাইসন ও ব্যাঘ্র প্রভৃতি শত শত মুন্দর ও জমকাল জন্তু রে পোযনামে না, তাহার এক মাত্র কারণ এই যে, হয় তাহলে বন্ধাবস্থায় সম্ভানোৎপাদন করিতে চায় ন, অথবী কয়েক পুরুষেই বন্ধ হইয়া বাস্থ । এবিষয়ে কেনিষ্ট সন্দেহ নাই যে, তুচর ও পেচর জন্তুর প্রত্যেককেই মানুযে কোন না কোন সময়ে ধৃত করিয়া পুষিতে চেষ্টা BBBBBS BB B BBBBBBS BB BBBBBB - -