পাতা:প্রবাসী (সপ্তদশ ভাগ, প্রথম খণ্ড).pdf/২৬৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৩৬ প্ৰবাসী—ভা, ১৩২৪ পালি সাহিত্যের সংবাদ সবিশেষ রাখি না,কিন্তু সেখানেও স্বাক্ষগুলির কেন্দ্ৰ ভগবান তথাগত বুদ্ধ প্ৰাচীন কাৰ্য্যাবলি, জীবনকাহিনী, সুখদুঃখ, সৌভাগ্য-দুৰ্ভাগ্য, সৰ দালা সাহিত্যেও রাজা, রাজপুল, ধনী বণিক (যথা দেশেই বহুকাল ধরিয়া কাব্যের বর্ণনীয় বিশ্ব বলিয় কনপতি, শ্ৰীমন্ত, চাদসদাগর) প্ৰতি মহাকাব্যের নায়ক বিবেচিত হইয়াছে দরিদ্রের জীবন-কথা, সুখং তৰে পকথায় রাজার পুত্ৰ, মীর পুত্ৰ, সদাগরপুত্রের আশানৈরাৱে কাহিনী, অথবা তাহাদেৱ সঙ্গে সঙ্গে ফোটালের পুরেও দৰ্শন পাওয়া যায় কোন চিত্ৰ, বহুকাল ধরিয়া কাবো স্থান পায় নাই ; তাহা কোন দ্বহাকাব্যে নীচজাতীয় ব্যকি নায়ক বটে, কিন্তু সে বেন কাব্যজগতের বাহিরে, সাহিত্যক্ষেত্রের পতিত লোক দেবতার কৃপায় উচ্চপদে আরোহণ করিয়াছে ; কবির নাকনায়িকার সহচর-সহচরী, বস্ত বা সখী, তা বা উন্ধে দেব-মাহাত্ম্য-প্ৰকটন ৰথা চণ্ডীতে কালকেতু দাসীভাবে এই সব প্ৰাকৃতজনের সামান্য একটু উ ৰাৰ)। বৈষ্ণৰ-পদাবলীতে রাখাল-বালক ও গোপবালার থাকিতে পারে, প্ৰতিমার সম্পূৰ্ণতার জন্য প্রতিয়া সখ্য প্রেমের কথা আছে বটে, কিন্তু মনে রাখিতে হইবে আশে-পাশে তাবাদের সামান্য একটু স্থান হইতে পারে যে প্যায়ী প্লাজার নদিনী ও শ্ৰীকৃষ্ণ গোপরাধের ( পালিত তাহারা অনুগত ভক্ত বিশ্বন্ত অনুজীবী বলিয়া কবি পুত্ৰ ( এবং ভগবানের অবতার প্ৰশংসাভাজন হইতে পারে, কিন্তু তাহাদিগের নিজের স্বতন্ত্ৰ ইংরেজী সাহিত্যে, এবং ইংরেজী সাহিত্যের মারফত ইতিহাস, দুখ-দুঃখের কথা, আশা-নৈরাশ্যের কথা, বিয়া আমরা ইউরোপীয় বে-সৰ প্ৰাচীন ও আধুনিক ভাষার সাহি- মিলনের কথা, সন্তোগ-বিগ্ৰলষ্ঠের কথা, মছক-দেবছো। তার সংবাদ পাই, সে-সকল সাহিত্যেও এই পুরাতন ধারাই কথা কাব্যের বিষয়ীভূত নহে রবীন্দ্ৰনাথের ভাষা--- দেখা যায় । ব্যাস-বাক্ষ্মীকি, কালিদাস-ভবভূতি, ভারবি-মাঘ তাহারা কাব্যের উপেক্ষিত তাহাদিগকে প্রাধা দিল হৰ্ষ, দণ্ডি সুবন্ধু-বাণভট সম্বন্ধে যে-কথা, হোমার-ভাৰ্জিল, কাবো রসভঙ্গ হয়, কবিকল্পিত সুন্দর জগৎ ংসিত ইলিস-সঘোঙ্গীল-ইউরিপিডিল, এরিয়টো-ট্যাসো-বোজাৰ্ভে, হইয়া পড়ে, কবিয়ে ইন্দ্ৰজাল টুটিয়া যায়, ক্যারিন ক্যামইন প্ৰভৃতি গ্ৰীক, ল্যাটিন, ইতালীয়, ধারার কবি ও অলঙ্কারিকগণের দেন ইহাই স্বাগ। শ্যানিশ, পর্তগীজ ভাষার সাহিত্যের কবিগণ সম্বন্ধেও সেই সম্ভামণ্ডলী হাত লিবেন,—উচ্চবংশীয় নাকাঙ্কিা কৰা দত্তের মহাকাব্য অন্যান্ত মহাকাৰ হইতে বিভিন্ন প্ৰণা বৃত্তাৰনে চমৎকায়িত্ব