পাতা:প্রবাসী (পঞ্চম ভাগ).djvu/৭৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৯ম চিত্র । দিয়া নিজে আক্রাস্তের বা দিক দিয়া ঘুরিয়া তাহাকে ঘুরা, আক্রান্ত গোড়ালির উপর ভর রাখিয়া ও বিপৰীত দিকে ডাওয়ি বল প্রয়োগ করিয়া যথাসম্ভব বাধা দেয় (৮ম চি৭)। স্মরণ রাখিতে হইবে যে, এই ব্যায়ামে আক্রমণকারী কখনও আক্রাস্তের ডান ধিক্ দিয়া ঘুরিবে না। যে একবার আক্রাশ্ব হইবে তাহাকেই পরে আক্রমণকারী হইতে হইবে একথা বলাই বাহুল্য , কিন্তু সেগু আক্রাস্তেল বা দিকৃদিয়াই ঘুরিবে । - আক্রাস্তের リびエ আক্রমণকারী, ধাড়ায় ; উভয়েরই - মুখ এক দিকে থাকে, কিন্তু আক্রমণ - কারীর শরীর আক্রাস্তের একটু ব: দিকে থাকে: প্রথমতঃ আক্রমণকারী - ডাওরি নীচে বঁ হাত ও উপরে ডান হাত দিয়া উহা ধরে ; আক্রাস্তু ו לאכי - ஈ_

  • -^

SMMSMSMS o প্রবাসী । ভাণ্ডার উপরে শুধু ডান হাত দিয়া উচাপ অপর মাগাদ দিকে ধরে । ডাণ্ডাথানি শরীব হইতে ছয় ইঞ্চি দুবে, উভয়েবষ্ট শরীরের সাথে, মধ্যবর্তী স্থানে নছে। মিমোদলের সমান উচু থাকে। অতঃপর আক্রমণকারী আস্তে আস্তে উহ! তুলিয়া আক্রাস্তুেব মাথার উপর দিন আনিয়া তাহীর মাথার পেছনে ও পিঠে কাধের নীচে স্থাপন করিতে চেষ্টা করে, আক্রান্ত যথাসম্ভব বাধা দেয়। ডাও যখন চলিতে থাকে তখন তিন হাতই (এক জনের দুই হাত ও অপয়ের এক হাত) সুবিধামত ভাণ্ডার উপদ হইতে নীচে ও নীচ হইতে উপরে যাইতে পারে। ডাও যখন আক্রাস্তেব মাথার উপর দিয়া গিয়া পেছনে নীচে নমিতে থাকে, তখন আক্রমণকারীব জয়লাভের আর সন্দেহ থাকে না। তথাপি প্রথমতঃ লে ডাণ্ডাপানি আরও এত দূব নামাইলে যে, আক্রাস্ত একেবালে কিরিয়া দাড়াইতে বাপ্য হইবে। ইহাই ৯ম চিত্রে অধিত হইয়াছে। আক্রান্ত যখন বা হাত দিয়া ভাও ধরিবে, তথন আক্রমণকারী তাহার ডান দিকে দাড়াইয়৷ এই রূপ ব্যায়াম করিবে । ১৪। দুই জন মুখোমুখি হইয়া দাড়ায় ৪ কোমরের সমান উচু করিয়া দুই হাত যি ডাণ্ড বয়ে (ধরিবার কৌশল প্রথমোক্ত ব্যায়ামের মত)। পরে দুই জনই সম্মুখে এত দুষ্ক বাকে যে ভাওখনি ঠাঁটুর একটু নীচে থাকে। এই ১০ম চিত্র । - - ت o قعد ھے يمس ৫ম ভাগ । ৩য় সংখ্যা । ] - - l অবস্থায় আক্রমণকারী আক্রাস্তকে উক্ত ১২নং বায়ামে মেরুপ বলা হইয়াছে সেইরূপ ঘূৰাইতে থাকে (১০ম চির)। উভয়েই শুধু ৬ান হাত দিয়া ডাগু ধয়িত্ত্বা এই ব্যাপ্লাম করিতে পাবে। শুধু বা স্থাত দিয়া ভাও ধরিয়াও ইহা করা যায় ; কিন্তু তথন আক্রমণকারীকে আক্রাস্থের ভাল দিক নিয়া ঘুরিতে হয়। এইরূপে অধোমুখ হইয়া সুধিতে একটু কষ্ট বোধ হয় বলিয়া বালক বালিকার স্থাযথ মাংসপেশ বল প্রয়োগ না কবির শুধু বুলিয়াই এই ব্যাবমিট 0KKK YK SEB BBB BB BBBS BBYB BBB ফাঁক দিতে না পাবে তত্ত্বাবধায়ক তৎপ্রতি দৃষ্টি রাখিবেন। শ্ৰীনগেন্দ্রচন্দ্র সোম। চীনদেশে নাট্যাভিনয় । আমাদিগের দেশে যেমূল অনেক সহরে এবং কোন কোন পল্লীগ্রামে সূপেল ও ব্যবসায়ী যাত্র ও নাটকের দল আছে, চীনদেশেও তাংশ নানা সহবে এল অনেক বদ্ধিযু পল্লীগানে সখের ও ব্যবসায়ী নাটকের দল আছে। কত দিন হইতে বঙ্গদেশে