পাতা:প্রবাসী (সপ্তদশ ভাগ, প্রথম খণ্ড).pdf/১৩১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


২১২ প্ৰবাসী—জ্যৈষ্ঠ, ১৩২৪ [ ১৭শ ভাগ, ১ম খণ্ড দিতেই হিণী আমাৰ এই হাত চেপে ধরে বলতে চানক বিপজ্জনক। বাস্তাটা বা ছিল একবার লাগলেন, “তুমি নয়, এতে ভারি বিপদ আছে। তুমি হাকালেই অন্তত ছ সাতজন লোকের দা নিকেশ হবে গাড়ী করে’ নিয়ে গেলেই ঠিক হয় দিতেই বলে উঠল, এটা একজন সাগুও সৈনিকের দিতেই বলল, “এমন সময় পী পাবে কোণার কাজ। ভাগো ধানে এখানে ছিলেন । যে কথানা ছিল, সখ কটাই ত যুদ্ধের হাসপাতালে মানুহ কানে চমকে উঠে বললেন, “আঁ আনি ?” বইবার জন্মে নিয়ে গিয়েছে : স্থা, স্থা, তুমিই। তোমরা ত এইসব নিয়েই আছ, হঠাৎ বাপ্তেন বলে উঠল, “ভাল কথা, জেনারেল দি দেৱ হোক্কাগুলো যেমন মাৰ্ব্বেল আর যানুস নিয়ে ঐ একটু দুরে ত্ৰেধার হোটেলে খান খেতে গিয়েছেন। লে,তোমরাও ত তেমনি গোলাগুলি আর বোমা নিয়ে তিনিই ত আমাকে এখানে নামিয়ে দিয়ে গেলেন । তার গাড়ী নিশ্চয়ই ওখানে দাড়িয়ে আছে, আমি সেটা চেয়ে কাপ্তন সাহেবের মুখখানা ফাকাশে হয়ে এল, তিনি আনি যিহে। নিশ্চয়ই গাড়ীখান দেবেন, তিনি আমাৰ ললেন আমাকে যদি মাপ করেন। এত বড় বোনাটা - মন্ত বন্ধু । কতটুকু সময়ই বা লাগবে অামার কোর জা, এক কাজ করণে হয় না ? অ’ এটা এখানেই থাক বন্ধটা পরে” নেওয়া, আর ঐ অত যাওয়া আর আসা কাল লোক ডেকে পাঠিয়ে দিলেই হবে।” দশ মিনিট কি বড়-জোর পনেরো মিনিট । ” দিতেই গৃহিণী প্ৰায় কাদাল হয়ে বললেন, “কাল ? দিতেই গৃহিণী বললেন, শিগগির যাও তাহলে । ওটা আমি তা হলে সারাৱাত চোখ বুজতে পারব না অামি বিদায় হলে তবে আমার ধড়ে প্ৰাণ আসে । বরং কোনও হোটেলে গিয়ে থাকি।” “নিশ্চয়ই, নিশ্চয়ই, আমি এক্ষুনি যাচ্ছি, এমন সময় আনাতো আস্তে আস্তে এগিয়ে এসে সাহেব নিজের টুপী আর ক্লোব নিয়ে চট্‌পট্‌ বেধিয়ে গেল বলল, আপনি এত ভয় পাবেন না। আমি বোমাটা নিয়ে বে ব্লক হুড়মুক্ত করে’ সিড়ি দিয়ে নেমে গেল, তাতে বেশ বাছি বোকাই গেল যে, তার যাবার তাড়া খুবই বেশী । সকলে হা হা করে উঠলে, দিতেই বলল, “তোমার আমি ফিরে এসে ধরে কলাম, বোমাটি তখনও মাথা খারাপ নাকিহে ছোকরা ? এই সেদিন সব থেকে গানে বিরাজ করছে। দিতেই-গৃহিণী ঘর ছেড়ে পালাবেন, উঠলে এখনও ত হাতথন সারেনি। বাড়ীটা উচিয়ে দিতে না সোমাটার উপর চোখ লাখবেন, তাই ঠিক করতে পা;ে চাবুকি ? ছিলেন না । আমি জানার কাছে দাড়িয়ে আচাৰে আদি বিভাবে মাথা নেড়ে বললাম, “ঠিক কথা, এ রাস্তাৱ দিকে তাকাছি লান। দুটে চাঁদের আলোয় বেশ অনেক দূর পর্যন্ত দেখা যাছি দিতেই বলতে লাগল, "এটা কাণ্ডেনেরই কাজ আনাতোল নীচু গলায় বলল, “আমাকে নিয়ে যেতে ছায়া অার কাউকে আমার বিশ্বাস এস হে, দিলেই হত গিয়ে এস, এই বিদঘুটে জিনিট, সবিয়ে ফেল, আমাদেরও দিতেই ধন দিয়ে বলল, চুপ কর, মেলা বাজে কৰ দাম দিয়ে অৱ ছাড়ক বোকো ন । সে কিন্তু এই রোগা ছেলেটার অাশা সাহ কাপ্তেন সাহেবের অবস্থা যে কাহি, তা বেশ বোঝাই দেখে অবাক হয়ে গিয়েছিল বাছিল। কিন্তু এত সহজে হটে যাবার ছেলে সে নয় দিতেই গৃহিণী কাতার সুরে বলতে লাগলেন, ‘বানে সে জোর করে একটু কাহাসি হেসে বলল, “ই কাজটা যদি বেশীগণ আমাদের বসিয়ে না বাখেন তা হলেই আমার উপরই পড়া উচিত বটে। তা আমি একটা কথা বাচি । বলতে চাই। এমন জিনিষ নিয়ে পায়ে হেঁটে যাওয়া আমি হাতে-হাসতে বললাম, সে বিসয়ে নিৰ্ম্মি ২য় সংখ্যা দেশের কথা থাকতে পারেন, বসে আপনাদের অনেকগুণেই থাকতে হৰে, কারণ কাণ্ডেন সাহেব আর ফিরছেন না দেশের কথা কি বল ; আর ফিরবেন না আমাদের দেশের কথা শুধু-অভাব? অভাৰ অভাব নিশ্চই না, ৱেবার হোটেলে যেতে হলে ত বাস্তাৱ আয় অল স্বাস্থ্য অৰ্থ চিকিৎসা বিদ্যা বাহ ধৰ্গা সব কিছুর ডানদিকে মোড় ফিরতে হয় ; আমি বেশ দেখলাম তিনি অভাব। ইহারই মধ্যে মফস্বলে জলের শতাৰ তীয় ইয়। দিকে নো ফিরে চেঁচা দোঁড় দিচ্ছেন উঠিয়াছে ; রোগের সংবাদও পাওয়া যাইতেছে। ওমা তুমি বল কি কি আবার বলব, বলছি এই যে, বন্ধু তিতেই, তোমার সরকার মহাশয় পীৰামে চিকিৎসক সরবরাহে প্ৰাৰ থাপন করেন। উচ্চ শিক্ষিত ডাক্তারগণ পীিগ্রামে যাইয়া থাকিতে পারে কানেট একটি মস্ত বড় বন্দিৰাজ , আর তার সব জারী না সি ভেঙ্গে দিতে পেরেছি বলে ’ আমার বোজার আনন্দ তাকে সরকার প্রস্তাব করেন যে, বঙ্গের মেধাবী, ৰাঙ্গালাপি সুবকণিকে বাঙ্গালা ভাষার সাহাঘো মোটামোচী ভাড়ারী শিক্ষা দিয়া যাক বোমাটা কাজে লাগল বটে ! পীগ্রামে পাঠান হউক, তাহা হইলে দরিদ্ৰ যামবাসীর পক্ষে চিকিৎসা এই বলে, একথান বির বই তুলে আমি বোমাটা হলত হতে পারে। তিনি জিলাৰ কবিয়া দেখাইয়াছেন যে বা শৱ ধাই করে’ এক দা লাগাণাম । অমানি চারধারে এই প্ৰস্তাব কাৰ্ঘ্যে পরিণত হইলে দেশের যথেষ্ট হয়ে-চোকোলেট ছড়িয়ে পড়ল । বোমাটা কোলেটেরই তৈরী : ঘরের গালিচার উপর কুকুর উপকার হইবে সন্দেহ নাই। কিন্তু রোগের নিদান দারি রেলজেন্দ, ঢোকে লেট, বিস্কুট, বাদাম, আখরোট, আরও দুর করিবার চেষ্টা সৰ্ব্বাগ্রে করা দরকার । দারিদ্র্যে ভিন পল । রসুন্তু লোক প্রশনটা অ্যাংকে উঠে পেষণ হইতে দেশের লোককে মুক্তি দিবার চেষ্টা বা উপায় সম্বন্ধে আমরা জানিতে পারিয়াছি হসে উঠ ৷ সামে তাকে ক্ষেত —গত এক বৎসরে রাজদেশে বা প্ৰকৃতি আনাতোলের সঙ্গে গ্যাত্ৰিদের বিয়ে মুর দেশ হইতে প্ৰায় ৭ কোটি টাকা চিনি আসিছে চিনির র নিবণে কাপ্তেন রোবিয়াকে লেখিনি বিদেশে এতগুলি টাকা প্ৰেৱল করা কি সহজ ? নাম হইতে কী, মাশার সংবাদ আসিয়াছে । সেখানে পৰ্ণমেণ্ট ৰি ক্ষেত ও চিনি কাৱধােনা পুলিতেছেন । উত্তর কামতপের থাগাৰাষ্ট্ৰী মাদক ৰে তিন শত এক মিতে প্ৰ জাকের ক্ষেত করা হইছে । ক্ষেতে উৎ আকে গ্নিছে । এক শত মুণ আন্তে ১৪ শ তি আলুর দম্ বখশীশ পর চিনি পাওয়া যাইতেছে। প্ৰত্যেক একর জমিতে খাবােৱ এক ভারী আংরেজী-জােনা গাহক বঙ্গালী বাবুর ২৫ টন পৰ্য্যায় আক জৱিছে। উৎকৃষ্টতর ব্যবস্থা হইলে বারো বি বিৰে বলি। আশা করা । কিিষ্ট নেিয়ছি েয কাৰ্ণাইল ভাগী আলুর দম থেতো । চারিদিকে বিস্তুত জমি হিয়াছে , তাহাতে বাধা ছিলে বৰ্গমের মাকের কৱবাৱ চলিতে পাতিৰে । দেশেও অনেক বিী নের এক কেতাৰে আছে জমি পড়িয়া হিয়াছে । সেখানে একবার পীক্ষা ৱিা দেখিলে Had but two potates in the well and one true idea, I should hold হয় না ? ব্ৰহ্মদেশের মিতে যদি আসামের স্বাগ ফল পাওয়া যায় my duty to part with one তবে বৈদেশিক চিনির রপ্তানী অচিরে বন্ধ করিতে কোন ৰাখা হইবে for paper and ink, and we can the other tº ন।--মোতি হদের হার —দেশের মহানদের অত্যধিক স্বদেৱ দাসে মেয়ে আজকাল তো বিলাতে আলু ভাবী মাহাঙ্গা হোছেছে, কুক সাধারণ চিরদায়িতো । বিয়া হিচাচ্ছে, তাহারা পায় যা পাওয়াই যায় না। ইহার জন্তু আংরেজী সাহিত্যের অবস্থা তুলিতে পারিতেছে না জীবন সংগ্ৰামে টিকিরা থাকিবা সামৰ্থ্য মাই সত্য, কিন্তু তাহাৰা কেমন হইবাছে, সে বিষয়ে যাহার লেখা খুব উন্মুদা হোৰে মহাজনের নিকট ঋণা স্বদেৱ অদ দিতে দিতে নোকে আমি খুব বা বা দোচার আলুর দম বখশীশ জীবনেও তােহাৱা সেই ঋণ শোধ কৰিতে পাছে মা দেবো । কুছ মশালা উী উহা সাগ দেবো। ধানিটে না। মহানদের এই অত্যাচার হতে দরি জাপুকে দয়াপট ঐথানীরাম হালুইকর ।