মনোহায়িত্ব আছে, ইহাতে লীতে চিত, কিন্তু উছাতেও বহু ইতিহাস-প্ৰসিদ্ধ অভিজাত যোণ ঘনীভূত হয়, হৃদয় যে প দ্রবীভূত হয়, আম শ্ৰেণীয় লোকের পাপ-পুণ্যের কাহিনী লিপিবদ্ধ হইয়াছে বেরুপ গভীর হইয়া মানসপট মুদ্ৰিত হয়, সাধারণ লোকে শ্ৰেষ্ঠ ইংরেজ কৰি শেক্সপীয়ারের নাটকেও এই ধারা বৃত্তায়ণনে সোপ হয় না ৰজা আছে। এইসব নাটকে রাজা, রাজপুত্ৰ, সেনাপতি বিখ্যাত বিলাতী সমালোচক ব্ৰাজুলি (Bradle যা অক্সান্ত অভিজাত ব্যক্তি নাচকের স্থান অধিকার কবিয়া টাজেডির স্বল্পপবিচার-প্রসঙ্গে অনেকটা এই ধৰণে আছেন। মিল্‌টন দেবাহুর-যুদ্ধের ও আদিম মানবদম্পতীর কথাই বলিয়াছেন। তিনি বুঝাইয়াছেন যে, অথবা ইয়াৰতাৱে অথবা বিহুদী বীর সাম্সনের বৃত্তান্ত- শ্রেণীর নাহকের দশাবিপৰ্য্যয়ে শোকাব্য বোপ অৰ্থ নে ব্যাপৃত। স্পেনসারের কাব্যের সৰ্গে সৰ্গে বৰ্ণিত বাধে, পাৰ্থিব বিভবের অনিত্যতা, অষ্টের পঞ্জি বীরগণ (Knights) হয়ত অজাতকুলশীল বা হীন... নীচৈৰ্গদ্বাপরি চ দশা চক্ৰনেমিক্ৰমণ, ইত্যাদি দৰ্শন লোৎপ, কিন্তু তাহারা নিজ শৌৰ্য্য দায্য প্ৰকৃতি গুণে হৃদয় যে প আলোচিত হয়, নিয়শ্রেণীর লোকের চুল অভিজাত-শ্ৰেণীভুক্ত হইয়াছেন। তাহারা প্ৰত্যেকেই দৈ-নৈরাগের কাহিনীতে সেপ হইতে পায়ে না। আমাদের কবির কথা বলিতে পারেন, দৈৰ কুলে তিনি দুষ্টান্ত-স্বঙ্কপ শেক্সপীয়ারের King Leaf জন্ম, মায়ং তু পেী ছকটিকে শলিকের বৃত্তান্তে একটু রকমফের দেখা যায় সাহিত্যের পুরাতন ও মূতন ধারা A King Lear of the Steppes ও চারণগণকে পুৱাত করিতেন । এই আদানপ্ৰাসে করে তুলনা করিয়া কথাটা সমকাইতে পরামৰ্শ দিয়া- কাব্যের, গানের, গল্পের, ছড়ার উত্তৰ ও উন্নতি হইছিল ৰে। উক্ত সমালোচক ইচ্ছা করিলে শেক্সপীয়ারের যখন নিয়ত-যুদ্ধের কাল অতীত হইল, সমাজ কতকটা in Lear’এর সঙ্গে বালজাকের ‘Pere Gorio'র সু ল হইল, তখন এই যোদ্ধমণ্ডলী ধনে-ধানে প্ৰ কথাও তুলিতে পাবিতেন তাহার প্রদত্ত ক্ষমতায় উচ্চপদ অধিকার করিলেন, ক্ষমতার তার বৈদেশিক দৃষ্টান্ত ছাড়িয়া দিয়া আমরা আমাদের দেশের সারে কেহ রাজা, কেহ জায়গীরদার (Feudal baron) দ্বিত দৃষ্টান্ত দ্বারা কথাটা পরিক্ষু করিতে পারি কেহ বা তাহাদিগের পারিবদ হইলেন এইসকল উজ ভৰন্থ ব্যক্তি অদৃষ্টবিড়ম্বনায় অধোনীত হইলেন (ইংরেজ পদস্থ ব্যক্তিদিগের মনোরঞ্জনের জন্য, তাহাদিগের অবস ি ৰা "fallen, fallen, fallen, fallen from জর, এই শ্রেণীর সাহিত্যের আরও উক্তি is high estate ), রাজা হরিশ্চন্দ্ৰ বা শ্ৰীবৎস বা নল হইল এবং নুতন-নুতন শ্ৰেণীর সাহিত্যের সৃষ্টি হইল। তবে যুধিষ্ঠির রাজ্যভ্ৰষ্ট ও সৰ্ব্বশ্বাস্ত হইয়া