নাট্যাভিনর প্রথা প্রচলিত আছে জানি না । আমার যত দুর ধারণ, তাহাতে বোধ হয় গ্ৰায় ৩০ কি ৩৫ বৎসর কাল হইতে ইংরেজী থিয়েটারের অনুকরণে বঙ্গদেশে থিয়েটারের প্রচলন হুইয়াছে। আবাপ আমাদ্বিগের দেশের মত ব্ৰহ্মদেশের বড় বড় সহলেও ইংরেজী ধরণের থিয়েটারের চলন দিন দিন বৃদ্ধি পাইতেছে। কিন্তু টানদেশে নাট্যাভিনয়ের প্রথা অতি প্রাচীন কাল হইতে প্রচলিত আছে। এ বিবয়ে প্রশ্ন করিলে কোন শিক্ষিত চানদেশী ভদ্রলোক বলিলেন যে, চীনদেশে নাটক ও নাট্যভিনয় প্রথা প্রার পাচ হাজার বৎসর কাল হইতে প্রচলিত হইল আসিতেছে। যত দিনই হউক, এ বিষয়ে চীনাদের মৌলিকত্ব ও প্রাচীনত্ব স্বীকার করিতেই হইবে। • চীনদেশে সহরে সহরে এবং প্রধান প্রধান পল্লীগ্রাম সকলে যত দেবমন্দির অাছে তাহার অধিকাংশেই স্থায়ী নাট্যশাল আছে। দেবনন্দিরগুলির বহির্দেশের দৃশু অতি মনোহর। বঙ্কিদেশের সদর দরজ অতিক্রম করিয়া ভিতরে গেলে এক প্রশস্ত অঙ্গিনা পেখিতে পাওয়া যায়। সদর দরজার চীনদেশে নাট্যাভিনয় । `8ෆ উপরে কাষ্ঠনিৰ্ম্মিত দ্বিতল গৃহ এবং আঙ্গিনার উভয় পার্শ্বে৪ অনেক স্থলে ঐ প্রকায় দ্বিতল গুহ । আঙ্গিনার সম্মুখে উৎকৃষ্ট দেবমন্দির। এই মন্দিরে নানা উপ-দেবতা সকল থাকেন । এষ্ট মন্দিরের পশ্চাতে আর এক আঙ্গিন । ভাগল সম্মুখে যে স্বন্দদ দেবদন্দির তাঁহাই প্রধান দেবনন্দিল বলিয়া গণ্য। উপরে উল্লেপ করিয়াছি যে, সদর দরজাব উপর এক দ্বিতল গুহ থাকে। ঐ দ্বিতল গুহই নাটকাভিনয়ের স্থান। ধর্শকরুন আঙ্গিনার পাশ্বস্ব একতল ও দ্বিতল গৃহ ও সন্মুখস্থ উপ-দেবমন্দিরে আসনগ্ৰহণ করিয়া থিয়েটার দশন কলিয়া থাকে। প্রায় প্রতি পৰ্ব্ব উপলক্ষে ও নববর্যের উৎসব উপলক্ষে এই সকল স্থায়ী নাট্যশালায় নাটকাভিনয় হইয়া থাকে। লেবমন্দির সকল ভিন্নও যেখানে যত ইয়ালিন বা কাছারিবাড়ি আছে তথারও স্থায়ী নাট্যশালা সকল নিৰ্ম্মিত বহিয়াছে। কোন উচ্চ রাজকৰ্ম্মচারী স্থানান্তরে ধৰল হইলে বা স্থানান্তর হইতে নূতন কেছ আসিলে কএক দিন এখানে নাটকাভিনয় হইয়া থাকে। ইহা ভিন্ন রাজকৰ্ম্মচাষিগণের ইচ্ছানুসারে এবং কোন বিবাহ উপলক্ষে বা রাজকৰ্ম্মচারিগণের জন্মোৎসব উপলক্ষেও এই সকল কাছারিবাড়ার থিয়েটারে নাটকাভিনয় ও আমোদ প্রমোদ হইয়। থাকে। চনাদিগের থিয়েটারের পোষাক মূল্যবান এবং উছ জীর ও নানা কারুকাৰ্যখচিত। পাগড়ি, জোব্বা,মুকুট এব: কৃত্রিম গোফ দাড়ি প্রভৃতি মোগলাই ধরণের। চীনাদের থিয়েটারের পোষাকের সঙ্গে পুরুষের জার্তায় পোষাকের বিশেষ মিল নাই। কিন্তু স্ত্রীলোকের পোষাক অনেকটা মেলে বটে, যেমন আমাদিগের দেশের থিয়েটার ও যাত্রার পোষাকের সঙ্গে বাঙ্গালীর জাতীয় পোষাকের বড় মিল नाझें । । এখানে যত থিয়েটার দেখিয়াছি, তাহাতে ড্রপলীন ব: যবনিক দেখি নাই এবং অধিকাংশ স্থলেই অভিনয়ের কক্ষটীর কাষ্ঠনিৰ্ম্মিত প্রাচীর নানা মনোহর চিত্রে রঞ্জিত। স্বতন্ত্র দৃষ্ঠপট অনেক স্থলে নাই। খাদ্যযন্ত্রও বিলাতী কনসাটের ধরণের নহে। বাস্থ্যকরগণ প্রায়ই অভিনেতা ও গায়কগণের পশ্চাতে থাকিয়া বাদ্য করিয়া থাকে । বাছময়ের মধ্যে ছোট একটি কি দুইট টকার বা কাড়, এক - -