পাতা:প্রবাসী (সপ্তদশ ভাগ, প্রথম খণ্ড).pdf/১৫৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


২৫৮ প্ৰবাসী—আষাঢ়, ১৩২৪ [ ১৭শ ভাগ, ১ম খণ্ড হাতে সন্দেহ নাই। মৃত্যু তাহাকে পরিবারের বাহিরে পক্ষান্তরে, কতকগুলি ক্ৰিয়াকলাপ, কতকগুলি বিশেষ পন কৰে , পতিত ব্যক্তির দেশের স্নায় সেই শবদেহের দেবতা প্ৰতি ভক্তি কোন কোন বৈদিক পরিবারে ও অধিষ্ঠান নিকট-আী দিগকে অশুচি কম্বি বিশেষত্ব ছিল । প্রাচীন রোম ও গ্ৰীসের পরিবার-মণ্ডলীতেওঁ (৮) আমরা যেন মনে রাখি, যে অনুষ্ঠানের দ্বারা এই ৰূপ ধৰ্ম্মবিশ্বাসের বিশেত্বে ছিল। Gendদিগের ভিতর কোন বাকি জাত হইতে বহিত হয় সেই অনুষ্ঠানটি পৰ্য্যন্ত কতকগুলি বিশেষ পূজাপদ্ধতি ছিল ; কতকগুলি অন মৃত্যুর সহিত একান্ধীকৃত হইয়াছে ; উভয় গেয়েই, সাধারণ ক্ৰিয়াকলাণ ছিল অক্টোরিার অনুষ্ঠান হয় । শোকের সময়ে আীয়জুন ভারতের অনেক স্থলেই, সম-সাধারণ পূৰ্ব্বপুৰুবের শোগ্ৰস্ত হয়—এই যে ধারণা, ইহা সমস্ত প্ৰাচীন অৰ্বে কোন সুপসি , পিন্ধপুকদের পূজাপদ্ধতি, খ্ৰীসরোপীয় বুগে ধারণা অধিষ্ঠানের নৈকটা অশৌচ সংক্ৰানিত করাই দিলেও এ-কথা পুৰুষ হইতে খ্ৰীতে ও ভূতো সংক্ৰমিত য বলা যায় না যে, ইহা জাতের একটা বিশেষ লক্ষণা অতএব যাহাতে অশৌচস্থ প্ৰস্তু হইতে হয় এক্ষেপ ছিনি বা স্বাধীন দাৰ্শনিক স্থিা . প্রভাবে, ভারতবর্ষে ধৰ্ম্মসংক্ৰা লোকেত্ব সংস্পৰ্শ সহকারে পরিহার করিতে হইবে বেশ এক অগ্রসর হইয়াছে ; অপ্ত, যা সেইসকল লোকের সংস্ত্ৰৰ বৰ্জন কহিতে এইবে, বাহা নৈ" কে বাবগণ ও প্রতিষ্ঠিত হওয়ায়, এই দৈৰ কারণে অশৌচাগ্ৰস্ত না হইলেও এক জল ও এক-অগ্নি শাল বন্ধ হইয়া পড়িয়াছে ই রাষ্টনৈতিক বাৰস্থাপতি আচরণীয় মণ্ডলীভুক্ত নহে বলিয়াই অশুচি বলিয়া পৰি ধৰ্ম্মবিশ্বাস-সংক্রা কোন নুতন প্রবর্তনের এ গণিত। জাতের ভিতর এই নিয়মের পরিপুষ্টি সম্পূৰ্ণ পেই বিরোধ। স্নাথ ধৰ্ম্ম, স্থানবিশেষে সীমাণ হইতে পারি ছে, সংগা গঙাশে পি ভক্ত চাইতে পারিয়াছে, এবং জাতের পঞ্চাৎ সভা ও সেই সভার একটা সীমাবদ্ধ সময় বিশেষে ৫৪৭ স্বাধীনতার সহিত আপনাকে একস্থান চার-এলাকা—এসম্বন্ধেও পূৰ্ব্ববী দৃষ্টাস্তের অভাব নাই । প্ৰাচীন গ্ৰীসে, রোমে, ও মৰ্ম্মানীতে একটা পারিবারিক স্বাধীনতা প্ৰাচীন বোন ও গ্ৰীসদেশে অপবিজ্ঞাত ছিল তা ছিল,কোন —যে সভা পরিবারের পিতাকে তই শুধু আচারব্যবহারের মসেই ভাবে ঐতিহত পাৱ উপলক্ষে বিশেষত অপরাধী পুবে বিচার-উপক্ষ সাহায্য করিত। জাতের বহিরণের স্থলে পরিবারের শ্ৰীজ্যোতিরিনাথ ঠাকুর বিষয়ণ হইত। উভয় ক্ষেত্ৰেই এই বহিস্করণের পদ্ধতি মান ভীতিজনক । লাটন তামাৰ ই শুক্তি অৰ্থাৎ বহি) শব্দের দ্বারা পরিবাত ইয়াছে রোমক চরণে বিলিয়া বগের মধ্যে এই বহিরণ পদ্ধতি এমন একটা া রাষ্ট্ৰীয় অবস্থার সৃষ্টি করিয়াছিল, যাহা পতিত হিন্দুর গিৰাছ কবে নাহি স্মরণে, অম্বাই অনুক্ষপ লাটি Gens নামক জনমণ্ডলীর অহিও দুটি পায় আলতা হে হি একজন মোল ছিল যে ব্যক্তি তদন্ত ক লোকদিগের শোণিত-লেপা তব চরণে মোক শুক্তি-হিয়া সম র বিচার কতি । Gientesদিগের বিচার-নিশক্তি দলিত হৃদি মন Cityফাক সন্মানিত হইত। জাতের মতো Germs এর পাটল শোণিমা ৱাডিয়া, অদ্ভুক্ত লোকেরাও কতকগুলি বিশেষ প্ৰথা মানিয়া মরম-পুটে বুহে জাগিয়া পরিমলকুমার ঘোষ ৩য় সংখ্যা ]] সাংখ্যের মোট সিদ্ধান্ত সাংখ্যে প্ৰকতি কাৰ্য্যকারণ সোপানের -মাত্ৰ পাচটি সবে ১. সহস্তমোগুণের সামাবস্থা প্ৰকৃতি । (২) প্রকৃতি হইতে আসিল বুদ্ধি () বুদ্ধি হইতে আচিল অহঙ্কার । অহা হইতে আসিল প ত্ৰ । তথৈব মন:প্ৰধান একাদশ ইন্দ্ৰি । () পদ গান হইতে আপিল পঞ্চ স্থা, ণ এই পাঁচটি পৈট একে যথাক্রমে পালোচনা ফৱা বাইতেছে । কালিদাসে মেমতে শোকের প্রমে ইষ্ট চণ এই — সাংখ্যের মোট সিদ্ধান্ত তবেই হতেছে যে, সোপান পঞ্জি সিড়ির ধাপ আমার একজন সানাপদ বণু আমাকে বলিলেন খে, প্ৰাচীন হিনীভাগা বেদান অৰ্থে অৰ্থাৎ ইং হালীতে যাহাকে বলে সেই অৰ্থে, শাহ শখ বি কুরি ব্যবহৃত হইয়াৰে । কিন্তু ºr few to the stry ya leader there tº that a