পথের ভিখারী প্ৰণৱকাহিনী প্ৰধান। গান, গল্প, ছড়া, কথা, কাহিনী, ইলেন, রাজার নন্দন শ্ৰীৰাম-লক্ষণ লটাচীর ধারণ করিয়া নাটক, রচিত, গীত, কথিত, ঘোষিত (recited), অভিনীত নবাসী হইলেন, রাজার নন্দিনী বাজার মহিষী দময়ী হইতে লাগিল । কেন না, যাহাদিগকে জীৰিকাৰ্জ্জনের ৰাল জানিবারণ করিয়া পলাবিত গতির জন্ত বিলাপ জয় কঠিন পরিশ্ৰম করিতে হয় না, অৰ রিতেছেন, রাজার নদিনী রাজবধু সীতাদেবী বন্দীদশায় এক সপ্ৰদায় ( leisured class ) সমজার সমাজে না ীে কতৃক উৎপীড়িত৷ হইতেছেন, রাজমহিধী শৈব্যা থাকিলে সাহিত্যের উন্নতি হয় না শোক-কাতরা এবং পুলের শবদাহের জন্য যৎসামান্ত রঞ্জনের জন্যই কবি, গায়ক, নট প্ৰভৃতির প্রয় হাতে অৰ্থসংগ্ৰহে অসমৰ্থ, এ-সকল নিদাৰুণ বৃত্তান্ত শ্ৰবণে শোকে অভিজাতবৰ্গের গুণগ্ৰাম, কীৰ্ত্তিকথা, খহুঃখের কাহিনী থে কণার সমবেদনা কাহার না হৃদয় বিগলিত হয়, সাহিত্যন্ত্ৰষ্টাদিগের একমাত্ৰ বৰ্ণনীয় বিষয় হুইল কাহার না চক্ষুঃ অশজলে পূৰ্ণ হয় ? পক্ষান্তরে, সাধারণ লোকের সুখদুঃখের কাহিনী কাবো কাৰ্যের দিক্ হইতে, সঞ্চারের দিক হইতে, কথাটা বিষয়ীভূত কৱিৰার জন্য কবিগণের কিছুমাৰ হো জিলা বটে। কিন্তু সাহিত্যের এই exclusiveness বা না কেন না, সাধারণ লোকে সৰ্ব্বদা জীবিকালে কপেশে পক্ষপাতিত্বের মূলে প্ৰকৃতপক্ষে ইহা অপেক্ষাও ব্যাপৃত থাকিত, তাহাদিগের কারণ বৰ্ত্তমান ছিল সে কারণটি সমাজ ও না, সে শক্তিও ভাহাদিগের ছিল কি না সহে বৈদিক্ হইতে লক্ষ্য করিতে হইবে অৰ্থশালী না হওয়াতে কবিগণকে পুৱতি করিবার ক্ষমতাও যাৱে এমন একদিন ছিল যখন যুদ্ধই সমাজের স্বাভা তাহাদের ছিল না। বিশেষতঃ সমাজ ও রাষ্ট্ৰে সাধারণ ৱিষ্ক অবস্থা ছিল দুৰ্দ্ধৰ্য যোদ্ধা ক্ষুদ্র-ক্ষুদ্ৰ গোষ্ঠীর লোকের স্থান তখন নিতান্ত নিয়ে ; তখন তাহাত্মা মাছ অধিনায়ক, বৃক্ষক, নিয়ামক ছিলেন। তাঁহাদেৱ নহে-মেহ, ভারবাহী পণ্ড (beasts of burden), যদিকে স্বীকার করিয়াই সাধারণ লোকে কতকটা নিৰুপত্ৰৰে গোলাম (cris), বেগাৱে মজুর (headers of wood নিৰ্ব্বাহ করিতে পাতি । এই সকল বীরকে and drawers of water ), এমন কি কৰিলে ীেতের কাৰ্য্যে উৎসাহিত কৱিবাৱ জল, তাদের মাত্ৰ- -সামী জে ব্যাহত রাখিবােৱ জয়, তাহাদেৱ পূৰ্ব্বকীৰ্ত্তির তি (২) করিবার জন্য, তাহাদেৱ মনস্তুষ্টিবিধানের জন্ম কিন্তু এখন বহু শতাম্বীর অভিব্যক্তিতে সমাজ ও হাষ্ট্ৰেীয় চাল-কতৃক তাহাদেৱ বীৰত্বকাহিনী গীত হইত। প্ৰকৃতি পৰিবৰ্ত্তিত হইয়াছে। সভ্যদেশসমূহে পূৰ্ব্বে নায় বোধ হয় কবিতার জন্মকথা। বীরগণ দুহন্তে বদী যুদ্ধবিগ্ৰহ না থাকোতে সমাজে শান্তি বিরাজ করিতেছে— । ।