অতএব এটা স্থিয় যে, বা

সোজা কথাটার কেহ যদি মশ-মাতিতে কানান-পাতা-ঘেৱে থাধিত matcat denoastration ) , তবে তিন প্ৰণিধান কন জানা কথা স্থি-ইষ্ট থি ; গাইট -- পংক্তি জাৱ এটাও যখন স্থির যে, তথৰ, কাজেই, পংড়ি = পইট ক্তি ; পাঠ --শাহ । ক দেখ ই ! পই - “হট : কী গই , পইতা – সঁইট : ৭ইট এটা ধৰম হিব যে, পাটত । পাছত পঁইট : পইট আৰ এটাও যখন স্থির যে, পহত-পইতা ! থ দেখ } তখন, কাজেই পাই-পইচা৷ তবে প্ৰমাণ হইল যে, পংক্তি- গাঁহট -- পটা, e very volle has its catetion, জান, সেই, এটা দেখা পাই যে, প্ৰথম পৈটা ত্ৰিগুণ প্ৰকৃতি । জিজ্ঞাসু সৱজস্তমোগুণ কোন্‌জাতীয় পদাৰ্থ বা-পদাৰ্থ না গুণ-পদাৰ্থ ? প্ৰবোধস্থিতা । গুণই বা তুমি বলিতে কাহাকে বন্ধই বা তুমি বলিতেছ কাহাকে জিজ্ঞাসু । ঐ সরস্বতীর প্রতিমা-খানির সাদা রঙ যা অামি চক্ষে দেখিতেছি তাহাকে বলিতেছি গুপ্ত , আমি ঐ সাদা রঙের আবরণের মধ্যে যে-একটি মাটির মুষ্টি ঢাকা পড়িয়া হিয়াছে তাহাকে আমি বলিতেছি নজ । প্ৰবোধস্থিতা । তুমি যাহাকে বলিতে গুণ, তাহাঁই কেবল আনি দেখিতে পাইতেছি ; যাহাকে বলিতে বস্ত তাহা আমি দেখিতে পাইতেছি না বস্তুটা আমাকে দেখাইতে পাৱ কি ? জিজ্ঞা ? অতি সহজে দেখাইতে পারি—বিশেষত সাদা রং যখন এনে পৰ্য্যন্ত কাচা হিয়াছে। এই দে সাদা ও মুছিয়া ফেলিলাম। সেইবে সাদা রঙ বাহা পূৰ্ব্বে দেখিয়াছিলেন তাহা গুণ, আৱ, এইযে মা মূৰ্ত্তি যাহা এখন দেখিতেছেন ইহা গুণ নহে ; ইহা তত্ব প্ৰবোধবিতা । পুকো আমি দেখিয়াছিলাম সাদা ও ; এখন আমি দেখিতেছি মেটে রঙ । তুমিষ্টি বলিতে চাওলাদা ও গুনা, আর, মেটে রঙ কাত্ত তা যদি বলেন-- তবে একখানি চওড়া গোচের চুবি যদি আপনার এখানে থাকে—আমাকে একবার তাহা দিন প্ৰবোধতি । এই লাও — এতে হবে তো ? জিজ্ঞাসু যথেষ্ট হবে ;-এ তো চুরি নৱ—এবে ছো : এই দেখুন-প্রতিমা-খানিৰ গা-থেকে সমস্ত মাষ্ট আবরণ চিা চুচিয়া নিঃশেষিত করিলাম এই যে দেখিতেছেন ধড়-জড়ানো কাঠ— ইহা নিছক ) পদ এপ য়ের গাইট সোপান পলিসিডির পৈচা